কম খরচে ঘর সাজানোর উপায় ও কৌশল

0
40

ঘর হচ্ছে প্রশান্তির প্রতীক। সারাদিন কর্মব্যস্ততার পর ক্লান্ত শরীরে ঘরে ফিরলেও মনটা অনেক প্রশান্তিতে ভরে যায়। এজন্য প্রত্যেক মানুষ চায় তার ঘরটি হোক সুন্দর করে সাজানো গোছানো এবং ছিমছাম। ঘর সাজাতে অনেক কিছু করার ইচ্ছা থাকলেও সব সময় পছন্দের ঘর সাজানোর জিনিস কিনতে পারা যায় না। কিন্তু চাইলেই একটু বুদ্ধি খাটিয়ে খুব কম খরচে এবং নতুন আঙ্গিকে নিজের ঘরকে সাজানো যায়। শুধুমাত্র এর জন্য প্রয়োজন কিছু কৌশলের। তাহলে আসুন, জেনে নেই সস্তায় চমৎকার ভাবে ঘর সাজানোর কৌশলগুলো।

রঙের পরিবর্তন
আপনার ঘরকে আকর্ষনীয় করে তুলতে রং অনেক কার্যকরী ভূমিকা পালন করে তাই ঘরের আকার কে প্রাধান্য দিয়ে রং নির্বাচন করুন। হালকা রং

ব্যবহারে ঘরকে বড় দেখায় আর গাঢ় রং ঘরকে ছোট দেখায়। যদি নতুন করে রং করা সম্ভব না হয় তবে আগের রং ওপর আবার নতুন এক কৌটা রং লাগিয়ে নিন দেখবেন ঘরের উজ্জলতা বেড়ে গেছে।

সঠিক সোফা নির্বাচন করুন
সোফা আপনার ঘরের একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ তাই বলে অনেক দামী কোন সোফা দিয়ে ঘর সজাতে হবে এমন কোন কথা নেই। আজকাল মেঝেতে বসার ব্যবস্থা বা ফ্লোরিং বেশ জনপ্রিয়তা পাচ্ছে। আপনি যদি ফ্লোরিং পছন্দ না করেন তবে বাঁশ কিংবা বেতের সোফা দিয়ে ঘর সাজাতে পারেন।অতি অল্প খরচে অনেক সুন্দর কিছু বেতের সোফা কিনতে পাওয়া যায়।

কুশন ব্যবহার
ঘরকে সাজাতে কুশন ব্যবহার করতে পারেন। রঙিন কুশন

ব্যবহারের মাধ্যমে ঘরের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি পায়। আপনার সোফার রঙ খুব সাধারণ অনুজ্জ্বল হলেও তার সঙ্গে রঙিন কুশন মানিয়ে যাবে সহজেই। যে কোনো একটি উজ্জ্বল রঙের কুশন দিয়ে সোফা ও বিছানা ভরিয়ে তুলতে পারেন। আবার চার পাঁচটি রঙ এর কুশন কভারও ব্যবহার করতে পারেন।

গাছ ও ফুল
অন্যান্য ঘর সাজানোর জিনিসের তুলনায় ফুল এবং গাছ বেশ সস্তা। এই গাছ দিয়ে সাজিয়ে নিতে পারেন আপনার বাসাটি। গাছ ঘরকে রঙিন ও জীবন্ত করে তুলবে। জানালার ধার ঘেঁষে লতানো গাছ লাগানো যেতে পারে আর ঘরে পর্যাপ্ত আলো বাতাস না থাকলে গাছের বদলে রেখে দিতে পারেন একগুচ্ছ তাজা ফুল। ঘরের এক কোণে কয়েকটি তাজা ফুল রেখে

দিলে নিমিষেই ঘর উজ্জ্বল হয়ে ওঠে।

ল্যাম্প
অল্প খরচে ঘরে আভিজাত্য ফুটিয়ে তুলতে চাইলে ল্যাম্পের জুড়ি মেলা ভার। ঘরের এক কোণে একটি রঙিন ল্যাম্প রেখে দিন। সেটা হতে পারে হলুদ, লাল, নীল, কমলা কিংবা সবুজ অথবা বেশ কিছু রঙের মিশ্রনে তৈরী ল্যাম্প পাওয়া যায় বাজারে। এছাড়া ঝুলানোর জন্য বিশেষ কিছু ল্যাম্প পাওয়া যায়, এর যেকোন একটা ল্যাম্প আপনি ঘরের কোণে রেখে দিতে পারেন।

রাস্তার পাশের দোকান থেকে কিনুন
সবসময় বড় দোকানগুলো থেকে যে শোপিস বা ঘর সাজানোর জিনিস কিনতে হবে এমন তো নয়। অনেক সময় রাস্তার পাশেও পেতে পারেন দারুন কিছু ঘর সাজানোর জিনিস। পথে আসা যাওয়ার সময় খেয়াল করুন রাস্তার দোকানগুলোকে।

পেয়ে যেতে পারেন আপানার পছন্দের কোন ঘর সাজানোর উপকরণ।

আসবাবপত্রের জায়গা পরিবর্তন
ঘরের আসবাবপত্র গুলো এক জায়গা থেকে আরেক জায়গায় রেখে দেখতে পারেন কেমন লাগে ঘরটি। হয়তো দেখা যাবে কোন কিছুর জায়গা পরিবর্তনের ফলে ঘরটি আরও সুন্দর হয়ে উঠেছে। বসার ঘরের মাঝে রাখা সোফাটা এক কোণায় নিয়ে আসুন। বিছানাটার জায়গা বদলে নিয়ে যান অন্য কোথায়। লাইটের আলো ঘরের কোথায় পড়বে সেখানেও আনতে পারেন পরিবর্তন। শুধু দেখতে হবে ঘরের আসবাবের কোন কম্বিনেশনে ঘরটি আরও পরিপাটি হয়ে উঠেছে।

সাজিয়ে রাখুন টুকিটাকি জিনিসপত্র
ঘরে নানা ধরণের টুকিটাকি জিনিসপত্র থাকে, যদি ঘরকে আরও সুন্দর দেখতে চান তাহলে টুকিটাকি জিনিসপত্র গুলোর দিকেও নজর দিতে হবে। সুন্দর করে গুছিয়ে রাখুন সব কিছু। দেখা যাবে অল্প কিছু পরিবর্তনের ফলে ঘর লাগছে আরও সুন্দর।

বাতিল জিনিসের ব্যবহার
ঘরে ভিন্নতা আনতে ব্যববার করতে পারেন ফেলে দেওয়া বাতিল জিনিসপত্র। আজকাল কোন কিছুই ফেলনা নয়। চাইলে অনলাইনে ভিডিও টিউটোরিয়াল দেখে বাতিল জিনিস গুলো দিয়ে বানিয়ে ফেলতে পারেন সুন্দর সব শোপিস। যা দেখতে শৈল্পিক ও দৃষ্টিনন্দন সাথে আপনার খরচের টাকাও বেঁচে যাবে।