ভ্রমণে অন্য মাত্রা পাহাড়ের চূড়ার অবতরণ

0
9

মনে হচ্ছে এই বুঝি পাহাড়ের উপরই আছড়ে পড়বে। পাহাড়ের চূড়ার পাশ কাটিয়ে অবতরণ করছে বিমান। অবিশ্বাস্য হলেও ভুটানের পারো আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে প্রতিটি বিমান অবতরণ কিংবা উড্ডয়নের সময় এমন পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। যে কারণে এখানে বিমান পরিচালনার জন্য বিশেষ প্রশিক্ষণও গ্রহণ করতে হয় বৈমানিকদের।

ঢাকা থেকে মাত্র ১ ঘণ্টার দূরত্ব। এরমধ্যে বিস্তীর্ণ জন্মভূমির তিলোত্তমা রূপ, মেঘের রাজ্যে অবগাহনসহ অনেক সৌন্দর্যেরই সাক্ষাত পাওয়া যাবে। কিন্তু বিমান থেকে পর্বতে আবৃত ভূপৃষ্ঠ দেখে যেকোনো বিমানযাত্রীই ধরতে পারবেন এটি ভুটান।


আকাশপথে গন্তব্য ভুটানের এ রোমাঞ্চকর যাত্রায় ঝুঁকিটাও কম নয়। কারণ, কখনও দুই চূড়ার ফাঁক গলে, কখনও উঁচুতে উঠে আবার কখনও নিচুতে নেমে পাহাড়ি আকাশ পাড়ি দেয় বিমান। যে কারণে বিমানবন্দর নিয়ে কাজ করা বিভিন্ন সংস্থার মতে এটি পৃথিবীর সবচেয়ে দুর্গম বিমানবন্দরের একটি।
্যা বেড়েছে, তবে এখন পর্যন্ত রাষ্ট্রীয় বিমানসংস্থা দ্রুক এয়ারের বিমান ছাড়া অন্য কোন এয়ারলাইন্সের নিয়মিত ফ্লাইট নেই এখানে।

এতকিছুর পরও অ্যাডভেঞ্জার প্রিয়দের আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দু এই বিমানবন্দর। দিনের আলোতে ছাড়া অন্যসময় যে কোনো ধরনের উড্ডয়ন অবতরণ নিষিদ্ধ এ বিমানবন্দরে।