মিথ্যা সংবাদ পরিবেশন ও প্রচারের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

0
22

বাকলিয়ার আওয়ামী লীগ নেতা ও বিশিষ্ট সমাজসেবক আলহাজ্ব তারিকুল ইসলাম
রানাকে নিয়ে একটি কুচক্রি মহল বিভিন্ন মিথ্যা সংবাদ পরিবেশন ও প্রচারের
অভিযোগ করে সংবাদ সম্মেলন করেছেন বাকলিয়ার আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা।
সোমবার (৭ অক্টোবর) বিকালে দেওয়ানবাজার শান্তিনগর পঁচিশ কামরা নিরাপদ
হাউজিং সোসাইটি-২ এ এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।
সংবাদ সম্মেলনে ১৭ নং ওয়ার্ড ৩ নং ইউনিট আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক
তারিকুল ইসলাম রানা লিখিত বক্তব্যে জানান, এলাকার সন্ত্রাসীদের অপকর্মের
বিরুদ্ধে সোচ্চার হওয়ার কারণে তাদের বিরুদ্ধে মামলার আসামীরা বিভিন্ন
সংবাদ মাধ্যমে মিথ্যা ও ভিত্তিহীন তথ্য সরবরাহ করে বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছে।
লিখিত বক্তব্যে রানা আরো জানান, মিথ্যা ও ভুল তথ্যের ভিত্তিতে কিছু অসাধু
চক্রের যোজসাজশে ষড়যন্ত্র ও উদ্দেশ্যমূলকভাবে বিগত ৪ অক্টোবর ও ৬ অক্টোবর
২ টি পত্রিকায় আমাকে জড়িয়ে যেসব সংবাদ পরিবেশন করা হয়েছে তা আদৌ সত্য নয়
তা সম্পূর্ণ উদ্দেশ্য প্রণোদিত, মিথ্যা, ভিত্তিহীন ও বানোয়াট। তারা
আমাদের পরিবারের ভাবমুর্তি ক্ষুন্ন করার উদ্দেশ্যে এই সংবাদ পরিবেশন করে।
এই মিথ্যা সংবাদের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানানোর জন্য আজকের এই সংবাদ
সম্মেলন। আমি এই সংবাদের তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি।
লিখিত বক্তব্যে রানা আরো জানান, তারা যে শিরোনাম করেছে “কাউন্সিলরের ভাই
চোরের সর্দার” কিংবা চট্টগ্রামে চোর চক্রের গডফাদার যুবলীগ নেতা রানা
সেলুর স্বীকারোক্তিমূলক জবান বন্দি”র বরাত দিয়ে যে সংবাদ পরিবেশন করেছে
তা তারা এক তরফা একজনের তথ্যের ভিত্তিতে করেছে। তারা প্রকৃত সত্য উদঘাটন
না করে আমার ছবিসহ তাদের পত্রিকায় প্রকাশ করেছে। তাই আজ আমার এই প্রতিবাদ
সমাবেশ।
লিখিত বক্তব্যে রানা আরো জানান, আমাদের পারিবারিক ঐতিহ্য ধ্বংসের জন্য
গভীর ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে সন্ত্রাসী আমজাদ হোসেন ও তার সহযোগীরা। আমি
বিভিন্ন মিডিয়া নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করার সময় সন্ত্রাসী আমজাদ দলবল নিয়ে
আমার ব্যানার পেষ্টুন ছিড়ে ফেলে।
লিখিত বক্তব্যে রানা আরো জানান, বর্তমানে সেলুকে সন্ত্রাসী আমজাদ হাতিয়ার
হিসেবে ব্যাবহার করছে। সেলু নিজেও প্রতিশোধের নেশায় উম্মাদ হয়ে এই সব
মিথ্যা বানোয়াট ও ভিত্তিহীন কথাবার্তা আদালত সহ প্রশাসনের সর্বস্তরে বলে
বেড়াচ্ছে। সে এক সময় আমাকে ২ গন্ডা সম্পত্তি তার নামে রেজিস্ট্রী করে
লিখে দিতে চাপ দিতে থাকে। আমি এই সব অনৈতিক প্রস্তাবে রাজী না হওয়ায় তার
আক্রোস আমার বিরুদ্ধে আরও বেড়ে যায়।
লিখিত বক্তব্যে রানা আরো জানান, ইতিপুর্বে সে কখনো কোন গণমাধ্যম কিংবা
প্রশাসনের কোথাও আমাকে জড়িয়ে কুৎসা রটানোর মত কোন বক্তব্যে মিথ্যাচার
করেনি। কেবলমাত্র এ বারেই কে বা কারা আমাকে ফাঁসানোর জন্য হয়তো তাকে দিয়ে
এমনটি করাচ্ছে। তা ছাড়া বাকলিয়া ১৭ নং ওয়ার্ডেও ৩ নং ইউনিট আওয়ামী লীগের
কমিটিতে আমি তাকে বয়কট করি। কমিটির কোথাও তাকে স্থান না দিলে সে সেই দিক
থেকেও আমাকে দেখে নেবে বলে অনেকবার মৌখিক হুশিয়ারী উচ্চারণসহ হুমকি
প্রদান করে। তার অনুসারী আমজাদ দুর্ধর্ষ ক্যাডার অত্র এলাকার জন্য একটি
আতঙ্কের নাম। তার মাধ্যমেও অনেকবার সে আমাদের পিছনে অনেক অপকর্মের রটনা
রটানোর চেষ্টা করেন। বর্তমানে আমি সহ সমাজের গণ্যমান্য ব্যক্তি তাকে
ইউনিট আওয়ামী লীগের কোন দায়িত্বে না রাখা এমনকি সদস্যপদেও না রাখার জন্য
সে আমার উপর চরম প্রতিশোধের নেশায় মরিয়া হয়ে উঠেছে। ফলে সে প্রশাসন,
মিডিয়াসহ সর্বস্তরে আমি ও আমার পরিবার নিয়ে নানা ধরনের মিথ্যাচার করে
বেড়াচ্ছে। পাশাপাশি তাকে ব্যবহার করছে এমন অনেক লোকও রয়েছে। শুধুমাত্র
অন্যায়ের কাছে মাথা নত না করা কিংবা ইউনিট আওয়ামী লীগে আওয়ামী লীগের
সম্মান কষুন্ন হবে এমন কোন ব্যক্তিকে আশ্রয় প্রশ্রয় না দেয়ার জন্য এভাবে
মিথ্যাচার করছে ও আমার পরিবারের সম্মান ক্ষুন্ন করার জন্য অপচেষ্টায়
লিপ্ত রয়েছে। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বাকলিয়া ১৭ নং ওয়ার্ড যুবলীগের অর্থ
বিষয়ক সম্পাদক টিপু সুলতান, নিরাপদ হাউজিংয়ের সভাপতি হাজী সিরাজুল ইসলাম,
জনকল্যাণ উন্নয়ন কমিটির সভাপতি আতাহার আলী সর্দার, বাকলিয়া থানা
শ্রমিকলীগের সাধারণ সম্পাদক রাশেদ সোলেমান, বঙ্গবন্ধু সমাজ কল্যাণের অর্থ
সম্পাদক জামাল উদ্দিন, মো. সেলিম সিকদার, ৩নং ইউনিটের সাংগঠনিক সম্পাদক
জাহাঙ্গির আলম সুমন, সিনিয়র সহসভাপতি কামাল উদ্দিন লিটন প্রমুখ