চট্টগ্রামের পাহাড়তলী বধ্যভূমিসহ দেশের সকল বধ্যভূমি সংরক্ষণ করা হোক

0
37

চট্টগ্রামের পাহাড়তলী বধ্যভূমিতে প্রদীপ প্রজ্বলন, গণসংগীত, আবৃত্তি ও আলোচনা সভার মধ্য দিয়ে শ্রেষ্ঠ সন্তানদের স্মরণ করেছে ছাত্র ইউনিয়ন, যুব ইউনিয়ন, উদীচী ও খেলাঘর। প্রগতিশীল গণসংগঠনগুলোর সম্মিলিত পরিবেশনা ‘আগুনের পরশমণি ছোঁয়াও প্রাণে’ গানের মধ্য দিয়ে সন্ধ্যায় বধ্যভূমির স্মৃতিসৌধজুড়ে জ্বলে ওঠে হাজারো প্রদীপ। এ সময় কর্মসূচিতে অংশ নেওয়া শিশু থেকে বিভিন্ন বয়সী নারীপুরুষ সবার হাতে ছিল জ্বলন্ত মোমবাতি। আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, পাহাড়তলী বধ্যভূমিতে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ ও দখলকৃত ভূমি পুনরুদ্ধার করে মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিচিহ্ন সংরক্ষণের দাবি জানানো হয়।

বক্তারা আরো বলেন, মুক্তিযুদ্ধের মূলনীতি ছিল গণতন্ত্র, সমাজতন্ত্র, ধর্মনিরপেক্ষতা, জাতীয়তাবাদ।  কিন্তু বর্তমান আওয়ামীলীগ সরকার মুক্তিযুদ্ধের চেতনার কথা বললেও তারা পূর্ববর্তী সরকারের দেখানো পথেই হাটছে। সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠীর সাথে সরকার আতাঁত করছে। মানুষের গণতান্ত্রিক, নাগরিক ও মানবিক  অধিকার হরণ করা হচ্ছে। গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠানগুলোকে ধ্বংস করা হয়েছে এবং মুক্তিবুদ্ধির চর্চার পথ রুদ্ধ করা হচ্ছে। তাই বুদ্ধিজীবীদের সম্মানে মুক্তিযুদ্ধের  চেতনায় অসাম্প্রদায়িক ও গণতান্ত্রিক  দেশ গঠনের আহবান জানানো হয়। উদীচীর সংগঠক ডাঃ চন্দন দাসের সভাপতিত্বে বক্তব্য দেন প্রকৌশলী রূপক চৌধুরী, উজ্জ্বল শিকদার, জয় সেন,   এ্যানি সেন, প্রমুখ।