মারা গেলেন বগুড়া-১ আসনের এমপি আব্দুল মান্নান

0
85

লাইফ সাপোর্টে থাকা বগুড়া-১ আসনে আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য আব্দুল মান্নান মারা গেছেন।

ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মান্নান এক সময় আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদকের দায়িত্বও পালন করে।

মান্নানের মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শোক জানিয়েছেন।

মান্নানের বয়স হয়েছিল ৬৬ বছর। তার পৈতৃক বাড়ি বগুড়ার সারিয়াকান্দি উপজেলার হিন্দুকান্দি এলাকায়।

হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়ার পর বৃহস্পতিবার রাতে ঢাকার ল্যাবএইড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল মান্নানকে। অবস্থার অবনতি ঘটলে ওই রাতেই তাকে লাইফ সাপোর্টে নেওয়া হয়।

শনিবার সকালে তার লাইফ সাপোর্ট খুলে নেওয়া হয়।

আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া বলেন, “আজ সকাল ৮টা ১৫ মিনিটে আব্দুল মান্নান শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেছেন।”

মান্নানের মরদেহ বারডেম হাসপাতালের হিমঘরে রাখা হবে। সোমবার সকাল ১০টায় সংসদ ভবনের দক্ষিণ প্লাজায় জানাজা নামাজ শেষে তার প্রতি শেষ শ্রদ্ধা জানাবেন রাজনৈতিক সহকর্মীরা।

পরে হেলিকপ্টারে করে বগুড়ার সোনাতলায় নিয়ে যাওয়া হবে লাশ। এরপর গ্রামের বাড়িতে তাকে দাফন করা হবে বলে আওয়ামী লীগ নেতারা জানিয়েছেন।

গত শতকের ৮০ দশকে ছাত্রলীগের সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন মান্নান। ময়মনসিংহের বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র সংসদের (বাকসু) ভিপি ছিলেন তিনি।

২০০৮ সালে প্রথম সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন মান্নান। এরপর ২০১৪ ও ২০১৮ সালেও নির্বাচিত হন তিনি।

এক শোকবার্তায় রাষ্ট্রপতি বলেন, “আব্দুল মান্নানের মৃত্যুতে আওয়ামী লীগ একজন দক্ষ ও অভিজ্ঞ নেতাকে হারালো। তার অভাব কোনোভাবেই পূরণ হওয়ার নয়।”

শোকবার্তায় প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা বলেন, “তার মতো একজন রাজনীতিবিদের মৃত্যুতে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ একজন দক্ষ সংগঠক ও একনিষ্ঠ কর্মীকে হারাল।”

পঁচাত্তর পরবর্তী সময়ে মান্নানের ভূমিকা স্মরণ করে শোকবার্তায় স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, “৭৫ পরবর্তী কঠিন সময়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শ বাস্তবায়নে নিরলস পরিশ্রম, ত্যাগ ও কষ্ট করে যাওয়া আব্দুল মান্নানকে জাতি চিরদিন শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করবে।”

মান্নানের মৃত্যুতে দলের পক্ষ থেকে ওবায়দুল কাদেরও শোক জানিয়েছেন। শোকবার্তা পাঠিয়েছেন ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বী মিয়া ও চিফ হুইপ নূর-ই-আলম চৌধুরী।