ঘর সাজাতে ম্যাট আর ফুল

0
51

মানুষের সৌন্দর্য ফুটে ওঠে দর্পণে আর ঘরের সৌন্দর্য তার সাজের নিপুণতার ওপর। কতটুকু যত্ন আর ভালোবাসা নিয়ে আপনি আপনার ঘরটিকে সাজিয়েছেন তার ওপর নির্ভর করে এর বাহ্যিক চাকচিক্য।

একটি সময় ছিল যখন ঘরের সাজ বলতে কেবল ঘর দখল করে রাখা ভারী ভারী আসবাবপত্রকেই মানুষ বুঝত। যার ঘরে যত ধরনের আসবাবপত্র আছে তার ঘরটি অন্যদের থেকে সবচেয়ে আলাদা আর সুন্দর।

কিছুদিন পর এর সঙ্গে যুক্ত হয় অ্যান্টিকের আসবাবপত্র দিয়ে ঘর সাজানোর একটি প্রক্রিয়া। এর পরে আসে আরও নতুন অনেক ধরন।

তবে ঘরকে সাজিয়ে তোলার মাত্রা আছে ঠিক তার জায়গাতেই। শিল্পী যেমন কর্মে তার কাজকে ফুটিয়ে তোলে, তেমনি যিনি ঘরটিকে সাজান তার কাজের আর কল্পনা শক্তির মাধ্যমে তিনি জানেন এটি একটি বড় শিল্পীমনের কাজ।

তবে বর্তমান এই সময়ে ঘরের পরিসর আর সময় দুটিই আমাদের জীবন থেকে ধীরে ধীরে কমে যাচ্ছে। একটি সময় ঘর থাকত বিশাল বিশাল আর তাকে সাজাতেও থাকত নানা প্রস্তুতি।

বিশেষ করে নানা উৎসব আর পার্বণে। সামনেই ঈদ তাই ঘরের সাজের ক্ষেত্রেও শুরু হয়েছে প্রস্তুতি। তবে ঘর সাজাতে খুব বেশি কিছুর প্রয়োজন পড়ে না।

নান্দনিকতার ছোঁয়া আনতে একটু আলাদা ভাবে উপস্থাপন করাই অনেক। সেই ক্ষেত্রে ঘরের টুকিটাকি জিনিস যেমন ম্যাট আর ফুল আপনার ঘরের সৌন্দর্য প্রকাশে অনেকখানি সহায়তা করতে পারবে।

ঘরের সাজের ক্ষেত্রে সবার মাথায় থাকে সব কিছু ঝকঝকে আর তকতকে থাকতে হবে।

এজন্য ফ্লোর থেকে শুরু করে আসবাবপত্র সব কিছু মুছে রাখা হয়। তবে বাইরে থেকে যদি ধুলাবালির আগমন ঘটে তবে তো পুরো পরিশ্রমটাই ব্যর্থ।

তাই ঘরের সাজে আর এই উৎসবের ব্যস্ত সময়ে ম্যাট অনেক জরুরি একটি জিনিস। আপনি খুব সহজেই ঘরে ঢুকতে কিংবা বিছানার নিচে অ্যানিমেটেড ম্যাট বা একটি ফ্লোরাল ম্যাট বিছিয়ে রাখতে পারেন। প্রতিবার এতে পা মুছে গেলে ঘর এবং বিছানার চাদরসহ বাকি জিনিস ময়লা হবে না সহজে।

তবে ম্যাট কেনার আগে ঘরের মাপ আর জায়গা কতখানি আছে তা ভেবে নিন। খুব বড় ঘরে ছোট একটি ম্যাট ভালো লাগবে না। তাই ছোট ঘরে মাঝারি আর বড় ঘরে তুলনামূলক একটু বড় ম্যাট ব্যবহার করুন।

ম্যাটের মাঝে আছে নানা ধরন। কোনোটি জুটের, কোনোটি সিনথেটিকের, কোনোটি পাটের আবার কোনোটি কাপড়ের তৈরিও হয়ে থাকে। তবে ম্যাট সপ্তাহে অন্তত দুই থেকে তিনবার পরিষ্কার করুন আর উৎসবের আনন্দকে বাড়িয়ে তুলুন।
ফ্লোর ম্যাটের পাশাপাশি আছে ফুল। ফুল ভালোবাসে না এমন মানুষ নেই।

আর উৎসবের এই সময়ে ঘরকে ফুল দিয়ে সাজাতে ভালোবাসেন সবাই। আপনি ইচ্ছা করলে প্লাস্টিকের ফুল দিয়েও ঘরকে সাজিয়ে তুলতে পারেন আবার তাজা ফুল দিয়েও, তবে ফুলের সঙ্গে আপনি অবশ্যই লক্ষ্য রাখুন আপনার ফুলদানির ওপর।

কাঁচ, সিরামিক কিংবা মাটির যাই হোক সেই ফুলদানি যাতে দেখতে নান্দনিক হয়। ফুল আপনি রাখতে পারেন শোবার ঘরে, বসার ঘরে কিংবা পড়ার ঘরে। এই ফুল কেবল সৌন্দর্যই বাড়ায় না সঙ্গে সঙ্গে মনকে প্রাণবন্ত রাখে।

সেই ক্ষেত্রে একি রঙের ফুল ব্যবহার না করে আলাদা আলাদা ঘরে ভিন্ন ভিন্ন রঙের ফুল রাখুন। এটি যেমন দেখতে সুন্দর তেমনি আপনার রুচির পরিচয় বহনের বাহক।
কোথায় পাবেন

যমুনা ফিউচার পার্ক, ইস্টার্ন প্লাজা, নিউ মার্কেট, গাউছিয়া, মৌচাক, নর্থ টাওয়ার, রাজউক কমপ্লেক্স, ডিসিসি মার্কেট থেকে শুরু করে আপনার আশপাশের শপিং মলে পেয়ে যাবেন আপনার পছন্দের ম্যাট আর ফুল।

দাম

ম্যাটের দাম পড়বে প্রতি গজ ১৫০ থেকে ১৮০ টাকা। আর এছাড়া আলাদা কিছুটা কারুকাজ করা ম্যাট আপনি পাবেন ২০০০ থেকে শুরু করে ৮০০০ টাকা পর্যন্ত। ফুলের দাম পড়বে প্রতি স্টিক ১৫০ থেকে ২০০ টাকা। আর পুরো এক ফুলদানি ভর্তি ফুল নিতে পরবে ১০০০ থেকে ২৫০০ টাকা পর্যন্ত।