দ্রুত গতিতে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে কাঁটাতারের বেড়া নির্মাণ চলছে

0
32
কায়সার হামিদ মানিক,উখিয়া।
কক্সবাজারের উখিয়া ও টেকনাফে রোহিঙ্গা ক্যাম্পের চারপাশে কাঁটাতারের বেড়া নির্মাণের কাজ দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলছে। প্রকল্পের তত্ত্বাবধান করছে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী। নিরাপত্তার এমন উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছেন স্থানীয় জনগণ ও রোহিঙ্গারাও। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী বলছে, এর মধ্য দিয়ে মানবপাচার, খুন, অপহরণ ও মাদক ব্যবসার মতো অপরাধ কমবে। সেই সাথে রোহিঙ্গাদের ছড়িয়ে পড়াও রোধ করা সম্ভব হবে।
মিয়ানমারে নিরাপত্তাবাহিনীর নিপীড়নের মুখে ২০১৭ সালের ২৫ আগস্টের পর বাংলাদেশে আশ্রয় নেয় প্রায় সাড়ে সাত লাখ রোহিঙ্গা। এর আগে থেকে অবস্থান করছিল আরও চার লাখ রোহিঙ্গা। সবমিলিয়ে কক্সবাজারের উখিয়া ও টেকনাফে ১০ হাজার একর পাহাড়ি জায়গায় ৩২টি ক্যাম্পে এখন আশ্রিত রোহিঙ্গার সংখ্যা ১১ লাখেরও বেশি। এদের মধ্যে অনেকেই মানবপাচার, খুন, অপহরণ ও মাদক ব্যবসার মতো অপরাধে জড়িয়েছে।
এ অবস্থায় রোহিঙ্গা ক্যাম্প নিয়ন্ত্রণে আনতে কাটাতাঁরের বেড়া নিমার্ণের উদ্যোগ নেয় সরকার। ক্যাম্পের চারপাশে কাঁটাতারের বেড়া তৈরীর কাজ করছে সেনাবাহিনী। এব্যাপারে রোহিঙ্গাদের প্রতিক্রিয়াও ইতিবাচক। তারা বলছেন, বেড়া নির্মাণ হলে নিরাপদ হবে ক্যাম্প।
তবে দীর্ঘদিনের দাবির প্রেক্ষিতে কাঁটাতারের বেড়া নির্মাণ করা হলেও এর পাশাপাশি নিরাপত্তা চৌকি স্থাপনের দাবি জানালেন স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা।
চলতি বছরের মাঝামাঝি সময়ে শেষ হবে কাঁটাতারের বেড়া স্থাপনের কাজ। এর ফলে অপরাধ অনেক নিয়ন্ত্রণে আসবে বলে জানালেন স্থানীয় পুলিশ কর্মকর্তারা।
রোহিঙ্গাদের সন্ত্রাসী কর্মকান্ড ও মাদক ব্যবসা রোধে এই উদ্যোগ বড় ভূমিকা রাখবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী মো: এনামুর রহমান।
গত দু’বছরে খুন, অপহরণ, ধর্ষণ, চুরি ও ডাকাতিসহ প্রায় চার শতাধিক মামলা হয়েছে রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে। যাতে আসামীর সংখ্যা এক হাজারেরও বেশি।