ত্রিমুখী সংর্ঘষে নিহত ৪, আহত ৪০

0
17

কুমিল্লা সদর দক্ষিণ মডেল থানা সংলগ্ন ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়কের দয়াপুর (লইপুরা) নামক স্থানে শুক্রবার সড়ক দুর্ঘটনায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৪ এ দাঁড়িয়েছে। শুক্রবার বিকালে তিনটি বাস ও ড্রাম ট্রাকের মুখোমুখী সংর্ঘষে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতদের মধ্যে একজন স্কুলশিক্ষক, এক শিশু এবং দুই বাসের হেলপার রয়েছে। এছাড়া ৪০ জন বাসযাত্রী আহত হয়েছেন এ ঘটনায়।

খবর পেয়ে সদর দক্ষিণ ফায়ার সার্ভিস, সদর দক্ষিণ মডেল থানা ও হাইওয়ে পুলিশ হতাহতদের উদ্ধার করে কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেছে। পুলিশ দুর্ঘটনার শিকার তিনটি বাস ও ড্রাম ট্রাকটি উদ্ধার করেছে।

স্থানীয় সূত্র ও পুলিশ জানায়, শুক্রবার বিকাল সোয়া চারটায় কুমিল্লা সদর দক্ষিণ মডেল থানা সংলগ্ন ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়কের দয়াপুর (লইপুরা) নামক স্থানে শহীদ আব্দুল মতিন সড়ক থেকে একটি ড্রাম ট্রাক ডানে-বায়ে না দেখে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের ইউটার্ন দিয়ে দক্ষিণ পাশে যাওয়ার জন্য উঠে পড়ে। এ সময় চট্রগ্রামগামী হানিফ পরিবহণের বাস (ঢাকা মেট্রো-ব-১৪-৮৩০৩) ড্রাম ট্রাকটিকে রক্ষা করতে ফোরলেন সড়কের দক্ষিণ পাশে মোড় নেয়।

একই সময় ঢাকাগামী শাপলা পরিবহনের বাস (ঢাকা মেট্রো-ব-১৪-৪৪৭৭) ও শান্তি পরিবহনের বাস (ঢাকা মেট্রো-ব-১১-০৮০৮) এর মুখোমুখী সংঘর্ষ হয়। এতে সদর দক্ষিণ উপজেলার মধ্যম বিজয়পুর গ্রামের আব্দুল মান্নানের পুত্র ও বাগিচাগাঁও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক সাজেদুর রহমান (৪৮) ও চট্টগ্রামের সীতাকুন্ড উপজেলার বারইয়াডালা গ্রামের মৃত ছলিম উল্লাহর পুত্র বাসের হেলপার রহিম উদ্দিন মানিক (৪২) নিহত হয়েছেন।

পরে কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে অজ্ঞাত পরিচয় একশিশু ও অপর বাসের আরেক হেলপার নিহত হয়েছেন। তাৎক্ষণিকভাবে নিহত ঐ শিশু ও হেলপার এবং আহতদের পরিচয় পাওয়া যায়নি। তবে নিহতদের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশংকা করা হচ্ছে।

কুমিল্লা সদর দক্ষিণ মডেল খানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মামুন-উর-রশিদ পিপিএম সড়ক দুর্ঘটনায় এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত (সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায়) চারজন নিহতের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।