‘‘শহীদ মুরিদুল আলমের আত্মত্যাগ আমাদেরকে ঋণী করে গেছে’’

0
123

চট্টগ্রাম কলেজ প্রাক্তন ছাত্রলীগ পরিষদের উদ্যোগে চট্টগ্রাম কলেজ ছাত্র সংসদের প্রথম নির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক, জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর স্নেহধন্য ছাত্রনেতা, বীর মুক্তিযোদ্ধা শহীদ মুরিদুল আলমের মৃত্যুবার্ষিকী স্মরণে এক আলোচনা সভা গত ২৯ সেপ্টেম্বর সন্ধা ৭টায় পরিষদের সভাপতি বিএমএ এর কেন্দ্রীয় সহ সভাপতি ডাঃ শেখ শফিউল আজমের সভাপতিত্বে চট্টগ্রাম রেডক্রিসেন্ট কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়। পরিষদের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক অলিদ চৌধুরীর পরিচালনায় এতে আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক জাফর আহমদ, শহীদ মুরিদুল আলমের জৈষ্ঠপুত্র, দক্ষিণজেলা আওয়ামীলীগের সদস্য মাহবুবুর রহমান শিবলী, পরিষদের সহ সভাপতি এড. কামরুন নাহার, সহ সভাপতি নিবেন্দু বিকাশ চৌধুরী, পাঠানটুলী ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আবদুল হান্নান, পরিষদের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক লিয়াকত আলী খান, হামিদ হোসাইন, সৈয়দ মোহাম্মদ মুসা, আমিনুল করিম, আবদুর রহমান, এয়াকুব চৌধুরী, মোঃ আল হাসান, আনোয়ারুল আজিম, আসিফ ইকবাল, রুবেল হোসেন নীল, আবদুল হান্নান প্রমুখ। সভায় বক্তারা বলেন বঙ্গবন্ধু ঘোষিত ৬৬ এর ৬ দফা দাবির প্রতি জনগণকে ঐক্যবদ্ধ করতে নিরলস পরিশ্রম করেছেন। ’৬৯ এর গণঅভ্যুথানকালীন সময়ে তার নেতৃত্ব ছিল প্রশ্নাতীত। ’৭০ এর নির্বাচনে তিনি বৃহত্তর চট্টগ্রামের নির্বাচনী কার্যক্রমে সমস্ত অঞ্চল আওয়ামীলীগের প্রচার সেলের কার্যকর কর্মকর্তা হিসেবে চষে বেড়িয়েছেন। ছাত্রসমাজে তার পরিচ্ছন্ন ভাবমুর্তি তাকে বহুল জনপ্রিয় করে তুলেছিলেন। তিনি ছিলেন একাধারে একজন মুক্তিযোদ্ধা, পরিচ্ছন্ন চরিত্রের অধিকারী, সাহসী ও দৃঢচেতার মানুষ। মহান মুক্তিযুদ্ধে শাহজাহান ইসলামাবাদী ও মুরিদুল আলমের যৌথ প্রচেষ্ঠায় চট্টগ্রাম শহর থেকে দক্ষিণ চট্টগ্রাম তথা বর্তমান কক্সবাজার জেলা পর্যন্ত মুক্তিযুদ্ধের সমন্বয় করেছিলেন। তাদের সৃষ্ট বিশাল বাহিনীর ভয়ে পাকিস্তানী হানাদার বাহিনীও তাদের দোসরেরা প্রতিনিয়ত তটস্ত থাকতেন। এ মুক্তিযোদ্ধা তদান্তীন পটিয়ার বর্তমান চন্দনাইশে জন্ম গ্রহণ করেছিলেন। বহু বিপ্লবীর জন্মস্থান বরমা ইউনিয়ন, যেখানে যতীন্দ্র মোহন সেন, যাত্রা মোহন সেন, মৌলানা মনিরুজ্জামান ইসলামাবাদী, প্রিন্সিপাল আবুল কাসেম জন্ম নিয়েছে। তাঁদেরই উত্তরসুরী হিসেবে শহীদ মুরিদুল আলম স্থান করে নিতে চেষ্ঠা করেছেন। কিন্তু আমাদের চট্টগ্রামবাসীর দুর্ভাগ্য মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় মিশনে বাঁশখালী যাওয়ার সময় তিনি সন্মুখ সমরে শহীদ হন। আমরা চট্টগ্রাম কলেজ প্রাক্তন ছাত্রলীগ পরিষদ চায় চট্টগ্রাম কলেজে তার স্মৃতি রক্ষার্থে চট্টগ্রাম কলেজ অডিটোরিয়ামকে তার নামে নামকরণ করা হোক। আমরা তাঁর আতœার মাগফেরাত কামনা করছি।