পণ্যবাহী নৌযান চলাচল বন্ধ

0
11

দেশব্যাপী নৌযান শ্রমিকদের কর্মবিরতির কারণে চট্টগ্রামেও পণ্যবাহী নৌযান চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে। অলস বসে আছে ২ শতাধিক লাইটারেজ জাহাজ। গভীর সাগরে চট্টগ্রাম বন্দরের বহির্নোঙরে অপেক্ষমাণ বড় জাহাজ থেকে খাদ্যপণ্য ও শিল্পের কাঁচামাল খালাস করে এসব লাইটার জাহাজ নদীপথে বিভিন্ন শিল্পকারখানার ঘাটে পৌঁছে দিয়ে থাকে।

কর্মবিরতির কারণে সৃষ্ট অচলাবস্থা দীর্ঘস্থায়ী হলে আসন্ন রমজানের অত্যাবশ্যকীয় ভোগ্যপণ্য ছোলা, চিনি, ডাল, গমের সরবরাহ চক্রে বিঘ্ন ঘটার আশঙ্কা ব্যবসায়ীদের।

বাংলাদেশ লাইটারেজ শ্রমিক ইউনিয়নের চট্টগ্রাম শাখার সহ-সভাপতি নবী আলম বাংলানিউজকে বলেন, ১১ দফা দাবিতে সব ধরনের পণ্য ও যাত্রীবাহী নৌযানে অনির্দিষ্টকালের কর্মবিরতি পালন করছেন শ্রমিকরা।

দাবিগুলোর মধ্যে রয়েছে-নৌপথে সন্ত্রাস, চাঁদাবাজি ও ডাকাতি বন্ধ, ২০১৬ সালের ঘোষিত বেতন স্কেলের পূর্ণ বাস্তবায়ন, ভারতগামী শ্রমিকদের ল্যান্ডিং পাস দেওয়া ও হয়রানি বন্ধ, নদীর নাব্যতা রক্ষা, নদীতে প্রয়োজনীয় মার্কা, বয়া ও বাতি স্থাপন।

আকস্মিক কর্মবিরতিতে শঙ্কা জানিয়ে লাইটার জাহাজ কন্ট্রাক্টর অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি শফিক আহমদ বলেন, রাত ১২টার পর শুনেছি নৌযান শ্রমিকরা কর্মবিরতিতে যাচ্ছেন। এর ফলে চট্টগ্রামে ২ শতাধিক লাইটারেজ জাহাজ অলস বসে আছে। রমজান মাসের আগে এ ধরনের ধর্মঘট আহ্বান দুঃখজনক। আশাকরি আলোচনার মাধ্যমে যত দ্রুত সম্ভব সমস্যার সমাধানের উদ্যোগ নেওয়া হবে।

চট্টগ্রাম বন্দরের একজন কর্মকর্তা জানান, বহির্নোঙরে লাইটার শ্রমিকদের কর্মবিরতির কিছুটা প্রভাব পড়লেও বন্দরের মূল জেটিগুলোতে পুরোদমে পণ্য ও কনটেইনার খালাস কার্যক্রম চলছে