সাংবাদিক পুলক চক্রবর্তীর পিতা প্রিয়ব্রত চক্রবর্তীর পরলোকগমন

0
11

Rangamati-Pic-25-09-13দৈনিক গিরিদর্পণ পত্রিকার বার্তা সম্পাদক, বেসরকারী টিভি চ্যানেল এটিএন বাংলা ও এটিএন নিউজ ও দৈনিক নয়া দিগন্তের রাঙ্গামাটি প্রতিনিধি পুলক চক্রবর্তীর পিতা প্রিয়ব্রত চক্রবর্তী পরলোকগমন করেছেন। বুধবার সকালে বাধ্যর্ক জনিত রোগে রাঙ্গামাটি সদর হাসপাতালে শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭০ বৎসর। তিনি ২ পুত্র, পুত্র বধু ও বহু আত্মীয় স্বজন রেখে গেছেন। তার মৃত্যুর সংবাদ ছড়িয়ে পড়লে রাঙ্গামাটির সর্বত্র শোকের ছায়া নেমে আসে। তার মৃত্যুর সংবাদ ছড়িয়ে পড়লে রাঙ্গামাটি সদর হসপাতালে ও আসামবস্তী নিজ বাস ভবনে বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ তাঁকে শেষ বারের মতো শ্রদ্ধা জানাতে ছুটে যান। সকালে রাঙ্গামাটি জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান রাঙ্গামাটি সদর হাসপাতালে তাকে দেখতে যান এবং শ্রদ্ধা জানান। পরে আসামবস্তীর বাস ভবনে রাঙ্গামাটি জেলা বিএনপির সভাপতি এ্যাডভোকেট দীপেন দেওয়ান, দৈনিক গিরিদর্পণ সম্পাদক এ,কে,এম মকছুদ আহমেদ, দৈনিক রাঙ্গামাটির সম্পাদক আনোয়ার আল হক, রাঙ্গামাটি প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি ও পার্বত্য চট্টগ্রামের সর্বপ্রথম অনলাইন দৈনিক সিএইচটি নিউজ টোয়েন্টিফোর সম্পাদক শামসুল আলম, যুব ইউনিয়নের সভাপতি ডাঃ আশীষ দাশ, রাঙ্গামাটি প্রেসক্লাবের পক্ষ থেকে সাধারণ সম্পাদক মোঃ আলী ও অন্যান্য সদস্য বৃন্দ, রাঙ্গামাটি সাংবাদিক ফোরামের সদস্য বৃন্দ, রাঙ্গামাটি সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি মিল্টন বড়–য়া ও অন্যান্য সদস্য বৃন্দ সহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ তাঁকে শ্রদ্ধা জানান। গতকাল বিকালে রাঙ্গামাটির আসামবস্থী হিন্দু বৌদ্ধ মহা শ্মশানে তার দাহক্রিয়া সম্পন্ন করা হয়।
প্রিয়ব্রত চক্রবর্তী দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন বাধ্যর্ক জনিত রোগে ভুগছিলেন। স¤প্রতি চট্টগ্রামের একটি ক্লিনিকে তাঁর একটি বড় ধরনের অপারেশন হয়। এরপর থেকে তিনি অসুস্থ হয়ে পড়ে। গতকাল রাত থেকে তিনি শ্বাস কষ্ট অনুভব করে। গতকাল সকালে তার অবস্থার অবনতি হলে তাঁকে রাঙ্গামাটি সদর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। হাসপাতালে নেয়ার পর তিন মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে।
উল্লেখ্য, সাংবাদিক পুলক চক্রবর্তীর পিতা প্রিয়ব্রত চক্রবর্তী দীর্ঘ দিন ধরে রাঙ্গামাটিতে সরকারী চাকুরীতে নিয়োজিত ছিলেন। তিনি বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংকের অধীনে অফিসার হিসাবে রাঙ্গামাটি জেলার বিভিন্ন উপজেলায় চাকুরীরত ছিলেন। পরে তিনি অবসর গ্রহণ করে আসাবস্তীর নিজ বাড়ীতে অবস্থান করছিলেন।