রমজান আলী মামুন এর মৃত্যুতে শোকের ছায়া

0
128

শিশুসাহিত্যিক রমজান আলী মামুন আর নেই। মঙ্গলবার (২৪ সেপ্টেম্বর) বেলা পৌনে ৩টায় চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ইন্তেকাল করেছেন (ইন্নালিল্লাহি… রাজিউন)। তার মৃত্যুর খবরে চট্টগ্রামের সাহিত্য-সংস্কৃতি অঙ্গনে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। অনেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তাকে নিয়ে স্মৃতিচারণ করছেন।

মৃত্যুকালে মামুনের বয়স হয়েছিল ৫২ বছর। তিনি স্ত্রী ২ ছেলে, এক মেয়েসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে যান। মঙ্গলবার বাদে এশা তার নামাজে জানাজা শেষে বদরশাহ (র.) মাজার সংলগ্ন কবরস্থানে দাফন করা হয়।

ছড়া দিয়ে মামুনের লেখার হাতেখড়ি হলেও কিশোর কবিতা, গল্প, উপন্যাস ছাড়াও বড়দের জন্যও লিখেছেন। চট্টগ্রামের প্রতিনিধিত্বকারী সংগঠন স্বকাল শিশুসাহিত্য সংসদ ও চট্টগ্রাম একাডেমির প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে সম্পৃক্ত ছিলেন। প্রথম জাতীয় ছড়া উৎসব, কিশোর কবিতা সম্মেলনসহ শিশুসাহিত্যের নানা কর্মসূচিতে তিনি সরব ভূমিকা রেখেছেন। তিনি মাসিক আন্দরকিল্লা, শিশুকিশোর মাসিক কথনসহ বিভিন্ন প্রকাশনার সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। তার ১৫টি বই প্রকাশিত হয়েছে। সর্বশেষ তার সাড়ে তিন দশক লেখালেখি নিয়ে একটি স্মারক প্রকাশনার কাজ চলছিল। লেখালেখির স্বীকৃতি হিসাবে তিনি বিভিন্ন পুরস্কারেও ভূষিত হয়েছেন। গত ২১ সেপ্টেম্বর তিনি গ্রহণ করেছিলেন বাংলাদেশ শিশুসাহিত্য একাডেমি পুরস্কার।

রমজান আলী মামুনের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন চট্টগ্রাম একাডেমির চেয়ারম্যান, খ্যাতিমান সমাজবিজ্ঞানী ড. অনুপম সেন, মহাপরিচালক অরুণ শীল, বাংলাদেশ শিশুসাহিত্য একাডেমির পরিচালক শিশুসাহিত্যিক রাশেদ রউফ, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) যুগ্ম মহাসচিব মহসীন কাজী, স্বকাল শিশুসাহিত্য সংসদের পরিচালক আজিজ রাহমান, ইফতেখার মারুফ, আবুল কালাম বেলাল, স্বাধীন সাংস্কৃতিক একাডেমির চেয়ারম্যান কবি হৃদয় হাসান। তারা শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানিয়েছেন।

শোকসভা বুধবার

বাংলাদেশ শিশুসাহিত্য একাডেমির উদ্যোগে বুধবার (২৫ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টায় শোকসভা অনুষ্ঠিত হবে। মোমিন রোডের কদম মোবারক বাই লেনের চট্টগ্রাম একাডেমি মিলনায়তনে অনুষ্ঠেয় শোকসভায় আগ্রহীদের উপস্থিত থাকতে অনুরোধ জানানো হয়েছে।