আলিয়ঁস ফ্রঁসেজে ডিজাইন, ক্যালিওগ্রাফি ও লোকশিল্প প্রদর্শনী

0
101

নিজস্ব প্রতিবেদক
ডিজাইন , ক্যালিওগ্রাফি , লোকশিল্প ও উপস্থাপনা সংশ্লিষ্ট সুপ্রাচীন নন্দনশিল্পের আধুনিক পরিভাষাকে সমৃদ্ধ করতে গতকাল নগরীর আলিয়ঁস ফ্রঁসেজে ২ দিনব্যাপী ক্যালিগ্রাফি ও লোকশিল্প প্রদর্শনী শুরু ।
চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা ইন্সটিটিউটের প্রাক্তন শিক্ষক খ্যাতনামা শিল্পী অধ্যাপক সৌমেন দাশ পরিচালিত কর্মশালার পরবর্তী উক্ত প্রদর্শনী। প্রদর্শনীতে অংশগ্রহণকারী ২০ জন শিল্পীর অর্ধশতাধিক শিল্পকর্ম স্থান পায়। এতে কোলাজ, ডিজাইনসহ বিভিন্ন মাধ্যমের ক্যালিওগ্রাফি স্থান পায়।
উল্লেখ্য, উক্ত কর্মশালা ২৪ জুন শুরু হয় এবং শেষ হয় ৩ জৃুলাই পর্যন্ত চলে। আর তাতে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা ইন্সটিটিউটের শিক্ষার্থী সহ পেশাদারী ২০ জন ডিজাইনার অংশ নেয়। কর্মশালাটি সমন্বয়ক ছিলেন চারুকলা ইন্সটিটিউটের অধ্যাপক প্রণব মিত্র চৌধুরী এবং শিল্পী আজিজুল কদির।
গতকাল ৫ জুলাই বিকেল ৫ টায় উক্ত প্রদর্শনী উদ্বোধন করেন আলিয়ঁস ফ্রঁসেজের পরিচালক ড. সেলভাম থোরেজ।
উদ্বোধক সেলভেন থেরেজ তাঁর বক্তব্যে বলেন, এই সময়ে শিল্পচর্চার যে কোন উদ্যোগ আশার আলো দেখায়। শিল্পের মাধ্যমে সুন্দর ও শান্তির বাণী ছড়িয়ে পড়ুক বিশ্বব্যাপী।
প্রশিক্ষণ অধ্যাপক সৌমেন দাস বলেন , অন্যান্য ভাষার মতো বাংলা ভাষার অক্ষর শব্দ ও লাইন নিয়ে আর্টের পরিসর অতোটা বিস্তৃত নয়। আর এই প্রসারের জন্য আমি চট্টগ্রাম আলিয়ঁস ফ্রঁসেজের এই উদ্যোগকে ধন্যবাদ জানাই। এর ফলে বাংলা ক্যালিগ্রাফি এবং টাইপোগ্রাফির মাধ্যমে বাংলা লিখন রীতির নান্দনিকতা ছড়িয়ে পড়বে সবখানে ।
কর্মশালাটিা সমন্বয়ক অধ্যাপক প্রণব মিত্র চৌধুরী বলেন,চারদিকে ঘৃণা আর অরাজকতার এই সময়ে শিল্পচর্চার যে কোনো উদ্যোগ আশার আলো দেখায়। এমনই একটি আশা জাগানিয়া আয়োজন সুন্দরভাবে সম্পন্ন হলো। আমার বিশ্বাস, শিল্পের মাধ্যমে সুন্দর ও শান্তির বাণী ছড়িয়ে পড়বে বিশ্বব্যাপী। আর শিল্পমনা মানুষদের পৃষ্ঠপোষকতা ও সহায়তায় এমন আয়োজনকে এগিয়ে নিয়ে যাবে বহুদূর।
উদ্বোধন অনুষ্ঠানটি উপস্থাপনায় ছিলেন চট্টগ্রাম আলিয়ঁস ফ্রঁসেজে ডেপুটি পরিচালক ড. গুরুপদ চক্রবর্তী। উক্ত প্রদর্শনী চলবে আজ ৬ ই জুলাই বিকেল ৪টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত ।