ঔপন্যাসিক ও কবি গুন্টার গ্রাস আর নেই

0
9

সাহিত্যমহলে জার্মান ঔপন্যাসিক ও কবি গুন্টার গ্রাসের মতো করে আর কেউ বাংলাদেশ নিয়ে এতো আশাবাদী ছিলেন না। ১৯৯৯ সালে সাহিত্যে নোবেল পুরস্কার বিজয়ী এই মহান জার্মান সাহিত্যিক ৮৭ বছর বয়েসে জীবিত গুন্টার গ্রাসমানুষের তালিকা থেকে নিজ নাম কেটে নিয়েছেন। আজ ১৩ এপ্রিল, ২০১৫ পৃথিবী হারিয়েছে তাঁকে।

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের যোদ্ধা ছিলেন গুন্টার গ্রাস; যুদ্ধ তাকে মানসিকভাবে পঙ্গু করে দিতে পারেনি; যদিও একজন প্রবল সংবেদনশীল মানুষ হিসেবে তার যথেষ্ট সম্ভাবনা ছিল। নাজিবিরোধী ঐ বিখ্যাত উপন্যাস টিন ড্রাম (১৯৫৯) না লিখলে হয়ত ভেতরে জমে থাকা বাষ্প তাকে হত্যা করতো। দুই জার্মানিকে এক করার পক্ষে শর্তসাপেক্ষে মত দিয়েছিলেন তিনি- যদি পশ্চিম ও পূর্ব জার্মানির বিপুল অর্থনৈতিক সাম্য অর্জিত হয়। ঐ সাম্য অর্জিত না হলে শোষণের যে নতুন ক্ষেত্র গঠিত হবে তা ব্যখ্যা করে দুই জার্মানি এক হওয়ার বিরুদ্ধে কথা বলেছিলেন। এ সময় বিতর্কের মুখে পড়লেও সমাজ-রাজনৈতিক সমস্যাগুলো থেকে তার সোচ্চারকণ্ঠ কেউ সরিয়ে নিতে পারেনি।

তার রচিত উল্লেখযোগ্য রচনাগুলো- টিন ড্রাম (১৯৫৯), ক্যাট এন্ড মাউজ (১৯৬১), ডগ ইয়ারস (১৯৬৩), দ্য ফ্লাউন্ডার (১৯৭৭), মাই সেঞ্চুরি (১৯৯৯) পিলিং দ্য ওনিয়ন (২০০৬) ইত্যাদি। জার্মান ও বিশ্বসাহিত্যে নতুন ভাষারীতি এবং ইউরোপীয় জাদুবাস্তবতার স্রষ্টা তিনি।