বাল্য বিয়ে ঠেকাতে গিয়ে বরের বাড়িতে পুলিশ কর্মকর্তার ভূরিভোজ!

0
3

বাল্য বিয়ে
পেকুয়া প্রতিনিধি:
কক্সবাজারের পেকুয়ায় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নির্দেশে বাল্য বিয়ে ঠেকাতে গিয়ে উল্টো বরের বাড়ীতে ভূরিভোজ করেছেন খোদ পুলিশ কর্মকর্তা! এ ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। ঘটনাটি ঘটে, আজ শুক্রবার (৮ এপ্রিল) বিকালে পেকুয়া উপজেলার টইটং ইউনিয়নের ৮ নং ওয়ার্ড়ের হিরাবনিয়া গ্রামের প্রবাসী গিয়াস উদ্দিনের বাড়ীতে।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, শুক্রবার হিরাবুনিয়া গ্রামের মৃত নুরুল হোছাইনের পুত্র সাউথ আফ্রিকা প্রবাসী গিয়াস উদ্দিনের সাথে পাশ্ববর্তী টইটং ইউনিয়নের ছনখোলার জুম গ্রামের মৌলভী ছৈয়দুল হকের মেয়ে জান্নাতুল ফেরদৌসের সাথে বিয়ের দিনক্ষণ নির্ধারিত ছিল। এদিকে মেয়ের বয়স কম হওয়ায় সেটি পেকুয়ার ইউএনও ও নির্বাহী ম্যাজিষ্টেট মারুফুর রশিদ খানকে অবহিত করেন স্থানীয়রা। পরে ইউএনও উপজেলা মহিলা বিষয়ক কার্যালয়ের মাধ্যমে ওই বাল্য বিয়েটি ঠেকাতে পেকুয়া থানা পুলিশকে নির্দেশ দেন। শুক্রবার বিকাল ৩টার দিকে পেকুয়া থানার এএসআই মনিতোষ চাকমার নেতৃত্বে একদল পুলিশ বাল্য বিয়েটি ঠেকাতে বর ও কনের বাড়ীতে অভিযান চালায়। প্রথমে কনের বাড়ীতে গিয়ে কাউকে পায়নি পুলিশ। অবশ্য পুলিশ আসার খবর পেয়ে কনের বাড়ীর লোকজন পালিয়ে যায়। পরে বরের বাড়ীতে যান পুলিশ ও মহিলা বিষয়ক কার্যালয়ের সহকারী মো. মিজান।
স্থানীয়রা জানিয়েছেন, বরের বাড়ীতে এসেই বাল্য বন্ধে উদ্যোগ গ্রহণ না করে পুলিশ কর্মকর্তা বর পক্ষের লোকজনের সাথে দেনদরবার শুরু করেন। প্রায় ঘন্টাব্যাপী বর পক্ষের সাথে দর কষাকষি শেষে এএসআই মনিতোষ চাকমা ও সঙ্গিয় পুলিশ ফোর্স বরের বাড়ীতে ভূরিভোজে অংশ নেন। পরে মোটা অংকের গাড়ী ভাড়ার কথা বলে মোটা অংকের উৎকোচ নিয়ে সন্ধ্যার দিকে বরের বাড়ী ত্যাগ করে থানায় ফিরে যান ওই পুলিশ কর্মকর্তা।
এ বিষয়ে জানার জন্য পেকুয়া থানা এএসআই মনিতোষ চাকমার সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি তার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ সমূহ অস্বীকার করেছেন।
এদিকে বাল্য বিয়ে বন্ধে অভিযান চলাকালে বরের বাড়ীতে খোদ পুলিশ কর্মকর্তার ভুরিভোজের ঘটনাটি শুক্রবার রাতে পুরো পেকুয়াজুড়ে তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে। এলাকার সচেতন মহল জানান, বাল্য বিয়ে বন্ধে সরকার কঠোর অবস্থানে রয়েছে। কিন্তু মাঠ পর্যায়ে প্রশাসনের কিছু দূর্নীতিবাজ সরকারী কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জন্য বাল্য নিয়ন্ত্রনে সরকার সুফল পা”েচ্ছনা।
টইটং ইউনিয়নের ৮ নং ওয়ার্ড়ের ইউপি সদস্য মো. আবুল কাসেম জানান, পুলিশ বাল্য বিয়ে বন্ধ করতে তার এলাকায় প্রবাসী গিয়াস উদ্দিনের বাড়ীতে অভিযান চালিয়েছে। বরের বাড়ীতে এএসআই মনিতোষ চাকমা ভূরিভোজেও অংশ নেন বলে স্বীকার করেছেন ওই ইউপি সদস্য।
পেকুয়া উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তার কার্যালয়ের সহকারী মো. মিজানুর রহমান জানিয়েছেন, ইউএনওর নির্দেশে পুলিশ নিয়ে বর ও কনের বাড়ীতে অভিযান চালানো হয়েছে। বরের বাড়ীতে পুলিশ কর্মকর্তাসহ তারা আরো বেশ কয়েকজন লোক বর পক্ষের লোকজনের বিশেষ অনুরোধে ভূরিভোজে অংশ নিয়েছেন। তিনি জানান, বর পক্ষের কাছ থেকে মুচলেখা নেওয়া হয়েছে। মেয়ের পিতাকে ফোন করে তার মেয়েসহ আগামী রোববার অফিসে হাজির হতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।