মাংস সংরক্ষন করার সঠিক উপায়

0
142

কোরবানির ঈদের আনন্দের একটা বড় অংশজুড়ে থাকে গরু খাসির মাংস দিয়ে নিজেদের ভুরিভোজ আর অতিথিদের আপ্যায়ন। নিজের খাওয়া দাওয়া, অতিথিদের আপ্যায়ন আর গরীব দুঃখীদের মাঝে মাংস বিতরণের পরেও আমাদের অনেক অনেক মাংস সংরক্ষনের প্রয়োজন পরে। কিন্তু একটুখানি ভুলের কারনে আর অসাবধানতার জন্য নষ্ট হয়ে যেতে পারে আমাদের কোরবানির মাংস। সঠিক পদ্ধতিতে মাংস সংরক্ষন করলে অনেক দিন পর্যন্ত মাংস ভালোভাবে সংরক্ষন করা সম্ভব।

চলুন দেখি মাংস সংরক্ষণের উপায় সমুহঃ

  • ফ্রিজে মাংস সংরক্ষণের ভুল পদ্ধতিঃ ফ্রিজ পরিষ্কার না করেই মাংস ধুয়ে পানি সহ পুটলা করে সংরক্ষণ।
  • ফ্রিজে মাংস সংরক্ষনের সঠিক পদ্ধতিঃ মাংস সরক্ষনের জন্য সবচেয়ে আধুনিক আর সহজ উপায় ফ্রিজে মাংস সংরক্ষণ। ফ্রিজে মাংস রাখার পূর্বে ফ্রিজ বন্ধ করে পরিষ্কার করে নিন। ফ্রিজ বন্ধ করে রাখলে ভিতরে জমানো বরফ গলে যাবে আর ভালো ভাবে পরিষ্কার করে দুর্গন্ধ মুক্ত করে নিন।
  • মাংস সংরক্ষনের পূর্বে মাংস ভালো করে ধুয়ে পানি ঝরিয়ে নিন। চালনিযুক্ত ঝুড়িতে রেখে পানি ঝরিয়ে নিতে পারেন। পানি ঝরে গেলে ফ্যনের বাতাসে রেখে মাংস আরো কিছু সময় শুকিয়ে নিতে পারেন। এবার পলিব্যাগে ভরে ছোট পুটলা করে ফ্রিজে রেখে সংরক্ষণ করুন ।
  • মাংস ধুয়ে সংরক্ষণ করতে না চাইলে শুকনো কাপড় দিয়ে মাংসের রক্ত পরিষ্কার করেও মাংস ফ্রিজে রেখে সংরক্ষণ করতে পারেন।
  • যতটা সম্ভব পাতলা পলিব্যাগ পরিহার করুন কারন এতে মাংস বের করার সময় পলিব্যাগ ছিঁড়ে যায়। পতিটি ব্যাগের মাঝখানে কাপড় বা কাগজ দিয়ে রাখতে পারেন এতে প্রতিটা ব্যাগ একটার সাথে আরেকটা লেগে যাবে না।
  • গরু খাসির মাংস সংরক্ষণের সময় প্যাকেটের গায়ে সংরক্ষণের তারিখ এবং গরু না খাসি সেটা লিখে রাখুন। যাতে পরবর্তীতে চিনতে সমস্যা না হয়।

  • ফ্রিজ ছাড়া মাংস সংরক্ষণের উপায়ঃ
  • জ্বাল দিয়ে মাংস সংরক্ষণঃ এটা অনেক প্রাচীন এবং গতানুগতিক একটা পদ্ধতি। মাংস বড় পাত্রে নিয়ে হলুদ আর লবন মাখিয়ে জ্বাল দিয়ে অনেকদিন পর্যন্ত সংরক্ষণ করা যায়। তবে এই পদ্ধতিতে মাংস সংরক্ষণ করতে কমপক্ষে দিনে দুইবার মাংস জ্বাল দিতে হবে যাতে মাংসে ব্যাকটেরিয়া জমে মাংস নষ্ট হয়ে না যায়।
  • রোদে শুকিয়ে মাংস সংরক্ষণঃ
  • মাছের শুটকির কথা কে না জানে ? কিন্তু মাংস যে রোদে শুকিয়ে সংরক্ষণ করা যায় সেটা অনেকেরই অজানা। কিন্তু এই পদ্ধতিতে অনেক আগে থেকে গ্রাম-গঞ্জে যেখানে ফ্রিজ নেই সেই এলাকায় মাংস সংরক্ষন করা হয়ে থাকে। এক্ষেত্রে মাংস পরিষ্কার করে নিয়ে ছোট ছোট টুকরা করে কেটে রোদে শুকিয়ে সংরক্ষণ করা হয়। মাংস একটা লম্বা তারে শুটকি মাছের মতো করে গেঁথে রোদে শুকাতে হবে। এইবারে কমপক্ষে ৫-৬ দিন রোদে শুকিয়ে টিন বা কাঁচের বয়ামে মাংস সংরক্ষণ করা যায়। এই মাংস রান্নার আগে কম পক্ষে ১ ঘণ্টা গরম পানিতে ভিজিয়ে রাখতে হবে তার পর স্বাভাবিক নিয়মে রান্না করতে হবে।

  • ভিনেগারে ডুবিয়ে রেখে অথবা লেবুর রস ব্যাবহার করেও অনেকদিন পর্যন্ত মাংস সংরক্ষণ করা যায়।

মাংসের গুণগতমান ও পুষ্টিগুণ অক্ষুণ্ণ রেখে মাংস সংরক্ষণ করার জন্য অবশ্যই সঠিক পদ্ধিত অবলম্বন করা উচিৎ।