পৃথক অভিযানে ইয়াবাসহ আটক ৭

0
1

উখিয়া (সার্কেল) এ এসপি চাইলাউ মার্মা ও তৎকালীন রামু থানা এলাকার অপরাধী ও মাদক ব্যবসায়ীদের আতংক থানার ভারপ্রাপ্ত ওসি (তদন্ত) মোঃ কায় কিসলুর নেতৃত্বে একদল পুলিশ উপজেলার বিভিন্ন স্থানে পৃথক অভিযান চালিয়ে ইয়াবা ও গাজা সহ ৭ জন কে আটক করতে সক্ষম হলেও উক্ত ইয়াবা ও গাজা ব্যবসার সাথে জড়িত শীর্ষ গডফাদাররা ধরা ছোঁয়ার বাইরে। গতকাল মঙ্গলবার ভোর রাতে উপজেলার সীমান্তবর্তী পালংখালী ইউনিয়নের থাইংখালী গজোঘোনা নামক এলাকার নুর আহম্মদের ছেলে মোক্তার মিয়া (২৫) কে ৯২ পিস ইয়াবা ও কুতুপালং রেজিষ্ট্রাট ক্যাম্পের জি ব্লকের ইলিয়াছের স্ত্রী হাফেজা খাতুন কে ২শ গ্রাম গাজা সহ আটক করেছে। উক্ত আটককৃতদের বিরুদ্ধে মাদক আইনের সংশ্লিষ্ট ধারায় মামলা রুজু করা হয়েছে। যার মামলা নংÑ (০৬) তারিখঃ ৪/০৬/২০১৭ইং। অপর দিকে পৃথক অভিযান চালিয়ে উপজেলার রাজাপালং ইউনিয়নের টাইপালং গ্রামের হাবিবুর রহমানের ছেলে জাহাঙ্গীর আলম, নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ঘুমধুম কচুবনিয়া গ্রামের নজির আহম্মদের ছেলে জাহাঙ্গীর, কুতুপালং রেজিষ্ট্রাট ক্যাম্পের বি ব্লকের ৩৯ নং সেডের মৃত নবী হোসনের স্ত্রী আমেনা বেগম, পালংখালী ইউনিয়নের বালুখালী গ্রামের নুর মোহাম্মদের ছেলে আলমগীর ও বালুখালী পানবাজার এলাকার সোলতান আহম্মদের ছেলে নুরুল হাকিম প্রকাশ আবুইয়া কে ৩শ ১৬ পিস ইয়াবা ও ৫শ গ্রাম গাজা সহ আটক করেছে। আটককৃতদের বিরুদ্ধে মাদক আইনের সংশ্লিষ্ট ধারায় থানায় পৃথক মামলা রুজু করা হয়েছে। যার মামলা নংÑ (৭), তারিখঃ ৪/০৬/২০১৭ইং। উক্ত ইয়াবা ও গাজা ব্যবসায়ীদের আটকের খবর সর্বত্রে ছড়িয়ে পড়লে উখিয়া সীমান্তের শীর্ষ ইয়াবা কারবারী হিজোলীয়া তেলী পাড়া গ্রামের বাবুল আলম, তার চেইন অব কমান্ড আকতার মিয়া, নুরুল হাকিম, সিএনজি মোক্তার, বাবুল মিয়া, থাইংখালী রহমতেরবিল এলাকার জামাল উদ্দিন প্রকাশ দাড়ী জামাল, পালংখালী ফারিরবিল গ্রামের জসিম উদ্দিন, থাইংখালী গজোঘোনা এলাকার পুলিশের ভাগ্নি জামাই এনাম, রাজাপালং ইউনিয়নের টাইপালং গ্রামের দরবেশ আলী সিকদারের ছেলে গিয়াস সিকদার, একই ইউনিয়নের চেংখোলা গ্রামের আবুইল্ল্যা, সিকদারবিল গ্রামের সাহাব উদ্দিন, জালিয়াপালং ইউনিয়নের সোনাইছড়ি গ্রামের ইসলাম মিয়ার ছেলে যুবদল নেতা শামশুল আলম সোহাগ, মোনাফ মার্কেট এলাকার জয়নাল, সোনার পাড়া গ্রামের বদিউল আলম স্যারের ছেলে ছমি উদ্দিন সহ শীর্ষরা গ্রেপ্তার আতংকের পাশাপাশি পুলিশি গ্রেপ্তার এড়াতে নিজ এলাকা ছেড়ে অনত্রে ফাঁড়ি জমাচ্ছে বলে জানা গেছে। এ ব্যাপারে উখিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত ওসি (তদন্ত) মোঃ কায় কিসলু বলেন, ইয়াবা ও মাদকের সাথে জড়িতদের ছাড় দেওয়া হবে না। ইয়াবা ব্যবসায়ীরা যত বড়ই শক্তি শালী হোক না কেন তাদের সাথে কোন আপোষ নেই। হয় ইয়াবা ব্যবসা ছেড়ে ভাল মানুষ হতে হবে অন্যতায় এলাকা ছাড়তে হবে।