ছুটিতে ঘুরে আসুন কক্সবাজার সী পার্ল ওয়াটার পার্কে

0
152

সৈকতের বালুতে ইংরেজিতে লেখা ১৯৩। দুই হাতে লাল-সবুজ প্ল্যাকার্ড ধরে বঙ্গোপসাগরের দিকে মুখ করে দাঁড়ানো একজন মেয়ে। প্ল্যাকার্ডের মাঝখানে ছাপার হরফে ইংরেজিতে লেখা ‘কান্ট্রি # ১৯৩’। তখন গোধূলিবেলা। হোয়াটসঅ্যাপে কক্সবাজার থেকে ছবিটি এসেছিল ২ জানুয়ারি সন্ধ্যায়। এর আগেই জানি ১৯৩ সংখ্যার মাহাত্ম্য।

সেই ছবির নারীর নাম মেলিসা সুমিত্রা রায়। মার্কিন নাগরিক পর্যটকের বয়স মাত্র ৩৪ বছর। এই বয়সেই মেলিসা ঘুরে ফেলেছেন ১৯৩টি দেশ। জাতিসংঘের সদস্যরাষ্ট্রের সংখ্যাও ১৯৩। পর্যবেক্ষক আরও দুটি দেশেও ঘোরা আছে তাঁর।
মোদ্দা কথা, সব বয়সের মানুষ, বাচ্চা থেকে তরুণ বা যুবক, ছেলে বা মেয়ে, পরিবারের সবাই মিলে আনন্দ উপভোগ করা যাবে এ পার্কে। আর এ অনাবিল আনন্দের সময়টুকুও পাওয়া যাবে সাধ্যের মধ্যেই। সী পার্ল ওয়াটার পার্কে প্রবেশের মূল্য এবং সব রাইডের দাম মিলিয়ে পড়বে জনপ্রতি মাত্র ৫৫০ টাকা।
সী পার্ল ওয়াটার পার্কের মার্কেটিং ব্যবস্থাপক আসাদুর রহমান বলেন, ‘সী পার্ল চেষ্টা করছে কক্সবাজারের পর্যটকদের বিনোদিত করতে। শহুরে জীবনের একঘেয়েমি থেকে মুক্তি পেতে বা পরিবার নিয়ে দুশ্চিন্তামুক্ত ও নিরাপদ, নির্মল আনন্দ পেতে যাঁরা কক্সবাজার ঘুরতে আসেন, তাঁরা যেন রয়্যাল টিউলিপ সী পার্ল বীচ রিসোর্ট অ্যান্ড স্পা-এর ওপরই ভরসা রাখতে পারেন। আর সেই উদ্দেশ্যেই সী পার্ল ওয়াটার পার্ক একটি নতুন সংযোজন। আমরা কক্সবাজারের পর্যটকদের আমন্ত্রণ জানাই তাঁরা যেন সী পার্ল ওয়াটার পার্কে এসে ঘুরে যান।’

তাহলে, আসছে ছুটিতে ঘুরতে বেরিয়ে পড়ুন। সারা বছরের যত ক্লান্তি, হতাশা, একঘেয়েমি বা না পাওয়া—সবকিছুই রেখে আসুন বন, পাহাড় বা সাগরের কাছে। নতুন উদ্যমে আনন্দ নিয়ে শুরু হোক সবার নতুন বৎসর।