রোহিঙ্গা কিশোরীকে ধর্ষণের ঘটনায় তদন্ত কমিটি গঠন

0
18
কায়সার হামিদ মানিক,উখিয়া।
কক্সবাজারের টেকনাফের নয়াপাড়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পে সেনা সদস্য কর্তৃক কথিত এক রোহিঙ্গা কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগ তদন্তে সেনা সদর দপ্তর থেকে উচ্চপর্যায়ের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।শুক্রবার রাতে আইএসপিআর থেকে এ তথ্য জানানো হয়েছে।
আইএসপিআর সূত্র জানায়, গত ২৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯ তারিখে নয়াপাড়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পে সেনা সদস্য কর্তৃক একজন রোহিঙ্গা কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগ সেনা সদর দপ্তর অত্যন্ত গুরুত্বের সঙ্গে গ্রহণ করেছে। এ অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে সেনাবাহিনী কর্তৃক একটি উচ্চ পর্যায়ের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। তদন্তে অভিযোগ প্রমাণিত হলে অপরাধী ব্যক্তি/ব্যক্তিবর্গের বিরুদ্ধে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
রোহিঙ্গাদের পরিচালিত একটি ওয়েবসাইট ‘রোহিঙ্গা ভিশন ডট কম’-এ প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে ধর্ষণের এই অভিযোগ সম্পর্কে জানা যায়। প্রতিবেদনটিতে ধর্ষণের ঘটনাটি ঘটার সময় উল্লেখ করা হয়েছে গত ২৯ সেপ্টেম্বর রোববার সন্ধ্যা সাড়ে সাতটা।
এতে বলা হয়, দুইজন কিশোরী তাদের ঘরের মধ্যে খেলা করছিল। সেই সময় বাংলাদেশের সেনা বাহিনীর দুইজন সদস্য এদের একজনকে রান্নাঘরে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করে। সেনা সদস্যরা স্থান ত্যাগ করার পরে প্রতিবেশীরা কিশোরীটিকে নিয়ে স্থানীয় স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্রে যায়। পরে তাকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়।
ঐ সময় যৌথ বাহিনীর যে নিয়মিত টহল হয় সেই দল ঐখানে টহল দিচ্ছিল বলে বিবিসি গত ৩ অক্টোবর জানায়। এদিকে শুক্রবার রোহিঙ্গাদের ইউটিউব চ্যানেল রোহিঙ্গা ন্যাশনাল নিউজ-আরএনএন বাংলাদেশ ও দেশটির কর্তৃপক্ষকে নানা ধরনের ব্যঙ্গ করে সংবাদ প্রচার করে। এতে কথিত ধর্ষিতা রোহিঙ্গা কিশোরীর মুখে বাংলাদেশের জাতীয় পতাকা সেটে ঐ ইউটিউব চ্যানেল ও তাদের অনলাইন নিউজ পোর্টালে প্রচার করে। রোহিঙ্গাদের এধরনের বাংলাদেশ বিরোধী অপপ্রচারে স্থানীয় লোকজনের মাঝে ক্ষোভ প্রকাশ করেন।