নাসউবি’র সুবর্ণজয়ন্তী পুনর্মিলনীর প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত

0
2

সর্বোচ্চ সংখ্যক ছাত্রের উপস্থিতি নিশ্চিত করে সুবর্ণজয়ন্তীর সার্বজনীন আয়োজনের উদ্যোগ

সর্বোচ্চ সংখ্যক ছাত্রের উপস্থিতি নিশ্চিত করে সুবর্ণ জয়ন্তীর সার্বজনীন আয়োজন করতে চায় নাসিরাবাদ সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রাক্তন ও বর্তমান শিক্ষার্থীরা। সিনিয়রদের পাশাপাশি জুনিয়রদের যথাযথ সম্মান জানিয়ে দল মত নির্বিশেষে সকলকে নিয়েই গতানুগতিক সুবর্ণজয়ন্তীর বাইরে গিয়ে ইতিহাসের অংশ হয়ে যাওয়ার জন্যই আয়োজনটি করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন তারা।
২২ ডিসেম্বর সন্ধ্যায় বিদ্যালয় মিলনায়তনে নবীন-প্রবীনের মিলন মেলায় বক্তারা বলেন, সুদীর্ঘ পঞ্চাশ বছর সময় নাসিরাবাদ স্কুল জাতিকে বিভিন্ন ক্ষেত্রে অনেক কৃতি সন্তান উপহার দিতে সক্ষম হয়েছে, যারা আজ দেশেরই সম্পদ। সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে নবীনে-প্রবীণে মিলন ঘটবে। সকলেই রোমাঞ্চিত হবে অতীতের স্মৃতিচারণে। ২০১৭ সালের মধ্যেই একটি সার্বঙ্গীন সাফল্যমণ্ডিত সুবর্ণজয়ন্তীর আয়োজনে উপস্থিত সকলে ঐক্যমত পোষণ করেন।
বিদ্যালয়ের প্রথম ব্যাচের ছাত্র মো. মফিজুর রহমানের সভাপতিত্বে সুবর্ণজয়ন্তী ও পুনর্মিলনী আয়োজনের প্রস্তুতি সভায় স্কুলের কৃতি শিক্ষার্থী লেখক-সাংবাদিক শওকত বাঙালি সূচনা বক্তব্যে দেশসেরা স্কুলের প্রাক্তন ছাত্র হিসেবে গর্ব করে বলেন, সবার সহযোগে আয়োজনটি করা গেলে আমাদের সর্বাত্মক সহযোগিতা থাকবে। কেউ যেন ব্যক্তি স্বার্থ এবং ব্যবসায়িক মনোবৃত্তি নিয়ে বিদ্যালয়ের সুনাম ক্ষুণœ করার সাহস না পায় সেদিকে সচেষ্ট থাকতে হবে। সবাই মান অভিমান, দুরত্ব ভুলে গিয়ে সর্বাঙ্গীন সুন্দর অনুষ্ঠান আয়োজনে তিনি সবার সহযোগিতা কামনা করেন।
প্রাক্তন ছাত্র মো. তোফাজ্জল হোসেনের সঞ্চালনায় শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন স্কুলের প্রাক্তন ছাত্র ও কৃতি ফুটবলার স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. মোরশেদ আলম। বিদ্যালয়ের প্রথম ব্যাচ থেকে সর্বশেষ ব্যাচ পর্যন্ত পর্যায়ক্রমে বক্তব্য রাখেন প্রাক্তন ছাত্র নাজমুল আলম চৌধুরী, কবির আহামেদ, শফিকুল ইসলাম, মো. মহিউদ্দিন, এবি জিয়া উদ্দিন হোসেন, শিহাব উদ্দিন আহম্মেদ, রায়হান আহামদ ফেরজুল, মো. মনির হোসেন জাহাঙ্গীর, শহীদউল্লাহ প্রিন্স, শামস মো. জিয়াউল হক, সানোয়ার হোসেন, ইরশাদ রায়হান, মো. সাইফুল ইসলাম, মো. খলিল উল্লাহ, এস.এম মিরাজ, মো. নাছির উদ্দিন রুপু, মো. হেফাজুতুর রহমান, মইনুল হোসেন চৌধুরী শিমুল, মিনহাজুর রহমান নাছিম, রায়হান মাহমুদ শুভ, নাজমুর ছাফা রিমন, শহিদুল্লাহ মিঠু, আহাম্মদ সাইম নকীব, মো. আরাফাত হোসেন, ফারুক আহমদ ভূইয়া সোহাগ, ওমর ফারুক আসিফ, জাহেদুল হক, মো. জাহেদ হাসান, নাহিদুল ইসলাম সুপ্ত, আবু দাউদ রবিন প্রমুখ।
অনুষ্ঠানের অতিথি স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. মোরশেদ আলম বলেন, সুবর্ণজয়ন্তী নিয়ে কোন ধরনের কোন্দল পুরো আয়োজনকে ব্যাহত করবে। দেশ সেরা স্কুলের সুবর্ণজয়ন্তীর আয়োজনটিও দেশ সেরা হওয়া চাই। তাই প্রাক্তন এবং বর্তমান ছাত্রদের মেলবন্ধন তৈরি করে সর্বস্তরে গ্রহণযোগ্য ব্যক্তিদের নিয়ে আগামীতে সুবর্ণজয়ন্তী উদ্যাপন পরিষদ ও প্রাক্তন ছাত্র সমিতি গঠন করা হবে।
তিনি আরো বলেন, যোগ্যদের পথ ছেড়ে দিতে হবে। ক্ষমতা আঁকড়ে থাকার মনেবৃত্তি পরিত্যাগ করতে হবে। নেতৃত্বে থাকা মানুষদের মন বড় করতে হবে। তবেই একটি সুন্দর আয়োজন সম্ভব হবে।