পুলিশের অনুমতিতে পেকুয়ায় আহমদ শফির সমাবেশ শুরু

0
7

গিয়াস উদ্দিন, পেকুয়া
পুলিশের মৌখিক অনুমতির উপর ভরসা করে কক্সবাজারের পেকুয়া উপজেলায় আজ বৃহস্পতিবার সমাবেশ করছে হেফাজত ইসলামের বাংলাদেশের আমীর শাহ আহমদ শফী! হেফাজতের আমীরের সমাবেশ নিয়ে পেকুয়ায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। গত কয়েক দিন ধরে পেকুয়ার অলি-গলিতে এনিয়ে ব্যাপক প্রচার-প্রচারণা চালিয়েছে ওই সমাবেশের আয়োজক কমিটি। সমাবেশের অনুমতি নিয়ে প্রশাসনের বক্তব্যেরও ধ্রুম্যজাল সৃষ্টি হয়েছে। কক্সবাজারের এসপি বলছেন, সমাবেশের অনুমতি দেওয়া হয়নি। আর পেকুয়া থানার ওসি বলছেন, সমাবেশের জন্য মৌখিক অনুমতি দেওয়া হয়েছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, পেকুয়া উপজেলা একামুতুদ্দীন সংগঠনের ব্যানারে আজ বৃহস্পতিবার (২৬ ফেব্রে“য়ারী) দুপুর ২ঘটিকার দিকে পেকুয়া বাজার মাঠে সমাবেশের শুরু করেছে।

গতকাল বুধবার বিকালে পেকুয়া বাজার মাঠে গিয়ে দেখা গেছে, হেফাজতের আমীরের সমাবেশস্থলে বিশাল সামিয়ানা টাঙ্গানোর কাজ করছেন কয়েকজন শ্রমিক। সমাবেশে প্রধান মেহমান হিসেবে থাকছেন হেফাজত আমীর শাহ আহমদ শফি। সমাবেশে হেফাজত ইসলামের আরো অর্ধডজন কেন্দ্রীয় নেতা উপস্থিত থাকার কথা রয়েছে।

জানা গেছে, গত ২৪ ফেব্রে“য়ারী একামুতুদ্দীন সংগঠনের সভাপতি হাফেজ মাওলানা মুজিবুল আলম কক্সাবজারের জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারের কাছে সমাবেশের অনুমতির জন্য আবেদন করেন। কিন্তু জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপার এ সমাবেশ আয়োজনের অনুমতি দেননি।

আয়োজক কমিটির সভাপতি হাফেজ মুজিবুল আলম সিবিএনকে বলেন, তারা জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপার এবং পেকুয়া থানার ওসির কাছ থেকে সমাবেশের মৌখিক অনুমতি গ্রহণ করেছেন। লিখিত অনুমতি নিয়েছেন কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, হেফাজত আমীর কোন ধরনের রাজনৈতিক বয়ান করবেনা শর্তে পুলিশ আমাদের কাছ থেকে মুচলেকা নিয়ে মৌখিকভাবে সমাবেশের অনুমতি দিয়েছেন। লিখিতভাবে অনুমতি দেননি বলে তিনিও স্বীকার করেছেন।

যোগাযোগ করা হলে কক্সবাজার জেলার পুলিশ সুপার শ্যামল কান্তি নাথ বলেন ‘ তার দফতর থেকে পেকুয়ায় হেফাজতের আমীরের সমাবেশের অনুমতি দেওয়া হয়নি’। পুলিশ সুপার এ বিষয়ে পেকুয়া থানার ওসির সাথে যোগাযোগ করতে এ প্রতিবেদককে অনুরোধ জানান।

পেকুয়া থানার ওসি সাথে আবদুর রকিবের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি হেফাজত আমীরের সমাবেশের অনুমতি দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন।

এ ব্যাপারে জানতে কক্সবাজার জেলা প্রশাসক আলী হোসেন এর সাথে মোবাইলে যোগাযোগ করা হলে তিনি এ প্রতিবেদককে বলেন ‘চলমান এই পরিস্থিতিতে পেকুয়ায় হেফাজত আমীরের কোন ধরনের সমাবেশ আয়োজনের অনুমতি দেওয়া হয়নি’। ‘আয়োজক কমিটি ডিসি ও এসপির কাছ থেকে মৌখিক অনুমতির কথা বলে বিভ্রান্তি ছড়াতে চেষ্টা করছে বলেও তিনি উল্লেখ করেন’।