নেছারিয়া আলিয়া মাদ্রাসা এর প্রতিষ্ঠাতা উদ্যোক্তার কবর উৎচ্ছেদের প্রতিবাদ

0
27

পাহাড়তলী চট্টগ্রাম নেছারিয়া আলিয়া কামিল মাদ্রাসা এর প্রতিষ্ঠাতা আমার প্রিয় বাবা মরহুম আলহাজ্ব মোঃ এম.এ. ছালাম সাহেব এর কবর মোবারক, ১৯৭৩ সালে মহান প্রিয় মালিক আল্লাহ্ এবং প্রিয় নূর নবীজীর কুরআন, হাদীছ শরীফ এর এই রহমত বরকতময় নেকআমল এর সূন্নীয়তের খাটি দ্বীনি কারখানাটি প্রতিষ্ঠিত হয়, এখানে উল্লেখ্য তৎসময়টিতে প্রয়্যাত মরহুম আলহাজ্ব এম.এ. ছালাম সাহেব মাদ্রাসাটির প্রতিষ্ঠাতা উদ্যোক্তা হিসাবে উদ্যোগী ভূমিকা না রাখলে পাহাড়তলীর ঐ আপার রহমত বরকতময় জায়গাটিতে নেক আমল এর মাদ্রাসাটি প্রতিষ্ঠিত হতনা, আমার মরহুম পিতা অছিলা হিসাবে মহান প্রিয় মালিক আল্লাহ্ এর পক্ষ থেকে ছিলেন, আমার প্রয়্যাত মরহুম বাবার পির সাহেব তৎসময়ের এই উপমহাদেশ এর পির প্রখ্যাত আমলীয় আমেলেদ্বীন কুতুবুল আফতাব মহান প্রিয় আল্লাহ্ এর অলি মুফতি ফকিহ মরহুম আলহাজ্ব মাওলানা হযরত মোঃ আবু জাফর ছালেহ্ (রঃ) সাহেব হুজুর কেবলা (প্রিয় দরবার শরীফ ছারছীনা) এর নির্দেশে চট্টগ্রাম এর পবিত্র বারআউলিয়ার পূণ্য ভূমিতে এই নেছারিয়া আলিয়া কামিল মাদ্রাসাটি আমার মরহুম পিতা প্রখ্যাত ফকিহ, মুফতি আমলিয় আলেমে দ্বীন মরহুম হযরত আলহাজ্ব মাওলানা মোঃ মোজাফ্ফার সাহেব হুজুর কে সাথে নিয়ে পীর ভাই মরহুম হাজী মোঃ সৈয়দ সাহেব, পীর ভাই মরহুম হাজী মোঃ আমানত উল্লাহ চেয়ারম্যান সাহেব কে সঙ্গে করে এই দ্বীনি নেক আমলের প্রতিষ্ঠান মাদ্রাসাটি প্রতিষ্ঠা করেন। আমার মরহুম পিতা ছিলেন দাতা, পরিতাপের বিষয়, যিনার অছিলাতে/যিনার অপার অনবধ্য অবদানে শ্রমে এই আমলের প্রিয় মাদ্রাসাটি প্রতিষ্ঠিত হয়। যিনার আমলিয় অনুদান এর কল্যাণে গোটা পাহাড়তলি এলাকাটি আমলীয় আলোর মুখ দেখেন/গোটা এলাকা খাটি সুন্নীয়ত এর নেক আমলীয় আলোয় আবাদ হয়, আজ সংস্কার এর অজুহাত তুলে দাতা/প্রতিষ্ঠাতা আমার প্রিয় বাবার সনাক্তকৃত নির্ধারিত কবরস্থান এর কবর মোবারক থেকে আমার আমলীয় মরহুম বাবা কে অপসারণ করিতে ব্যতিব্যস্ত বর্তমান মাদ্রাসা কমিটি। তারা সংস্কার এর অজুহাত তুলে আমার প্রিয় বাবার কবর স্থানান্তর করতে প্রচেষ্ঠা করছে। বর্তমান মাদ্রাসা কমিটি এবং মাদ্রাসা প্রশাসনের কেউ কেউ বলেছেন প্রতিষ্ঠাতা উদ্যোগতা আমারপিতার কবরটি ভেঙ্গে ফেলবে এবং কবরটি নির্ধারিত কবরস্থানের ঐ জায়গা থেকে উৎচ্ছেদ করার জন। উল্লেখ্য যে, বর্তমান মাদ্রাসা কমিটির অনুগত কিছু লোক মাননীয় মেয়র মহোদয় এবং মাননীয় শিক্ষা উপমন্ত্রী মহোদয়ের বিরুদ্ধে বিষুদগার করতে দিধ্বা বোধ করেন না। তাদের এহেন কর্মকাণ্ড দেখে প্রতীয়মান হয় বেপর্দা, বেআমল, অভিভোগ, শোষন, পূজিতে ব্যতিব্যস্ত। তারা কাউকেউ মানছে না। তাদের অযত্ন অবহেলা মাদ্রাসা কমিটি এবং প্রশাসন প্রতিষ্ঠাতা উদ্যোক্তার কবরকে অশ্রদ্ধা পোষণ করছেন। কর্তৃপক্ষের অবহেলার কারণে কবরের চারপাশে নালার পানি পয়নিষ্কাশন সুপরিসর নালা থাকার সত্বেও মাদ্রাসার নালাটি তারা অপরিচ্ছন্ন করে বন্ধ করে রেখেছেন। যার ফলে প্রতিষ্ঠাতা উদ্যোক্তার কবরটি নালার পানিতে।