সেই রুপম কান্তির জামিন মঞ্জুর

0
35

আর্থিক লেনদেন সংক্রান্ত মামলায় কারাগারে ‘নির্যাতিত’ রুপম কান্তি দেবনাথের জামিন মঞ্জুর করেছেন আদালত।

বুধবার (৩ মার্চ)  মহানগর দায়রা জজ শেখ আশফাকুর রহমানের আদালত তাকে জামিন দেন।

আদালত সূত্রে জানা যায়, পূর্বপরিচিত রতন ভট্টাচার্যের সঙ্গে আর্থিক লেনদেন সংক্রান্ত মামলায় (জিআর মামলা নম্বর: ৩৩২/১৮) গত বছরের ১৫ ডিসেম্বর কারান্তরীণ হন নগরের পাহাড়তলীর বাসিন্দা রুপম কান্তি দেবনাথ।  রতন ও রুপম ব্যবসায়ীক অংশীদার। বর্তমানে রুপম চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে কারা কর্তৃপক্ষের অধীনে চিকিৎসাধীন।

বাদির আইনজীবী অ্যাডভোকেট বিশ্বজিৎ চক্রবর্তী সুমন বলেন, আদালতে রুপম কান্তির জন্য দুটি পিটিশন দিয়েছিলাম। আদালত জামিন শুনানি শেষে ১০ হাজার টাকা বন্ডে জামিন মঞ্জুর করেছেন।

চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগারে বৈদ্যুতিক শক ও বিষাক্ত ইনজেকশন পুশ করে নির্যাতনের অভিযোগে সোমবার (১ মার্চ) আদালতে নালিশি মামলা করেন রুপমের স্ত্রী ঝর্ণা রানী দেবনাথ। মামলায় জেল সুপার, জেলার, কারা হাসপাতালের চিকিৎসক ও রতন ভট্টাচার্যকে আসামি করা হয়।

মামলার অভিযোগে বলা হয়, নির্যাতনের খবর পেয়ে গত ২৫ ফেব্রুয়ারি বন্দি রুপম কান্তি দেবনাথের উন্নত চিকিৎসার জন্য আদালতে আবেদন করেন মামলার বাদি। আদালত আবেদনটি মঞ্জুরও করেন। বর্তমানে তিনি চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। তবে সেখানে আসামিরা নির্যাতনের আলামত লুকানোর চেষ্টা করে। বিষয়টি হাসপাতালের পরিচালককে জানানো হয়েছে। আসামি রতন ভট্টাচার্যের সঙ্গে আর্থিক লেনদেন সংক্রান্ত একটি মামলায় কারাগারে যান ভুক্তভোগী রুপম কান্তি দেবনাথ।

‘চলতি বছরের ২৪ ও ২৫ ফেব্রুয়ারি আসামিরা পরস্পর যোগসাজশে রুপমকে অন্যায়ভাবে বিচারাধীন মামলায় জোরপূর্বক স্বীকারোক্তি আদায়ের জন্য এবং স্থায়ীভাবে মানসিক ভারসাম্যহীন করার জন্য শারীরিক নির্যাতন, বিষাক্ত নেশাজাতীয় দ্রব্য পুশ ও বৈদ্যুতিক শক দিয়ে নির্যাতন করেছেন’।

তবে নির্যাতনের অভিযোগ অস্বীকার করে চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগারের জেলার রফিকুল ইসলাম জানান, অসুস্থ হওয়ার পর কারা হাসপাতালে ও চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয় ওই বন্দিকে। তাকে নির্যাতন করা হয়নি।

মঙলবার (২ মার্চ) চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট হোসেন মোহাম্মদ রেজার আদালত ওই নালিশি মামলা উপযুক্ত আদালতে দায়েরের নির্দেশ দেন।