বাদলের নামে কালুরঘাটে নতুন সেতুর নামকরণ দাবি

0
123

বাদলের নামে কালুরঘাটে নতুন সেতুর নামকরণ দাবি নাগরিক সংগঠক যিকরু হাবিবীল ওয়াহেদের চট্টগ্রামের কালুরঘাটে নতুন যে সেতুর ঘোষণা এসেছে সরকারের পক্ষ থেকে, সেটি প্রয়াত সংসদ সদস্য মুক্তিযোদ্ধা মইন উদ্দীন খান বাদলের নামে নামকরণের দাবি জানিয়েছেন নাগরিক সংগঠক যিকরু হাবিবীল ওয়াহেদ। চট্টগ্রাম নগরীর সঙ্গে বোয়ালখালী ও পটিয়া উপজেলার একাংশের যোগাযোগের মাধ্যম এবং নগরীর সঙ্গে কক্সবাজারের রেল যোগাযোগেরও অন্যতম সংযোগ কালুরঘাট সেতু। ১৯৩০ সালে ব্রিটিশ আমলে নির্মিত ৭০০ গজ দীর্ঘ রেল সেতুটি ১৯৫৮ সালে সব ধরনের যান চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়া হয়। ৮৯ বছর বয়সী সেতুর ওপর দিয়ে প্রতিদিন ঝুঁকি নিয়ে চলছে কয়েক হাজার যানবাহন ও কয়েক জোড়া ট্রেন। সেতুটি নগরী লাগোয়া বোয়ালখালী উপজেলার মানুষের চলাচলের একমাত্র ভরসা। এই সেতু দিয়ে প্রতিদিন অন্তত ৫০ হাজার লোক পারাপার হয়। নাগরিক সংগঠক যিকরু হাবিবীল ওয়াহেদ বলেন, সংসদ সদস্য মইন উদ্দীন খান বাদল কালুরঘাটে নতুন সেতু নির্মাণের জন্য আমৃত্যু লড়ে গেছেন। অনেকটা অভিমান করে তিনি জাতীয় সংসদে দাঁড়িয়ে বলেছিলেন, ডিসেম্বরে কাজ শুরু না হলে তিনি সংসদ থেকে পদত্যাগ করবেন। কিন্তু পরিতাপের বিষয় সেতুর কাজ শুরু হওয়ার আগেই সংসদ সদস্য মাঈন উদ্দীন খান বাদল মৃত্যুবরণ করেছেন। তিনি বলেন, তাঁর আমৃত্যু স্বপ্ন ছিল কালুরঘাটে নতুন সেতু তাঁরই হাত ধরে হবে। এরই প্রেক্ষিতে জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান বীর মুক্তিযোদ্ধা মইন উদ্দীন খান বাদলের নামে কালুরঘাট সেতুর নামকরণ করে স্বাধীনতা সংগ্রামের একজন বীর সন্তান এবং কালুরঘাট সেতুর জন্য আমৃত্যু লড়ে যাওয়া মানুষটিকে স্মরণীয় করে রাখার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি বিনীত আবেদন জানাচ্ছি। প্রসঙ্গত বৃহস্পতিবার ভোরে ভারতের বেঙ্গালুরুর একটি হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন মইন উদ্দীন খান বাদল। তাঁর মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করে মরহুমের শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি সমবেদনা জানান এবং তার বিদেহি আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন নাগরিক সংগঠক যিকরু হাবিবীল ওয়াহেদ।