নৃশংস খুনের দেড় বছর পর গ্রেফতার

0
118

স্ত্রীর সঙ্গে ঝগড়ার জেরে তাকে নৃশংসভাবে খুন করে প্রায় ১৬ মাস পালিয়ে থাকার পর স্বামী জয়নাল আবেদীনকে (৩২) গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

রোববার (২৩ ফেব্রুয়ারি) সকালে কুমিল্লার কান্দিরপাড়ের একটি চায়ের দোকান থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয় বলে জানান চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের (সিএমপি) সহকারী কমিশনার (চকবাজার জোন) মুহাম্মদ রাইসুল ইসলাম।

গ্রেফতার জয়নাল আবেদীন কুমিল্লা জেলার মুরাদনগর উপজেলার আরপাকনা গ্রামের রুহুল আমিনের ছেলে।

রোববার বিকেলে তাকে আদালতে হাজির করা হত্যার দায় স্বীকার করে মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আবু সালেম মোহাম্মদ নোমানের আদালতে জবানবন্দি দেন বলে জানান বাংলানিউজকে জানান সিএমপির সহকারী কমিশনার (প্রসিকিউশন) কাজী শাহাবুদ্দীন আহমেদ।

বাকলিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. নেজাম উদ্দিন বলেন, হত্যাকাণ্ডের পর বাকলিয়া থেকে পালিয়ে জয়নাল কুমিল্লায় গিয়ে আত্মগোপন করেছিল। রোববার সকালে তাকে সেখান থেকে গ্রেফতার করা হয়।

ওসি মো. নেজাম উদ্দিন জানান, ২০১৮ সালের ১ নভেম্বর জয়নালের বাসার বাথরুম থেকে তার স্ত্রী গার্মেন্টসকর্মী রোকসানা বেগমের গলাকাটা মরদেহ এবং একটি রক্তমাখা ছোরা উদ্ধার করে পুলিশ। হত্যাকাণ্ডের পর থেকে পলাতক ছিলেন জয়নাল। এ ঘটনায় রোকসানার ভগ্নিপতি মো. জলিল বাদি হয়ে জয়নালের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়ের করেন। ঘটনার পর রোকসানার সন্তানরা থানায় এসে মায়ের হত্যার বিচার চেয়েছিল। আমরা জয়নালকে অনেক খুঁজেছিলাম। তিনি কুমিল্লায় গিয়ে আত্মগোপন করেছিলেন।

ওসি নেজাম জানান, জয়নাল ফুটপাতে ফল বিক্রি করতেন। সংসারে প্রায়ই ঝগড়া হতো। ২০১৮ সালের ৩১ অক্টোবর রাতে তাদের ঝগড়া হয়। পাশের বাসায় থাকা রোকসানার বোন ও ভগ্নিপতি এসে ঝগড়া থামান এবং দুজনের মধ্যে সমঝোতা করে দেন। তবে জয়নাল মনের মধ্যে ক্ষোভ পুষে রাখে। ভোরে সন্তানেরা যখন ঘুমিয়ে ছিল তখন জয়নাল রেকাসানাকে গলা কেটে খুন করে পালিয়ে যায়।স্ত্রীকে হত্যা করে আত্মগোপন, ১৬ মাস পর গ্রেফতার