নতুন শিক্ষা বর্ষ- আর্থিক বছর ১লা বৈশাখে শুরু হোক

0
13

Screenshot_21

পয়লা বৈশাখ বা পহেলা বৈশাখ (বাংলা পঞ্জিকার প্রথম মাস বৈশাখের ১ তারিখ) বাংলা সনের প্রথম দিন, তথা বাংলা নববর্ষ। দিনটি বাংলাদেশ এবং ভারতের পশ্চিমবঙ্গে নববর্ষ হিসেবে বিশেষ উৎসবের সাথে পালিত হয়। ত্রিপুরায় বসবাসরত বাঙালিরাও এই উৎসবে অংশ নেয়। সে হিসেবে এটি বাঙালিদের একটি সর্বজনীন উৎসব। বিশ্বের সকল প্রান্তের সকল বাঙালি এ দিনে নতুন বছরকে বরণ করে নেয়, ভুলে যাবার চেষ্টা করে অতীত বছরের সকল দুঃখ-গ্লানি। সবার কামনা থাকে যেন নতুন বছরটি সমৃদ্ধ ও সুখময় হয়। বিভিন্ন পর্যায়ের ব্যবসায়ীরা একে নতুনভাবে ব্যবসা শুরু করার উপলক্ষ্য হিসেবে বরণ করে নেয়। গ্রেগরীয় বর্ষপঞ্জি অনুসারে ১৪ই এপ্রিল অথবা ১৫ই এপ্রিল পহেলা বৈশাখ পালিত হয়। আধুনিক বা প্রাচীন যে কোন পঞ্জিকাতেই এই বিষয়ে মিল রয়েছে। বাংলাদেশে প্রতি বছর ১৪ই এপ্রিল এই উৎসব পালিত হয়। বাংলা একাডেমী কর্তৃক নির্ধারিত আধুনিক পঞ্জিকা অনুসারে এই দিন নির্দিষ্ট করা হয়েছে। এদিন বাংলাদেশ ও পশ্চিমবঙ্গের সকল সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকে।

বাংলা দিনপঞ্জীর সঙ্গে হিজরী ও খ্রিস্টীয় সনের মৌলিক পার্থক্য হলো হিজরী সন চাঁদের হিসাবে এবং খ্রিস্টীয় সন ঘড়ির হিসাবে চলে। এ কারণে হিজরী সনে নতুন তারিখ শুরু হয় সন্ধ্যায় নতুন চাঁদের আগমনে। ইংরেজি দিন শুর হয় মধ্যরাতে। আর বাংলা সনের দিন শুরু হয় ভোরে, সূর্যোদয়ের সঙ্গে সঙ্গে। কাজেই সূর্যোদয়ের সঙ্গে সঙ্গে শুর হয় বাঙালির পহেলা বৈশাখের উৎসব।

বৈশাখের উৎসব করে থেমে গেলে চরলবে না। সাথে দরকার দেশজ সংস্কৃতি সারা বছর চর্চা করা, নতুন বছর গননার সাথে সাথে নতুন শিক্ষা বর্ষ- আর্থিক বছর গনণা ও এর কর্যক্রম শুরু করা এমন সব কথা উঠে আসে বক্তাদের বক্তব্যে।
মির্জা ইমতিয়াজ শাওন
হাটহাজারীর ভ্রমন পিপাসুদের সংগঠন অভিযাত্রী বর্ষবরণ উপলক্ষে এক আলোচনা সভার আয়োজন করেন। সংগঠনের প্রতিষ্টাতা ইতিহাসবিদ মরহুম আবুল হাশেম মাস্টারের ফতেপুরস্থ বাড়ীতে তার প্রবর্তিত বৈশাখী উৎসবে আয়োজিত আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব হাটহাজারী প্রেসক্লাব সভাপতি কেশব কুমার বড়ুয়া। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন হাটহাজারী উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ মোঃ ইসমাইল। প্রধান বক্তা ছিলেন ১১ নং ফতেপুর ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব জাকির হোসেন। বিশেষ অতিথি ছিলেন মির্জা ইমতিয়াজ শাওন, ইকবাল বাহার চৌধুরী,হাটহাজারী বৌদ্ধ কল্যাণ পরিষদের সাধারণ সম্পাদক অনুপম বড়–য়া, লোকমান হোসেন, সলিম হায়দার মাস্টার, মুকুল চন্দ্র বৈদ্য, ব্যাংকার জসিম উদ্দিন, সোলায়মান সওদাগর, শাহাআলম,কামাল উদ্দিন। দেলোয়ার হোসেন এর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভার শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তোলোয়াত করেন আবদুর হালিম। সভায় অন্যাণ্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন রেদোয়ানুল হক, মোঃ মহিউদ্দিন, আবদুল মাবুদ, হারুনুর রশিদ হিরু। সভার শুরুতে সংগঠনের সদস্য বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ রশিদ আহম্মদ মাস্টারের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করা হয়।