জমিদার ভৈরবের জরাজীর্ণ বাড়ীটি কালের স্বাক্ষী

0
29

শফিউল আলম, রাউজান প্রতিনিধিঃ রাউজান উপজেলার ২নং ডাবুয়া ইউনিয়নের পশ্চিম ডাবুয়া এলাকায় একসময়ের প্রভাবশালী জমিদার ভৈরব সওদাগরের চুন সুড়কি দিয়ে ইটের গাথুনি করা বিশাল বাড়ী । বাড়ীর সামনে বিশাল দিঘি, দিঘির মধ্যে জমিদার ভৈরব সওদাগারের নির্মান করা পাকা ঘাট, দিঘির পাড়ে ভৈরব সওদারের নির্মিত শিব মন্দির। দিঘির দক্ষিন পাড়ে জমিদার ভৈরব সওদাগরের প্রতিষ্টিত মধ্যম সর্তা রাম সেবক সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় । জমিদার ভৈরব চন্দ্র পাল প্রকাশ ভৈরব সওদাগরের বিশাল বাড়িটি জরার্জিন অবস্থায় পড়ে রয়েছে । জমিদার ভৈরব চন্দ্র পাল প্রকাশ ভৈরব সওদাগরের প্রতিষ্টিত মধ্যম সর্তা রাম সেবক সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ব্যতিত জমিদার ভৈরব চন্দ্র পাল প্রকাশ ভৈরব সওদাগরের বিপুল পরিমান সম্পত্তি দেবোত্তর সম্পত্তি সহ সব সম্পত্তি তার বংশধরের কাছ থেকে ক্রয় করে নিয়েছে চিকদাইর ও ডাবুয়া এলাকার কয়েকজন ব্যক্তি । জমিদার ভৈরব চন্দ্র পাল প্রকাশ ভৈরব সওদাগরের পশ্চিম ডাবুয়া, ডাবুয়া, চিকদাইর, হলদিয়া ইউনিয়নের বৃক্বানপুর, বানারস এলাকায় বিপুল পরিমান সম্পত্তি ছিল । জমিদার ভৈরব চন্দ্র পাল প্রকাশ ভৈরব সওদাগরের বংশ ধরদের মধ্যে দুই পুত্র শরৎ চন্দ্র পাল, কৃষ্ণ চন্দ্র পাল । শরৎ চন্দ্র পালের পুত্র রমেশ চন্দ্র পাল । রমেশ চন্দ্র পালের এক কন্যা সপ্রিয়া পাল, এক পুত্র দীপাল পাল ভারতে বসাবাস করছে বলে এলাকার লোকজন জানান । জমিদার ভৈরব চন্দ্র পাল প্রকাশ ভৈরব সওদাগরের অপর পুত্র কৃষ্ণ চন্দ্র পালের পুত্র রুপেন্দ্র চন্দ্র পালের পুত্র তুষার পাল, কন্যা কুমকুম পাল, তুষার পালের পুত্র ত্রিদিপ পাল দেশে থাকলে ও তারা কোথায় রয়েছে তা এলাকার লোকজন কেউ বলতে পারছেনা । এলাকার প্রবীন কয়েকজন নারী ও পুরুষ বলেন জমিদার ভৈরব চন্দ্র পাল প্রকাশ ভৈরব সওদাগর শিব মন্দিরে বসে পুজা করতো, এলাকার দরিদ্র মানুষকে সহায়তা করতো জমিদার ভৈরব চন্দ্র পাল প্রকাশ ভৈরব সওদাগরের বাড়ীতে শিব চতুদর্শী মেলা হতো । বর্তমানে জমিদার ভৈরব চন্দ্র পাল প্রকাশ ভৈরব সওদাগরের বাড়ীটি কালের স্বাক্ষী হয়ে থাকলে ও নেই জমিদারী, বিপুল পরিমাণ সম্পত্তি বেহাত হয়ে গেছে । জমিদার ভৈরব চন্দ্র পাল প্রকাশ ভৈরব সওদাগরের প্রতিষ্টিত শিব মন্দির ও মধ্যম সর্তা রাম সেবক সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, জরার্জিন ঝোপঝাড় হয়ে থাকা বাড়িটি এখনো জমিদার ভৈরব চন্দ্র পাল প্রকাশ ভৈরব সওদাগরের স্মৃতি বহন করে আসছে ।