দুবার গিনেস বুকে মাগুরার ফয়সাল

0
48

জোহান ও কনকের গল্প তো জানোই। প্রথমজন গিনেসে নাম লিখিয়েছিল ফ্রিস্টাইল ফুটবলে, দ্বিতীয়জন ফুটবল ব্যালান্সিংয়ে। এবার পাওয়া গেল বল নিয়ে বাজিমাত করা আরেকজনকে। তবে একটি নয়, ফুটবল ও বাস্কেটবলের আর্মরোলিং খেলায় দুটি রেকর্ডের মালিক হয়েছে মাগুরার মাহমুদুল হাসান ফয়সাল। জানাচ্ছেন জুবায়ের আহম্মেদ

বয়স ১৭ বছর। টিনএজ বেলা ফুরোল বলে। তবে সেটা নিয়ে আর আফসোস থাকবে না মাগুরা পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের ছাত্র ফয়সালের। কারণ এ বয়সেই তো ফুটবল ও বাস্কেটবলে দুটি রেকর্ডের মালিক বনে গেছে ও।

হাত বা পা দিয়ে ফুটবল বা বাস্কেটবল ঘোরানোই হলো আর্মরোলিং। ফয়সালের প্রথম রেকর্ডটির নাম ‘মোস্ট ফুটবল আর্মরোলস ইন ওয়ান মিনিট’ এবং দ্বিতীয়টি ‘মোস্ট বাস্কেটবল আর্মরোলস ইন ওয়ান মিনিট’।

ঝোঁক ছিল ক্রিকেটে। অবসরে ব্যাটবল হাতে বন্ধুদের সঙ্গে ক্রিকেট খেলত ঢের। ক্রিকেট নিয়ে বেশিদূর যাওয়া হয়নি। তবে বল তার মাথার পিছু ছাড়ল না। ‘ইচ্ছা ছিল, বল নিয়ে কিছু একটা করব। শুরু করি ফুটবল ফ্রিস্টাইল। এর আগে এ নিয়ে তেমন আগ্রহ ছিল না। ধীরে ধীরে ধারণা নিয়ে প্র্যাকটিস শুরু করি।’ জানাল ফয়সাল।

অনুশীলন শুরুর কিছুদিন পর রেকর্ড গড়ার প্রস্তুতি নিতে থাকে ফয়সাল। প্রথমবার হলো না। অনেক মন খারাপ হয়েছিল। ‘আমার মন খারাপ দেখে নানা ও নানু অনুপ্রেরণা দিতে থাকেন। মাথায় আসে, ফুটবল আর্মরোলেই রেকর্ড করব।’ বলল ফয়সাল।

তারপর শুরু কঠোর অনুশীলন। ৩-৪ মাস প্রায় ১৪-১৫ ঘণ্টাও অনুশীলন করেছে সে। এক বছরের মাথায় ২০১৮ সালের ১১ আগস্ট রেকর্ড গড়ে ও। ভিডিওটা পাঠানোর পর গিনেসের স্বীকৃতি আসে ওই বছরেরই ৭ নভেম্বর।

এক মিনিটে ১৩৪ বার ফুটবল আর্মরোলিং করেছে ফয়সাল। এর আগে একই সময়ে ১২৭ বার ফুটবল ঘুরিয়ে রেকর্ডটির মালিক ছিলেন রাশিয়ার ডেভিড।

এরপর বাস্কেটবল নিয়ে শুরু। এতেও আর্মরোলিংয়ের রেকর্ড গড়া যায়। অনুশীলন চলল দেদার। কাঙ্ক্ষিত রেকর্ড গড়ে এ বছরের ৬ জানুয়ারি। সেটির ভিডিও পাঠানোর পর গিনেস কর্তৃপক্ষের স্বীকৃতি পায় ৫ এপ্রিল। প্রথমটার কারণে দ্বিতীয় রেকর্ডটা করতে বেশি পরিশ্রম করতে হয়নি ফয়সালকে। ইংল্যান্ডের মিস্টার টম নামের একজন এর আগে এক মিনিটে ১২১ বার বাস্কেটবল ঘুরিয়ে রেকর্ড গড়েছিলেন। সেটাই ফয়সাল ভেঙেছে একই সময়ে দুই হাতের মধ্যে ১৪৪ বার বাস্কেটবল ঘুরিয়ে।

ভবিষ্যতে এমন আরো রেকর্ড গড়ার জন্য অনুশীলন চালিয়ে যাচ্ছে ফয়সাল। জানাল, ‘নিজেকে প্রস্তুত করে ইন্টারন্যাশনাল ফুটবল ফ্রিস্টাইল টুর্নামেন্টে অংশগ্রহণ করার ইচ্ছা আছে। বাংলাদেশের লাল-সবুজের পতাকা নিয়ে দাঁড়াতে চাই ফ্রিস্টাইলের বিশ্বমঞ্চে।’