ইসলামী ফ্রন্ট, যুবসেনা ও ছাত্রসেনা উত্তর জেলার মানববন্ধনে

0
15

 

প্রেস রিলিজ:মিয়ানমার সরকারের সেনাবাহিনী ও উগ্রবাদী জঙ্গি বৌদ্ধ কর্তৃক রাখাইন রাজ্যের রোহিঙ্গা মুসলমানদের উপর বর্বর নির্যাতন ও হত্যকান্ডের প্রতিবাদে বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্ট, বাংলাদেশ ইসলামী যুবসেনা ও বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রসেনা চট্টগ্রাম উত্তর জেলার আয়োজনে ৯ সেপ্টেম্বর’১৭ শনিবার বিকালে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাব চত্বরে আয়োজিত মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, মিয়ানমার সরকার রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাসের মাধ্যমে রাখাইন রাজ্য মুসলিম শূন্য করার অপচেষ্টায় লিপ্ত হয়েছে। রোহিঙ্গা মুসলমানদের নাগরিকত্ব কেড়ে নিয়ে নারী, শিশু ও বৃদ্ধদের বর্বর হত্যা, নিষ্ঠুর নির্যাতন করে বাংলাদেশে ঠেলে দিচ্ছে। বক্তারা রোহিঙ্গা নিধনের তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে জাতিসংঘের কাছে মিয়ানমারের বিরুদ্ধে বাণিজ্যিক অবরোধ ও সামরিক হস্তক্ষেপের দাবি জানান। একই সাথে রাখাইন শান্তি শৃঙ্খলা ফিরিয়ে এনে বাংলাদেশে আশ্রিত রোহিঙ্গাদের ফেরত নেয়ার জন্য মিয়ানমার সরকারের প্রতি দাবি জানান। বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রসেনা চট্টগ্রাম উত্তর জেলার সভাপতি হোসাইন মোহাম্মদ এরশাদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্ট, কেন্দ্রীয় শিল্প ও বাণিজ্য সচিব পীরজাদা মাওলানা মুহাম্মদ গোলামুর রহমান আশরফ শাহ। প্রধান বক্তা ছিলেন বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রসেনার কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক ছাত্রনেতা এইচ এম শহীদুল্লাহ। চট্টগ্রাম উত্তর জেলা ছাত্রসেনার সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে অতিথি ও আলোচক ছিলেন ইসলামী ফ্রন্ট নেতা মুহাম্মদ এনামুল হক ছিদ্দিকী, যুবসেনা নেতা মাস্টার মুহাম্মদ ইসমাইল, আজিম উদ্দিন আহমেদ, মুহাম্মদ আমান উল্লাহ আমান, মুহাম্মদ আবু মুছা, ছাত্রসেনা নেতা মুহাম্মদ সরওয়ার উদ্দিন চৌধুরী, মুহাম্মদ ইলিয়াছ রেজা, মুহাম্মদ মিজানুর রহমান, মুহাম্মদ আলমগীর, মুহাম্মদ আজাদ রানা, মুহাম্মদ সাইফুল ইসলাম, মুহাম্মদ জয়নাল, মুহাম্মদ শাহাদাত হোসেন, আবদুল্লাহ আল রোমান, মুহাম্মদ আলী আকবর, মুহাম্মদ মিনহাজ উদ্দিন, মুনির আহমদ। মানববন্ধনে প্রধান অতিথি আশরফ শাহ বলেন, ‘অহিংসা পরম ধর্ম’ জীব হত্যা মহাপাপ’ ইত্যাদি মর্মবানীকে ধারণ করে যে বৌদ্ধের মহীমা প্রকাশ সেই বৌদ্ধ ধর্মালম্বী কর্তৃক নির্বিচারে রোহিঙ্গা হত্যা ও নিষ্ঠুর নির্যাতনের ঘটনা বিশ্ববাসীকে বিস্মিত করছে। তিনি বাংলাদেশের বৌদ্ধ ধর্মগুরুদের তাদের ধর্মের মূলবাণী মিয়ানমার সরকারের কাছে পৌছিয়ে দিয়ে রোহিঙ্গা মুসলমানদের উপর হত্যা ও নির্যাতন বন্ধের উদ্যোগ নেয়ার আহ্বান জানান।