খাদ্যে ভেজাল মানুষ খুন করার চেয়েও ভয়াবহ

0
73

খাদ্যে ভেজাল মানুষ খুন করার চেয়েও ভয়াবহ। কারন খাদ্যে ভেজাল ও হরেক রকম ক্যামিকেল মিশ্রণ শ্লোপয়জন। কাউকে গুলি করে মেরে ফেললে সে একবারেই মরে যাবেন। আর খাদ্যে ভেজালের কারনে মানুষ রোগাক্রান্ত হয়ে ধীরে ধীরে পুরো জীবন মৃত্যুর যন্ত্রণা ভোগ করে মরবে। তাই মাননীয় প্রধান মন্ত্রী খাদ্য ভেজালের বিরুদ্ধে শুন্য সহনশীলতা ঘোষনা করেছেন। দেশে বর্তমানে খাদ্য-ভোগ্য পণ্যে ভেজালের মহোৎসব চলছে। খাদ্য, নিত্যপ্রয়োজনীয় ভোগ্য পন্য, পানীয় ও জীবন রক্ষা ওষুধে ভেজালের মাত্রা এতটা বিস্তৃতি লাভ করেছে যার থেকে রেহাই পাওয়া কঠিন হয়ে আছে। আর খাদ্যে ভেজালের এই মহোৎসব চলমান থাকলে মধ্যম আয়ের দেশে উপনীত হওয়ার স্বপ্ন কঠিন হয়ে যাবে। কারন খাদ্যে ভেজালের কারনে মানুষের সুস্থতা যেরকম বাঁধাগ্রস্থ হবে, একই ভাবে মানুষের কর্মক্ষমতাও মারাত্মক হুমকির মুখে পড়বে। সুস্থ সবল মানবশক্তি ছাড়া জাতীয় উন্নয়ন সম্ভব নয়। তাই খাদ্যে ভেজাল রোধ করা না গেলে সুস্থ, মেধাবী কর্মশক্তি পাওয়া যাবে না আর জাতীয় উন্নয়ন, সমৃদ্ধি ও অগ্রগতি কোনটাই অর্জন সম্ভব হবে না বলে মন্তব্য করেছেন বক্তারা।

শনিবার নগর ভবন চত্বরে “সবাই মিলে হাত মেলাই, নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিত চাই” শ্লোগানে জাতীয় নিরাপদ খাদ্য দিবস উদযাপন উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে বক্তারা এসব কথা বলেন। অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়র আ.জ.ম নাছির উদ্দীন।