রবি আজিয়াটা কি পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হচ্ছে?

0
37

সকল জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে মোবাইল ফোন অপারেটর রবি আজিয়াটা লিমিটেড পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হচ্ছে। সোমবার ঢাকায় বিশ্ব বিনিয়োগকারী সপ্তাহ, ২০১৯-এর উদ্বোধনী উপলক্ষে এক সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (এসইসি) চেয়ারম্যান এম খায়রুল হোসেন এমন তথ্যই জানিয়েছেন।

সোমবারের অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে খায়রুল হোসেন বলেন, মোবাইল ফোন অপারেটর রবি আমাদের সঙ্গে বসেছে। তারা পুঁজিবাজারে আসতে চেয়েছে। আমরা তাদের বলেছি, আপনাদের আর্থিক বিবরণীর অবস্থা অতটা ভালো নয়। পুঁজিবাজারে আসতে হলে আপনাদেরকে অভিহিত মূল্যে আসতে হবে। খায়রুল হোসেন জানান, তারা তাতেও রাজি হয়েছে।

তিনি বলেন, অর্থমন্ত্রী আমাকে এইমাত্র ফোনে বলেছেন, বীমা কোম্পানিগুলোর চেয়ে সরকারি লাভজনক প্রতিষ্ঠানগুলোকে পুঁজিবাজারে আনার বিষয়ে অর্থমন্ত্রী বেশি প্রাধান্য দিচ্ছেন। সরকারি কিছু ভালো লাভজনক প্রতিষ্ঠান দু-এক মাসের মধ্যেই বাজারে আসবে।

সংবাদ সম্মেলন চলাকালীন অবস্থায় একটি ফোন আসে। বিএসইসির চেয়ারম্যান কিছু সময়ের জন্য উঠে যান। বক্তব্য রাখার সময় তিনি সেটি উল্লেখ করে জানান, যে তাকে অর্থমন্ত্রী ফোন দিয়েছিলেন এবং অর্থমন্ত্রী তাকে এই বিষয়গুলো সবাইকে জানাতে বলেছেন।

খায়রুল হোসেন বলেন, অর্থমন্ত্রী আমাকে ফোনে বলেছেন বাজারের উন্নয়নের জন্য যা যা করণীয় আমরা সর্বপ্রকার চেষ্টা করব। বাজারের সূচক শুধু পজিটিভ হলেই হবে না। বাজারের লেনদেনও যেন অনেক বেশি হয়। সবার মধ্যে যেন একটা আস্থা সৃষ্টি হয়। সে বিষয়ে আমরা চেষ্টা করব। দীর্ঘমেয়াদে পুঁজিবাজার ভালো করবে বলেও জানান এসইসি চেয়ারম্যান।

এ সময় তিনি আরও বলেন, ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) কৌশলগত বিনিয়োগকারী এসেছে, তাদেরও সুফল একসময় বাজার পাবে। তারা গবেষণা করছে যে এই বাজারে কী ধরনের প্রতিষ্ঠান আনা যায়। কোথায় বিনিয়োগ করা যায়। ধীরে ধীরে সেসব বিনিয়োগ বাংলাদেশে আসবে এবং পুঁজিবাজারে এর প্রতিফলন ঘটবে।

রবি আজিয়াটার মার্কেটে আসার বিষয়টি উল্লেখ করে খায়রুল হোসেন বলেন, একটি বছর অন্তত অপেক্ষা করেন, দেখবেন অনেক সুফল আমাদের কাছে আসবে।

তবে মোবাইল ফোন অপারেটর রবি আজিয়াটা বলছে, বিদ্যমান করহারের কারণে এখনই পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হতে চায় না অপারেটরটি। এছাড়া সম্প্রতি ট্যাক্স ইস্যুতে গ্রামীণফোন ও রবির ওপর চলমান বিটিআরসি, টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয় ও অর্থ মন্ত্রণালয়ের চলমান পক্ষে-বিপক্ষে মতামত এবং ট্যাক্স ইস্যু সমাধান করার জন্যও অপেক্ষা করছে অপারেটরটি।

এসইসি চেয়ারম্যানের বক্তব্য বিষয়ে জানতে যোগাযোগ করা হলে রবি আজিয়াটা লিমিটেডের চিফ করপোরেট অ্যান্ড রেগুলেটরি অফিসার সাহেদ আলম যুগান্তরকে বলেন, একটি দায়িত্বশীল ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান হিসেবে বিনিয়োগের উৎস সম্প্রসারণ করার বিষয়ে রবি সব সময়ই সচেষ্ট।

এ জন্য বাজারে বন্ড ছাড়ার বিষয়ে রবি কাজ করছে। বিএসইসির সঙ্গে এ বিষয়ে সম্প্রতি আমাদের ফলপ্রসূ আলোচনা হয়েছে। কিন্তু পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্তির বিষয়ে কোনো চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত আমরা এখনো নেইনি। তবে পুঁজিবাজারে আসার বিষয়ে রবি সব সময়ই ইতিবাচক। বর্তমানে প্রচলিত করপোরেট কর হার এবং ন্যূনতম কর হার এ ক্ষেত্রে বড় প্রতিবন্ধকতা বলে আমরা মনে করি।

সাহেদ আলম বলেন, পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্তির ক্ষেত্রে করপোরেট কর হার উল্লেখযোগ্য হারে কমানোর পাশাপাশি কিছু প্রণোদনা নিশ্চিত করা হলে তা বিনিয়োগকারীদের আস্থা বৃদ্ধির পাশাপাশি আমাদের তালিকাভুক্তির বিষয়টিও সহজ করবে।