‘রামপাল বিদ্যুৎকেন্দ্রের সমালোচনাকারীরা জ্ঞানপাপী’-প্রধানমন্ত্রী

0
5

প্রধানমন্ত্রীবহুল আলোচিত রামপাল মৈত্রী সুপার থারমাল পাওয়ার প্রকল্প উদ্বোধন কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় বসেই। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং শনিবার সকাল সাড়ে ১১টার দিকে সুইচ টিপে ভিত্তিপ্রস্তর নামফলক উন্মোচন করেন। তেল-গ্যাস-বিদ্যুৎ-বন্দর ও খনিজ সম্পদ রক্ষা কমিটি এবং বিরোধী দলীয় নেতা খালেদা জিয়ার রামপাল বিদ্যুৎ কেন্দ্র প্রতিহত করার ঘোষণা, প্রতিবাদ ও বিক্ষোভ উপেক্ষা করে তারা প্রকল্পটির উদ্বোধন করেন। এ সময় তিনি বাংলাদেশ-ভারত ৯৮ কিলোমিটার বিদ্যুৎ সঞ্চালন লাইন উদ্বোধন ও ভেড়ামারায় নির্মাণাধীন ৩৬০ মেগাওয়াট কম্বাইন্ড সাইকেল বিদ্যুৎ কেন্দ্র’র ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন। একই সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্স’র মাধ্যমে প্রকল্প দুটি উদ্বোধন করেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী ড. মনমোহন সিং।
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রামপালে মৈত্রী সুপার থারমাল পাওয়ার প্রকল্প (কয়লাভিত্তিক)’র প্রসঙ্গ টেনে এনে বলেন, পরিবেশের ক্ষতি হবে এমন কোন কাজ করবে না সরকার। কেউ কেউ পানি ঘোলা করার চেষ্টা করছে। রামপাল বিদ্যুৎ কেন্দ্র যাতে পরিবেশের ক্ষতি না করে, সেজন্য সর্বোচ্চ ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। বায়ু ও পানি দূষণ রোধে উন্নতমানের কয়লা ব্যবহার করা হবে। দিনাজপুরেও রয়েছে কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র। সেখানে কোন সমস্যা নেই। অথচ যারা বলে রামপালে কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপন হলে সুন্দরবনসহ এলাকার ক্ষতি হবে তারা জ্ঞান পাপী ছাড়া কিছু নয়। তিনি বলেন, বিদ্যুৎকেন্দ্রটি হলে সুন্দরবনের কোন ক্ষতি হবে না। আওয়ামী লীগ সরকার বাংলাদেশের জীব বৈচিত্র ও সুন্দরবন রক্ষায় বদ্ধপরিকর।