অর্ধ কোটি গ্রাহকের মাইলফলকের খুব কাছাকাছি টেলিটক

0
89

রাষ্ট্রায়ত্ত অপারেটরটি এর আগে কখনও অর্ধ কোটি গ্রাহকের মাইলফলকে পৌঁছাতে না পারলেও এবার খুব কাছাকাছি চলে এসেছে।

নিজের সঙ্গে নিজের পরিসংখ্যানের তুলনায় সাম্প্রতিক সময়ে অনেক ভালো করছে টেলিটক।

বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) প্রকাশিত মঙ্গলবারের গ্রাহক প্রতিবেদনে দেখা যাচ্ছে, অক্টোবর মাসের শেষে একমাত্র দেশীয় কোম্পানিটির কার্যকর গ্রাহক সংখ্যা এখন ৪৭ লাখ ৬ হাজারে এসে দাঁড়িয়েছে।

সব মিলে মে মাসের পর থেকে আর পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি অপারেটরটিকে। মে মাসে তাদের কার্যকর সংযোগ ছিল ৩৮ লাখ ১৮ হাজারে। এরপর সব কিছু যেন ভোজবাজির মতো বদলে যেতে শুরু করে।

গত পাঁচ মাসে তারা প্রায় নয় লাখ গ্রাহক বাড়িয়েছে। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, নিকট অতীতে টেলিটকের ক্ষেত্রে অন্তত এমনটি হয়নি।

এমনকি ২০১২ সালের আগস্টে সবার আগে থ্রিজি চালু হওয়ার পর তারা যখন গ্রাহক সংখ্যার বিচারে অনেকটা এগিয়ে গেল তখনও নিজেদের নেটওয়ার্কে পাঁচ মাসের মধ্যে নয় লাখ গ্রাহক পায়নি।

অক্টোবর মাসের হিসাব বলছে, এই মাসে সব মিলে ৭ লাখ ৫৫ হাজার গ্রাহক বেড়ে দেশের মোট কার্যকর মোবাইল সংযোগ দাঁড়িয়েছে ১৬ কোটি ৪১ লাখ ৭০ হাজার।

এই সাড়ে সাত লাখ নতুন সংযোগের মধ্যে টেলিটকেরই বেড়েছে এক লাখ ৭৯ হাজার। অর্থাৎ নতুন যোগ হওয়া সিমের ২৩ দশমিক ৭১ শতাংশ এসেছে টেলিটকের ঘরে।

গ্রামীণফোনের অক্টোবর মাসে সাড়ে তিন লাখ সংযোগ বৃদ্ধি পেয়ে দাঁড়িয়েছে ৭ কোটি ৬০ লাখ ৬৭ হাজারে। অন্তত গত মাসে রবি ও বাংলালিংকের চেয়ে বেশি গ্রাহক পেয়েছে টেলিটক।

অক্টোবর শেষে রবি’র কার্যকর সংযোগ আছে চার কোটি ৮৩ লাখ ৪৯ হাজার।

সাড়ে তিন কোটির মাইলফলক ছুঁয়ে বাংলালিংক দাঁড়িয়েছে তিন কোটি ৫০ লাখ ৪৯ হাজারে।

অন্যদিকে, বছরের দশম মাসের শেষে দেশে কার্যকর ইন্টারনেট সংযোগ আছে নয় কোটি ৯৫ লাখ ৬৯ হাজার। এরমধ্যে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে যুক্ত আছে নয় কোটি ৩৭ লাখ ৯৩ হাজার।

দেশে চালু থাকা ব্রডব্যান্ড সংযোগ আছে ৫৭ লাখ ৩৮ হাজার। আর মরতে বসা ওয়াইম্যাক্সের ৪০ হাজার সংযোগ এখনো বেঁচে আছে বলে বিটিআরসি’র প্রতিবেদন বলছে।