শক্তিশালী প্রসেসর চান দেশের স্মার্টফোন ক্রেতারা

0
48

স্মার্টফোন কেনার ক্ষেত্রে প্রসেসরে প্রাধান্য দেন দেশের ব্যবহারকারীরা। একটা সময় এই প্রাধান্য ছিল স্টোরেজে, র‍্যামে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পরিচালিত একটা ‘অনানুষ্ঠানিক জরিপে’ এমন তথ্য উঠে এসেছে।

টেকশহরডটকম সামাজিক মাধ্যমে ক্রেতাদের কাছে জানতে চেয়েছিল, তারা স্মার্টফোন কেনার ক্ষেত্রে কোন বিষয়গুলোকে প্রাধান্য দেন।

সেই প্রশ্নের উত্তরে শতাধিক স্মার্টফোন ব্যবহারকারী অংশ নেন। তার মধ্যে থেকে উত্তরের সংশ্লিষ্টতার ভিত্তিকে ৮২ জনকে বেছে নেওয়া হয়। তাদের দেওয়া প্রথম, দ্বিতীয়, তৃতীয় ও চতুর্থ বিষয়কে স্মার্টফোন কেনার ক্ষেত্রে প্রাধান্য হিসেবে ধরা হয়েছে।

অংশগ্রহণকারীদের তিনদিন পর্যন্ত সময় দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে যারা এর উত্তরে অংশ নিয়েছেন তাদেরকে তালিকায় যুক্ত করা হয়েছে।

নতুন করে স্মার্টফোন কিনতে গেলে অন্তত ৩৫ শতাংশই প্রসেসরকে প্রাধান্য দেবার কথা জানিয়েছেন। এটা তাদের প্রথম প্রাধান্য।

এর পরেই ১৫ শতাংশ সম্ভাব্য ক্রেতারা ফোনের পাওয়ার ব্যাকআপের জন্য ব্যাটারিকে প্রাধান্য দেবার কথা জানিয়েছেন।

বর্তমানে স্মার্টফোন প্রতিষ্ঠানগুলো তাদের ক্যামেরাতে খুব বেশি নজর দিয়েছে। ফলে নতুন করে ক্যামেরায় একটা বিপ্লব আনার চেষ্টাও করছে। যে ক্যামেরা এক সময় ভিজিএ প্রযুক্তির ছিল সেটি এখন বাড়তে বাড়তে হয়েছে ৪, ৮, ১২, ১৬, ২০, ৩২, ৪৮, ১০৮ মেগাপিক্সেল পর্যন্ত।

আবার এসব ক্যামেরা সিঙ্গেল থেকে ডুয়েল, ট্রিপল, কোয়াড, পঞ্চম পর্যন্ত হয়েছে। অথচ মাত্র ১২ শতাংশ মনে করছেন তারা স্মার্টফোন কেনার সময় ক্যামেরাকে প্রাধান্য দেয়।

স্মার্টফোনে গেইমিং এখন খুব বেশি হচ্ছে। শিশু থেকে শুরু করে বৃদ্ধ সবাই কমবেশি এখন স্মার্টফোনে ভিডিও গেইম খেলছেন। অনেক প্রতিষ্ঠান তাই গেইমিংকে লক্ষ্য করেই তাদের স্মার্টফোন বাজারে ছাড়ছেন।

ওই জরিপে অংশ নেওয়া অনেকেই বলেছেন তাদের স্মার্টফোনে ভিডিও গেইম খেলার জন্য শক্তিশালী প্রসেসর চাই। আবার তারা প্রসেসরের পাশাপাশি র‍্যাম ও পারফরমেন্সকে প্রাধান্য দেবার কথা বলেছেন। অংশ নেওয়াদের মধ্যে স্মার্টফোন কেনার সময় মাত্র ৪ শতাংশ পারফরমেন্স এবং র‍্যামকে প্রাধান্য দেয় বলে জানিয়েছেন।

সম্ভাব্য ক্রেতারা স্মার্টফোন কেনার ক্ষেত্রে সফটওয়্যার, ইউআই, ফাস্ট চার্জিং, ব্লুটুথ, ফোনের দাম এমনকি স্টোরেজকে খুব একটা প্রাধান্য দেন না।

তবে অনেকেই অবশ্য স্মার্টফোনের স্পেসিফিকেশনের বদলে স্মার্টফোন ব্র্যান্ডের দিকে বেশি নজর দেবার কথাও জানিয়েছেন। অন্তত ৮ শতাংশ জানিয়েছেন তারা স্মার্টফোন কেনার ক্ষেত্রে ব্র্যান্ডকে প্রাধান্য দেন। তারপরই স্পেসিফিকেশন দেখেন তারা।