“সাম্রাজ্যবাদের রক্তচক্ষুকে উপেক্ষা করে কোরিয়া তার অভীষ্ট লক্ষ্যের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে”

0
33

আজ ২২ ফেব্রুয়ারী শনিবার বিকাল ৪ টায় জামাল খানস্থ চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাব ইঞ্জিনিয়ার আব্দুল খালেক মিলনায়তনে বাংলাদেশ কোরিয়া মৈত্রী সমিতি এবং সলিডারিটি চট্টগ্রাম শাখা এবং বাংলাদেশ ইনষ্টিটিউট অব জুচে আইডিয়া এর যৌথ উদ্যেগে কোরিয়ার প্রয়াত মহান নেতা কমরেড কিম জং ইল এর ৭৮ তম জন্ম বার্ষিকী উপলক্ষে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। বাংলাদেশ কোরিয়া মৈত্রী সমিতি এবং সলিডারিটি চট্টগ্রাম শাখার সভাপতি এড. জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন, বাংলাদেশস্থ কোরিয়ার মহামান্য রাষ্ট্রদূত মি. পাক সং ইয়প। আলোচনা সভায় সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, ইস্ট ডেল্টা ইউনিভার্সিটির ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর মোঃ সিকান্দর খান, বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব জুচে আইডিয়ার চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ রফিকুল ইসলাম বাবলু, এডভোকেট কবির চৌধুরী, প্রফেসর হায়াত হোসেন, প্রফেসর ড. মোঃ হেলাল উদ্দিন, বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব জুচে আইডিয়ার চট্টগ্রাম শাখার প্রধান উপদেষ্টা মোজাম্মেল হক, আমিনুল ইসলাম সেলিম, মুসা সিকদার। বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ ইনষ্টিটিউট অব জুচে আইডিয়া চট্টগ্রাম শাখার সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মাহমুদ নুর ও বাংলাদেশ কোরিয়া মৈত্রী সমিতি এবং সলিডারিটি চট্টগ্রাম শাখার সাধারণ সম্পাদক আবু বক্কর সিদ্দিকী, মহসীন কবীর আপেল, অধ্যাপক জিয়াউদ্দিন বাবলু, রাজনীতিবিদ ও লেখক এম এ সাত্তার, এডভোকেট আবদুল মালেক, এডভোকেট ফরিদা আখতার, মিসেস জান্নাতুল ফেরদৌস, মিসেস সায়মা হক, এডভোকেট ভৌমিক, মোঃ গিয়াসউদ্দিন, মোঃ সেলিম নুর প্রমুখ নেতৃবৃন্দ। আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি বাংলাদেশস্থ কোরিয়ার মহামান্য রাষ্ট্রদূত মি. পাক সং ইয়প বাংলাদেশী জনগণের ভূয়সী প্রশংসা করে বলেন, বাংলাদেশের সংগ্রামী মানুষ ১৯৫২ সালে ভাষার জন্য সংগ্রাম এবং ১৯৭১ সালে স্বাধীনতার জন্য সংগ্রাম করে স্বাধীনতা অর্জন করেন। এই দুইটি মহান আন্দোলনের ইতিহাস, রক্তাক্ত সংগ্রামের ইতিহাস। তিনি বলেন, কোরিয়ান জাতীর সংগ্রামের মধ্যে দিয়ে আজ মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়েছে। তিনি বলেন, কোরিয়ার ইতিহাস দীর্ঘ সংগ্রামের ইতিহাস। কোরিয়ান জনগণ দীর্ঘস্থায়ী যুদ্ধে সাম্রাজ্যবাদকে বিতাড়িত করে। তিনি বলেন, কোরিয়ার প্রয়াত মহান নেতা কমরেড কিম জং ইল এর নেতৃত্বে কোরিয়া আজ একটি শক্তিশালী রাষ্ট্র হিসেবে বিশে^ প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব জুচে আইডিয়ার চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ রফিকুল ইসলাম বাবলু বলেন, সম্রাজ্যবাদের রক্তচক্ষুকে উপেক্ষা করে কোরিয়া তার অভীষ্ট লক্ষ্যের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। তিনি বলেন, কিম জন ইলের প্রচেষ্ঠায় কোরিয়া সামরিক শক্তিতে অভূতপূর্ণ সাফল্য অর্জন করেছেন। কোরিয়া উপদ্বীপে শান্তি প্রতিষ্ঠায় কিম জন উনের ভূমিকা সারা বিশে^ প্রশংসিত হয়েছে। তিনি কোরিয়া থেকে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার এবং সীমান্ত থেকে মার্কিন সৈন্য অবিলম্বে প্রত্যাহারের দাবী জানান। আলোচনা সভায় বিভিন্ন স্তরের বিপুল সংখ্যক মানুষ উপস্থিত ছিলেন।