মাদক ব্যবসায়ীর হামলায় মহিলাসহ আহত ২

0
14

হামলা
পেকুয়া প্রতিনিধি.
পেকুয়ায় মাদক বিক্রেতার হামলায় মহিলাসহ ২জন গুরুতর আহত হয়েছেন। আহতদের স্থানীয়রা উদ্ধার করে পেকুয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। ওই দুজনের অবস্থা অবনতি হলে তাদেরকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরন করা হয়েছে। এঘটনার জের ধরে এলাকায় চরম উত্তেজনা চলছে। মাদক বিকিকিনিতে অতিষ্ট হয়ে প্রতিবেশিরা বাধা দেয়। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে মাদক বিক্রেতা ধারালো অস্ত্র দিয়ে দুজনকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে জখম করে। ঘটনাটি ঘটেছে, ২৭জানুয়ারি বুধবার সকাল ৮টার দিকে উপজেলার টৈটং ইউনিয়নের আব্দুল্লাহ পাড়া এলাকায়। আহতরা হলেন ওই এলাকার শওকত ওসমানের স্ত্রী জোহরা বেগম(৩৫), মৃত. নুরুল আলমের পুত্র শাহাজাহান(৩২)।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, আব্দুল্লাহপাড়া জামে মসজিদ সংলগ্ন মৃত.আলী আহমদের পুত্র মনিরুজ্জামান প্রকাশ মনু তার বাড়িতে নিয়মিত নেশাজাত দ্রব্য সংরক্ষন করে অবাধে বিকিকিনি করেই চলছে। গাজাঁ, চোলাই মদ, ইয়াবাসহ নেশাজাত দ্রব্য মনিরুজ্জামান কয়েকটি গ্রুপ করে পেকুয়া, টৈটং, রাজাখালী ও পার্শ্ববতী বাশঁখালীসহ বিভিন্ন এলাকায় পাচার ও অবাধে বেচা বিক্রি করে। সন্ধ্যা নামলেই আব্দুল্লাহপাড়ায় ওই বাড়িতে দুর-দুরান্ত থেকে নেশাখোর ও মাদক সেবনকারীরা জড়ো হয়ে নেশার আড্ডায় মেতে উঠে। পার্শ্ববর্তী স্থানে মসজিদ ও ধর্মীয় প্রতিষ্টান থাকলেও এর প্রতি তাদের কোন ধরনের গরজ পড়েনা।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, ওইদিন মাদক বিকিকিনির সময় মনিরুজ্জামানকে জোহরা বেগম দেয়। এসময় ক্ষিপ্ত হয়ে মনিরুজ্জামান, তার স্ত্রী দিলোয়ারা বেগম ও মেয়ে রিটা মিলে ধারালো অস্ত্র দিয়ে জোহরা বেগমকে আঘাত করে। এসময় তাকে উদ্ধারের জন্য শাহাজাহান এগিয়ে গেলে তাকেও কুপিয়ে মারাত্মক জখম করে। স্থানীয় সমাজ পরিচালনা কমিটির সর্দ্দার নুরুচ্ছবি, মসজিদ পরিচালনা কমিটির সভাপতি জাফর আলম ও সদস্য আবুল কালামসহ অনেকে জানিয়েছেন, মনিরুজ্জামানের এহেন কাজে আমরা অতিষ্ট হয়েছি। আর প্রতিবাদ করায় জোহরা বেগম ও শাহাজাহানকে অমানবিক কুপিয়ে আঘাত করে। সে কয়েকমাস আগে বিপুল মাদকসহ পুলিশের কাছে ধরা খেয়ে জেলে ছিল। জেল থেকে আসার পর একই কাজ আবারো চালিয়ে যাচ্ছে।