সাংবাদিক আজাদ তালুকদারকে প্রকাশ্যে মেরে ফেলার হুমকি

0
155

চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া উপজেলা যুবলীগের ব্যানারে আয়োজিত সমাবেশ থেকে একুশে পত্রিকা সম্পাদক আজাদ তালুকদারকে প্রকাশ্যে মেরে ফেলার হুমকি দেয়া হয়েছে। সেখানে উপজেলা যুবলীগ সভাপতি আরজু সিকদার একুশে পত্রিকা সম্পাদককে আক্রমণ করে প্রায় ৬ মিনিটের বক্তব্য দেন। পুরো বক্তৃতাজুড়ে ছিল আজাদ তালুকদারকে মেরে ফেলা, কেটে ফেলার হুমকি। এ ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জানিয়েছেন চট্টগ্রামের সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ।

একুশে পত্রিকা সম্পাদককে হুমকি দেওয়ার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সহ সভাপতি রিয়াজ হায়দার চৌধুরী, যুগ্ম মহাসচিব মহসীন কাজী, চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি নাজিমুদ্দীন শ্যামল, সাধারণ সম্পাদক হাসান ফেরদৌস, চট্টগ্রাম রিপোর্টার্স ফোরামের সভাপতি কাজী আবুল মনসুর, সাধারণ সম্পাদক আলীউর রহমান, চট্টগ্রাম টিভি জার্নালিস্ট এসোসিয়েশনের সভাপতি নাসির উদ্দিন তোতা, সাধারণ সম্পাদক লতিফা আনসারী রুনা, টিভি ক্যামেরা জার্নালিস্ট এসোসিয়েশন, চট্টগ্রামের সভাপতি শফিক আহামদ সাজীব ও সাধারণ সম্পাদক শামসুল ইসলাম বাবু।

বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) সহ সভাপতি রিয়াজ হায়দার চৌধুরী ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়ে বলেন, প্রধানমন্ত্রী দুর্নীতির বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স ঘোষণা করেছেন। দলের নাম ব্যবহার করে সন্ত্রাস সৃষ্টিকারী, দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে দলীয় ও সরকারী সিদ্ধান্ত হয়েছে। এমন অবস্থায় একজন সাংবাদিককে হুমকি সরকার ও দলের প্রতি চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দেয়ার মতো। উপজেলা যুবলীগ সভাপতি হওয়ার মতো যোগ্যতা আরজু সিকদারের আছে কিনা সেটাই এখন প্রশ্ন হয়ে দাঁড়িয়েছে।

বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) যুগ্ম মহাসচিব মহসীন কাজী বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার সাংবাদিকবান্ধব সরকার। সাংবাদিককে হুমকি দিয়ে গণমাধ্যমে সরকারের অর্জনকে ধুলিসাৎ করে দিতে চায় আরজু সিকদার। সাংবাদিকের ওপর কোনো ধরনের হুমকি বরদাশত করা হবে না। দ্রুত হুমকিদাতা আরজু সিকদারকে আইনের আওতায় আনার জন্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের (সিইউজে) সাধারণ সম্পাদক হাসান ফেরদৌস বলেন, আরজু সিকদারের মতো লোকরা বর্তমান সরকারের সবচেয়ে বড় ক্ষতি করছে। তাদের বিরুদ্ধে অবশ্যই অভিযান চালানো উচিত। আমরা চাই, আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় থাকুক। আরজু সিকদারের মতো যারা এ ধরনের কর্মকাণ্ড চালিয়ে সরকারের ভাবমূর্তি করছে, তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানাই।

প্রসঙ্গত, বৃহস্পতিবার বিকেলে একুশে পত্রিকা সম্পাদককে সরাসরি আক্রমণ করে ‘রাঙ্গুনিয়া উপজেলা যুবলীগ নিয়ে কটূক্তিকারী’ উল্লেখ করে এবং দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করে রাঙ্গুনিয়া উপজেলা যুবলীগের ব্যানারে স্থানীয় ইছাখালী এলাকায় বিক্ষোভ সমাবেশ করে।