রাউজানের বিভিন্ন এলাকায় কৃষি জমি ভরাট করে ঘরবাড়ী

0
63

শফিউল আলম, রাউজান প্রতিনিধিঃ

রাউজান উপজেলার ১৪ টি ইউনিয়ন ও পৌর এলাকার ৯টি ওয়ার্ডে কৃষি জমি ভরাট করে ঘরবাড়ী নির্মান ও ব্যবসা প্রতিষ্টান নির্মান করার হিড়িক পড়েছে । রাউজানের পাহাড়ী এলাকার পাহাড় টিলা, ফসলী জমির মাটি এসকেভেটার দিয়ে কেটে প্রতিদিন রাতে ড্রাম ট্রাকযোগে রাউজানের ুিবভিন্ন এলাকায় ফসলী জমি পাহাড় ও টিলা কাটা মাটি দিয়ে ভরাট করা হচ্ছে । কৃষি জমিতে মাটি ভরাট করার পর নির্মান করা হচ্ছে ঘরবাড়ী, ব্যবসা প্রতিষ্টান ।কৃষি জমি ভরাট করে ঘরবাড়ী ও ব্যবসা প্রতিষ্টান নির্মানে সরকারের কঠোর নির্দেশনা থাকা সত্বেও রাউজানের সাংসদ ফজলে কমি চৌধুরীর কাঠোর নির্দেশনা রয়েছে কৃষি জমি ভরাট করা যাবেনা । সরকার ও সাংসদের নিদের্শকে অমান্য করে রাউজানের বিভিন্ন এলাকায় কৃষি জমি ভরাট করা হচ্ছে । রাউজান উপজেলার হলদিয়া ইউনিয়নের উত্তর সর্তা, এয়াসিন নগর, হলদিয়া, জানিপাথর, ডাবুয়া ইউনিয়নের পশ্চিম ডাবুয়া, কেউকদাইর, পুর্ব ডাবুয়া, হাসান খীল, হিংগলা, দক্ষিন হিংগলা, কলমপতি, কান্দি পাড়া, চিকদইর ইউনিয়নের পাঠান পাড়া, দক্ষিন সর্তা, গহিরা ইউনিয়নের দলই নগর, কোতোয়ালী ঘোনা, নোয়াজিশপুর ইউনিয়নের ফতেহ নগর, নদীম পুর, পশ্চিম ফতেহ নগর, রাউজান পৌরসভার পশ্চিম গহিরা, গহিরা মোবারক খীল, পুর্ব গহিরা, জানালী হাট, সুলতানপুর কাজী পাড়া, রেরুলিয়া, সুলতানপুর ছিটিয়া পাড়া, পালিত পাড়া, দাশ পাড়া, সাপলঙ্গা, দলিলাবাদ, সাহানগর, ছত্র পাড়া, ঢেউয়া পাড়া, হাজী পাড়া, পশ্চিম রাউজান, আইলী খীল, ওয়াহেদেল খীল, পুর্ব রাউজান, ঢালার মুখ, বিনাজুরী ইউনিয়নের ইদিলপুর, লেলাঙ্গারা, পশ্চিম বিনাজুরী, জাম্বইন, ৭নং রাউজান ইউনিয়নের পুর্ব রাউজান, রানী পাড়া, কেউটিয়া, রশিদর পাড়া, জয়নগর বড়ুয়া পাড়া, খলিলাবাদ, হরিশখান পাড়া, মোহাম্মদপুর, মঙ্গলখালী, পশ্চিম রাউজান, কদলপুর ইউনিয়নের শমশের পাড়া, ভোমর পাড়া, ভট্টপাড়া, পশ্চিম কদলপুর, পাহাড়তলী ইউনিয়নের উনসত্তর পাড়া, খৈয়াখালী, খান পাড়া, শেখ পাড়া, মহামুনি, দেওয়ারন পুর, বদু পাড়া, পুর্ব গুজরা ইউনিয়নের উত্তর গুজরা, আধার মানিক, বড়ঠাকুর পাড়া, সাতবাড়িয়া, হোয়ারা পাড়া, পশ্চিম গুজরা ইউনিয়নের কাগতিয়া, কাসেম নগর, গোলজার পাড়া, ডোমখালী, মগদাই, বদুমুন্সিপাড়া, মীরধার পাড়া, উরকিরচর ইউনিয়নের আবুর খীল, খলিফার ঘোনা, মীরা পাড়া, হারপাড়া, মইশকরম, নোয়াপাড়া ইউনিয়নের কচুখাইন, সামমাহলদার পাড়া, উভলং, পালোয়ান পাড়া, শেখ পাড়া, পটিয়া পাড়া, বাগোয়ান ইউনিয়নের গশ্চি, কোয়োপাড়া, পাচখাইন এলাকায় অপরিকল্পিত ভাবে কৃষি জমি ভরাট করে ঘরবাড়ী ও ব্যবসা প্রতিষ্টান গড়ে উঠেছে । প্রতিদিন নতুন করে বিভিন্ন এলাকায় কৃষি জমি পাহাড় ও টিলা কাটা মাটি ও হালদা নদী, কর্ণফুলী নদী, ডাবুয়া ও সর্তা খাল, খাসখালী খাল থেকে উত্তোলন করা বালু দিয়ে ভরাট করা হচ্ছে । অপরিকল্পিতভাবে কৃষি জমি ভরাট করে ঘরবাড়ী ও ব্যবসা প্রতিষ্টান নির্মান করায় ফসলীূ জমির পরিমাণ কমছে অপরদিকে পানি চলাচলের পথ বন্দ্ব করে ঘরবাড়ী ও ব্যবসা প্রতিষ্টান নির্মান করায় বর্ষার মৌসুমে পানি চলাচলে প্রতিবন্দকতা সৃষ্টি হয়ে প্রতি বৎসর বর্ষার মৌসুমে জলবদ্বতা সৃষ্টি হয়ে এলাকার বাসিন্দ্বাদের ঘরবাড়ী, ব্যসা প্রতিষ্টান ও জনগনের চলাচলের সড়কগুলো পানিতে ডুবে গিয়ে সাধারন মানুষের চরম দুভোর্গে সৃষ্টি হচ্ছে ও ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হচ্ছে । কৃষি জমিতে আবাসন গড়ে না তোলার জন্য সরকারের কাঠোর নির্দেশনা মোতাবেক ঘরবাড়ী ও ব্যবসা প্রতিষ্টান নির্মান করার পুর্বে রাউজান উপজেলা নির্বাহী অফিসার জেনায়েদ কবির সোহাগের নেতৃত্বে এওকটি কমিটি গঠন করা হয়েছে । কৃষি জমিতে ঘর বাড়ী ও ব্যবসা প্রতিষ্টান নির্মান বিষয়ে দু একটি ঘরবাড়ী নির্মানের অনুমতি নেওয়া হলে ও প্রতিদিন ব্যাপক হারে কৃষি জমি ভরাট করে ঘরবাড়ী নির্মান করলে ও উপজেলা নির্বাহিী অফিসারের নেতৃত্বে গঠিত কমিটির কাছ থেকে কোন অনুমতি নেওয়া হয়নি বলে সংশ্লিস্ট সুত্র জানায় । গত ১৩ ফেব্রুযারী বৃহস্পতিবার রাউজান উপজেলা আইন শৃংখলা কমিটির সভায় রাউজানের সাংসদ এবি এম ফজলে করিম চৌধুরী কৃষি জমি ভরাট করে ঘরবাড়ী নির্মান করার কাজে প্রতিরোধ করার জন্য রাউজান উপজেলা নির্বাহী অফিসার জেনায়েদ কবির সোহাগ, রাউজান উপজেলা কৃষি অফিসারকে নির্দেশ প্রদান করেন । উপজেলা আইন শৃংখলা কমিটির সভায় কৃষি জমিতে নির্মান করা ঘরবাড়ী ও ব্যবসা প্রতিষ্টানে নতুন করে বিদ্যুৎ লাইনের সংযোগ না দেওয়ার জন্য নির্দেশ দেয় চট্টগ্রাম পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি ২ এর জেনারেল ম্যানেজার এস এম আবুল কালাম আজাদকে । রাউজান উপজেলা উপ সহকারী কৃুিষ কর্মকর্তা বর্তমানে ভারপ্রাপ্ত কৃষি অফিসার সনজিব কুমার সুশীল জানান রাউজানের ১৪টি ইউনিয়ন ও পৌর এলাকায় ১৪হাজার হেক্টর আবাদী ফসলী জমি ছিল । কৃষি জমি ভরাট করে ঘরবাড়ী, ব্যবসা প্রতিষ্টান নির্মানর করায় কৃষি জমির পরিমান কমে বর্তমানে ১৩ হাজার ৮ হেক্টর আবাদী কৃষি জমি রয়েছে । এলাকার লোকজনের কাছ থেকে পাওয়া তথ্যে উপজেলা কৃষি অফিসের দেওয়া তথ্যের চেয়ে আরো বেশী পরিমান জমি কমেছে কৃষি জমি ভরাট করে ঘরবাড়ী, ব্যবসা প্রতিষ্টান নির্মান করায় । রাউজান উপজেলা নির্বাহী অফিসার জেনায়েদ কবির সোহাগ বলেন, কৃষি জমি ভরাট করে ঘরবাড়ী নির্মান ও ব্যবসা প্রতিষ্টান নির্মান করা যাবেনা । কৃষি জমি ভরাট কারীদের বিরুদ্বে অভিযাণ পরিচালনা করে বিরুদ্বে ব্যবস্থা নেওয়া হবে ।