চাঁদা না দেয়ায় ছাত্রকে প্রাণ নাশের হুমকি

0
22

সেলিম উদ্দীন,কক্সবাজার। কক্সবাজার সদর উপজেলার ঈদগাঁও- চৌফলদন্ডীতে চাঁদা না দেয়ায় সদ্য এসএসসি’র ফল প্রাপ্ত এক স্কুল ছাত্রকে প্রাণ নাশের হুমকি ও ইয়াবা দিয়ে ফাসানোর চেষ্টা চালাচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে দুই ভাইয়ের বিরুদ্ধে। জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে পুলিশ ও সাংবাদিকদের দারস্ত হলেন মা কামরুন নাহার। দাবীকৃত চাঁদা না দিলে পনের দিনের মধ্যে ছেলেকে বড় ধরনের ক্ষতি সাধন করবে বলে সৌদি আরব থেকে মুঠোফোনে হুমকি দেন বলে জানান মা। অভিযোগে জানা যায়, চৌফলদন্ডী ইউনিয়নের চারা বটগাছ তলা খোনকারখীল এলাকার হাফেজ আহমদের ছেলে পারভেজ মোশাররফ নামের এক শিক্ষার্থী এলাকায় বাবার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান মুক্তা স্টোরে পরীক্ষার পর থেকে সময় দিয়ে আসছিল। ইত্যবসরে একই এলাকার মৃত মমতাজ আহমদের ছেলে আইয়ুব আলম নামের এক যুবক ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে গিয়ে চাঁদা দাবী করে। চাঁদা দিতে অস্বীকৃত জানালে ইয়াবা দিয়ে ফাসানোর হুমকি প্রদর্শন করে চলে যায়।প্রতিদিন মাদক সেবন করে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে গিয়ে চাঁদা দাবী করে বসে। তার এহেন কর্মকান্ডে অতিষ্ঠ হয়ে স্থানীয় সমাজপতিদের বিচার দিলে আরো ক্ষিপ্ত হয়ে দোকান চুরির হুমকি দেয় আইয়ুব। তাতেও ব্যর্থ হয়ে গত ২০ মে গভীর রাতে তার বসত ঘরে ইয়াবা রয়েছে মর্মে ভুয়া সংবাদ দিয়ে চৌফলদন্ডী আরএফএফ পুলিশ ফাঁড়ির একদল ফোর্স বসত ঘরে প্রবেশ করিয়ে দেয়। পুরো বসত ঘর তল্লাশি চালিয়ে মাদক জাতীয় কোন আলামত না পেয়ে পারভেজ মোশাররফকে তুলে নিয়ে যায় আরএফএফ পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ হেলাল মিয়া। এসব অভিযোগ করে স্থানীয় সংবাদকর্মীদের সামনে অশ্রুসিক্ত হয়ে পড়েন মা কামরুন নাহার। গর্ভধারণী মা কামরুন নাহার আরো জানায়, তার ভাই আইয়ুবের নামে কোথাও অভিযোগ কিংবা কাউকে জানালে পনের দিনের মধ্যে সৌদি আরব থেকে এসে ছেলে পারভেজ মোশাররফ কে খুন করবে মর্মে তার মায়ের মোবাইলে কল করে হুমকি দেন।এ হুমকি পেয়ে বর্তমানে সন্তান নিয়ে চরম আতংকে দিনাতিপাত করছে তার পরিবার। ছেলে এবং পরিবারের নিরাপত্তা চেয়ে ২৩ মে রাতেই ঈদগাঁও পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন মা। অভিযোগটি আমলে নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার জন্য এসআই কাজী আবুল বাসারকে দায়িত্ব দিয়েছে। জানতে চাইলে ইনচার্জ পরিদর্শক (তদন্ত) মোঃ আসাদুজ্জামান বলেন, লিখিত একটি অভিযোগ পেয়েছি তদন্ত পুর্বক ব্যবস্থা নেয়ার জন্য একজন অফিসারকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।