চট্টগ্রাম ভেন্যু নিয়ে সন্তুষ্ট বাফুফে

0
1

য়েকটি ক্লাবের পেশাদার লিগ খেলতে ঢাকার বাইরে যাওয়ার আপত্তির মুখে চট্টগ্রাম এম এ আজিজ স্টেডিয়াম পরিদর্শন করেছে বাফুফে কর্মকর্তারা। বুধবার দুপুরে স্টেডিয়ামের মাঠ ও অবকাঠামো পরিদর্শন করে দেখেন বাফুফের সিনিয়র সহ সভাপতি আবদুস সালাম মুর্শেদী, সহসভাপতি বাদল রায়, সদস্য মারুফ হাসান ও শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাবের সভাপতি মনজুর কাদের।

পরিদর্শন শেষে বাফুফে কর্মকর্তারা সন্তোষ প্রকাশ করেন। তবে তারা মাঠের মাঝখান থেকে ক্রিকেট উইকেট সরিয়ে নেওয়ার দাবি জানান।

৯ এপ্রিল পেশাদার ফুটবল লিগ কমিটির সভায় ঢাকার বাইরে খেলতে যেতে আপত্তি জানায় শেখ জামাল ও মোহামেডানসহ কয়েকটি ক্লাব। সভায় এ নিয়ে চট্টগ্রাম আবাহনীর ম্যানেজার শাকিল মাহমুদ চৌধুরীর সঙ্গে উত্তপ্ত বাক্যবিনিময় হয়। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে সভা থেকে ওয়াক আউট করেন শাকিল মাহমুদ। তার দাবি, আমরা ঢাকার বাইরে থেকে এসে খেলতে পারলে ঢাকার দলগুলো বাইরে যেতে পারবে না কেন? ফুটবলের উন্নয়ন করতে হলে অবশ্যই বিকেন্দ্রীকরণ করতে হবে। কিন্তু এখন দেখছি বাইলজকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখানো হচ্ছে। আমার প্রশ্ন, তাহলে বাইলজের দরকারটা কি?

পেশাদার ফুটবল লীগের বাইলজ অনুযায়ী তিন পর্বে খেলা হবে। দুটি পর্ব হবে হোম অ্যান্ড অ্যাওয়ের ভিত্তিতে। আরেক পর্ব নিরপেক্ষ ভেন্যুতে। লীগের ১০টি দলের মধ্যে সাতটি দলের হোম ভেন্যু বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়াম। মুক্তিযোদ্ধার হোম ভেন্যু গোপালগঞ্জ, ফেনী সকারের ভাষা সৈনিক আবদুস সালাম স্টেডিয়াম এবং চট্টগ্রাম আবাহনীর হোম ভেন্যু এমএ আজিজ স্টেডিয়াম। লীগের প্রথম পর্ব বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে হলেও দ্বিতীয় পর্ব ঢাকার বাইরের দলগুলোর হোম ভেন্যুতে হওয়ার কথা। কিন্তু ৯ এপ্রিলের সভায় ঢাকার বাইরের ভেন্যুতে খেলতে যেতে আপত্তি জানায় কয়েকটি ক্লাব। ঢাকার বাইরের ভেন্যুগুলো নিয়ে আপত্তি থাকায় পেশাদার লিগ কমিটির সদস্য মনজুরুল কাদেরকে নিয়ে চট্টগ্রাম ভেন্যু পরিদর্শন করেন বাফুফে কর্মকর্তারা।