রাউজান পৌরসভার সাবেক কমিশনার জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরী আর নাই

0
94

আজ শনিবার সকাল ৮ টায় রাউজান পৌরসভার সাবেক কমিশনার জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরী নগরীর এক বেসরকারী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গিয়েছেন। মৃত্যু কালে বয়স হয়েছিল তার ৪৮ বছর। তিনি স্ত্রী, ২ছেলে, ১ মেয়ে সহ অনেক বন্ধু বান্ধব, আত্মীয় স্বজন, রাজনৈতিক সহকর্মী রেখে যান।আজ শনিবার বাদে মগরিব নামাজের জানাজা শেষে রাউজান জানালিহাট পার্শ্বস্হ পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হবে।
রাউজান পৌরসভার ৪ নং ওয়ার্ড সুলতানপুর অংশের কমিশনার ছিলেন একাধারে ২০০৪ সাল থেকে ২০১৬ সাল পর্যন্ত। যা পরবর্তীতে ওয়ার্ড কাউন্সিলর। সাম্প্রতিক কাল ধরে খুবই অসুস্থ ছিলেন। তাঁর শরীরের দুটো কিডনি নিয়ে জটিল রোগে আক্রান্ত ছিল। জাহাঙ্গীর আলম কমিশনার পরিবারের ২ ভাই ও ৫ বোনের মধ্যে মেজ, দুই ভাইয়ের মধ্যে বড়। বয়স প্রায় ৪৮ বছর। ব্যক্তি জীবনে ২ ছেলে ও ১ মেয়ে সন্তানের জনক। এক ছেলে নবম শ্রেণীতে, অন্যটা ষষ্ঠ শ্রেণীতে। আদরের মেয়েটির বয়স মাত্র ৩ বছর।
তিনি একাধারে সমাজ কর্মী এবং রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বও। সাদাসিধে জীবনযাপনকারী জাহাঙ্গীর আলম কমিশনার ব্যক্তি জীবনে বিএনপির সাথে জড়িত থাকলেও রাউজানের পৌরসভার দলমত নির্বিশেষে সকলের সাথে তার সুসম্পর্ক ছিল।
আমার এই প্রিয় মানুষটির অকাল মৃত্যুতে আমি খুবই দুঃখিত, ব্যথিত ও মর্মাহত। আমি প্রিয় জাহাঙ্গীর ভাইয়ের বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করে শোকাহত পরিবারের সকলের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করছি।
গোলাম আকবর খোন্দকারের শোক
চট্টগ্রাম উত্তর জেলা যুবদলের সহ সভাপতি, রাউজান পৌরসভা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক ও উপজেলা বিএনপির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক, রাউজান পৌরসভার ৪ নং ওয়ার্ডের সাবেক কমিশনার স্নেহের জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরীর অকাল মৃত্যুতে বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা ও সাবেক রাষ্ট্রদূত জননেতা গোলাম আকবর খোন্দকার এক বিবৃতিতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন।
বিবৃতিতে তিনি অকাল প্রয়াত রাজনৈতিক সহকর্মী জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরীর শোকাবহ পরিবারের সকল সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করে প্রয়াতের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করেছেন।।