স্যুয়ারেজ প্রকল্পের পরামর্শক নিয়োগ

0
33

তিন হাজার ৮০৮ কোটি ৫৮ লাখ ৭৭ হাজার টাকা ব্যয়ে চট্টগ্রাম ওয়াসা কর্তৃপক্ষ বাস্তবায়ন করতে যাচ্ছে স্যুয়ারেজ প্রকল্প। এ লক্ষ্যে শনিবার (২৩ নভেম্বর) প্রকল্পের পরামর্শক নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে।

ওয়াসা সূত্রে জানা গেছে, পুরো নগরকে ৬টি জোনে ভাগ করে এই প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হবে। প্রথম ধাপে ১১টি ওয়ার্ডের ২০ লাখ নগরবাসীর পয়ঃবর্জ্য স্যুয়ারেজ ব্যবস্থার আওতায় আনা হবে।

নগরের লালখান বাজার, আসকারদীঘি, কোতোয়ালী, ফিরিঙ্গিবাজার, সদরঘাট, চকবাজার, দক্ষিণ আগ্রাবাদ, সল্টগোলা ক্রসিং, উত্তর হালিশহর, নয়াবাজার, রামপুর, পাহাড়তলী ও আমবাগান এলাকায় প্রকল্পের আওতায় একটি পয়ঃশোধনাগার, প্রায় ৬ কিলোমিটার গভীর পয়ঃলাইন, ১৮৯ কিলোমিটার গ্রাভিটি পাইপ, তিন হাজার ৬২০টি ম্যানহোল চেম্বার, ৩.৩১ কিলোমিটার ফোর্স মেইন, ১৮৯ কিলোমিটার ইউটিলিটি রি-অ্যালাইনমেন্ট, ১৫টি পয়ঃপাম্প স্টেশন, ১৪৪ কিলোমিটার সার্ভিস লাইন, ৭২ হাজার ৫০২টি বাড়ির সংযোগ, ফিকেল স্ল্যাজ শোধনাগার ও অনসাইট স্যানিটেশন ব্যবস্থা করা হবে। ২০২৩ সালের জুনের মধ্যে পুরো প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করা হবে।

ওয়াসার তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী ও প্রকল্প পরিচালক মোহাম্মদ আরিফুল ইসলাম জানান, গত ২৩ অক্টোবর পরামর্শক প্রতিষ্ঠান নিয়োগের জন্য মন্ত্রণালয় থেকে অনুমোদন দেওয়া হয়। এরই প্রেক্ষিতে চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানের পাশাপাশি নগরের পয়ঃনিষ্কাশন ব্যবস্থা স্থাপন প্রকল্পের (প্রথম পর্যায়) কাজ শুরু হচ্ছে।

তিনি বলেন, স্যুয়ারেজ প্রকল্পের কারিগরি পরামর্শক প্রতিষ্ঠান মালয়েশিয়ান কোম্পানি এরিঙ্কো কোম্পানী, বাংলাদেশি প্রতিষ্ঠান বিইটিএস কনসালটিং সার্ভিস লিমিটেড, ডেভ কনসালট্যান্ট লিমিটেড ও ইন্সটিটিউট অব ওয়াটার মডেলিং (আইডব্লিউএম) এর সঙ্গে চুক্তি স্বাক্ষর করবে চট্টগ্রাম ওয়াসা।

ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী এ কে এম ফজলুল্লাহ বলেন, ‘পরামর্শক প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তি স্বাক্ষরের ৪-৬ মাসের মধ্যে টেন্ডার আহ্বান করা হবে’।

প্রকল্পটি ২০১৮ সালের ৭ নভেম্বর একনেকে অনুমোদন পায়। কাজ শেষ হলে চট্টগ্রাম শহরে এটিই হবে স্যুয়ারেজ বিষয়ে ওয়াসার প্রথম প্রকল্প। বাংলাদেশ সরকার ও ওয়াসার যৌথ অর্থায়নে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন হচ্ছে।