উখিয়ায় আ’লীগের ৭০ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত

0
88
কায়সার হামিদ মানিক,উখিয়া।
বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ৭০ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনায় পালিত হয়েছে উখিয়ায়। উপজেলা আওয়ামী লীগের উদ্যেগে উখিয়ার সর্বত্র বিভিন্ন কর্মসূচী পালিত হয়েছে। উখিয়া মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মিলনায়তনে উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও উখিয়া উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ হামিদুল হক চৌধুরীর সভাপতিত্বে রোববার বিকেলে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।
আওয়ামী লীগের ৭০ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে উখিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের উদ্যেগে আয়োজিত আলোচনা সভায় আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ সহ অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দগণ বক্তব্য দেন। বক্তারা বলেন, বঙ্গবন্ধু জাতির জনক শেখ মজিবুর রহমানের জন্ম না হলে,তাঁর নেতৃত্ব না থাকলে অভাগা বাঙ্গালী চির দূঃখী থেকে যেত। বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য উত্তরসূরী জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ বিশ্ব দরবারে আজ অতীতের সমস্ত অপবাদ, গ্লানি মুছে ফেলে সম্মানিত বাঙ্গালী জাতিতে উন্নীত করেছেন।
দরিদ্র, ক্ষুধা মুক্ত, শিক্ষিত, স্বাস্থ্যবান,অর্থনৈতিক সমৃদ্ধশালী বাংলাদেশ বিনিমার্ণে মধ্য আয়ের দেশে রূপান্তরিত করছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। যারা আওয়ামী লীগে হাইব্রিড হয়ে এসেছে তাদের আজ আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীতেও দেখা যাচ্ছে না। যারা আওয়ামী লীগের ভিতরে দ্বন্দ্ব, কলহ,বিভেদ সৃষ্টি করতে ষড়যন্ত্র করছে তাদের স্থান আওয়ামী লীগে হবে না বলে সভায় হুঁশিয়ারি করেন বক্তারা।
প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন, উখিয়া আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আমিনুল হক আমিন, সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুবুল আলম মাহবুব, নজি আহমদ চৌধুরী, জালিয়া পালং ইউনিয়ন আ’ লীগ সভাপতি, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান এসএম সৈয়দ আলম,রত্নাপালং ইউনিয়ন আ’ লীগ সভাপতি আসহাব উদ্দিন মেম্বার, হলদিয়া পালং ইউনিয়ন আ’ লীগ সভাপতি মোঃ ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক ফজলুল করিম, রাজাপালং ইউনিয়ন আ’ লীগ সভাপতি সালাহ উদ্দিন মেম্বার, সাধারণ সম্পাদক নুরুল আলম, পালংখালী ইউনিয়ন আ’ লীগ সহ সভাপতি হাফেজ জাকের হোসাইন, উখিয়া উপজেলা যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক ইমাম হোসেন, যুবলীগ সহ সাধারণ সম্পাদক মাসুদ আমিন শাকিল, রাজাপালং ইউনিয়ন যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক রাসেল উদ্দিন সুজন, উখিয়া উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি মকবুল হোসাইন মিথুন প্রমূখ বক্তব্য দেন। সভা শেষে ৭০ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে কেক কেটে উদযাপন করা হয়।