হাটহাজারীতে আব্দুস সালাম স্মৃতি শিক্ষাবৃত্তি প্রদান

0
29

 

দেশের যুব সমাজকে ধংশ ও মাদকের হাত থেকে রক্ষার জন্য শিক্ষার গুরুত্ব অপরিসীম। তাই বর্তমান সরকার শিক্ষা ক্ষেত্রে আরো উন্নত করতে নানা কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। সুতরাং শিক্ষার্থীদের লেখা পড়া করে সু-শিক্ষিত হয়ে দেশ ও জাতির কল্যানে অবদান রাখার কথা বলা হয়েছে। দেশকে বিশে^র সাথে প্রযুক্তি ক্ষেত্রে নের্তৃত্ব দিতে হলে বর্তমান প্রজন্মকে এগিয়ে আসতে হবে। তারই ধারাবাহিকতায় হাটহাজারীতেও প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে দক্ষ শিক্ষার্থী গড়ে তোলার জন্য আব্দুস সালাম ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে তথ্য প্রযুক্তির উপর কাজ করে যাচ্ছে। ফলে তথ্য প্রযুক্তিতে শিক্ষার্থীরা আগামীতে সুন্দর একটি দেশ উপহার দিবে। অনুষ্ঠানে একজন শিক্ষার্থী ফ্রিল্যান্স্ংি এর উপর স্কিল ডেভেলপমেন্ট করে ক্যারিয়ার গড়ার উপর ভক্তারা আলোচনা করেন। গতকাল রবিবার হাটহাজারী উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে আব্দুস সালাম স্মৃতি শিক্ষাবৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানে বক্তারা এসব কথা বলেন।
আব্দুস সালাম ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান মোঃ সালাহ উদ্দিন এর সভাপতিত্বে এবং সমন্বয় কমিটির সদস্য মোঃ শাহজাহান ও সার্ভেয়ার আবদুল্লাহ আল মামুন টিপুর যৌথ সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন হাটহাজারী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এস. এম রাশেদুল আলম। বিশেষ অতিথি ছিলেন হাটহাজারী বিশ^বিদ্যালয় কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ ও আব্দুস সালাম ফাউন্ডেশনের উপদেষ্টা ফরিদ আহমদ, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সংস্কৃত বিভাগের সভাপতি ড. শিপক কৃষ্ণ দেবনাথ, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা এম নিয়াজ মোর্শেদ, হাটহাজারী প্রেস ক্লাবের সভাপতি কেশব কুমার বড়–য়া, হাটহাজারী সরকারী কলেজের প্রভাষক আবু তালেব, ফ্রিল্যান্সার আসমিকা তাবাচ্ছুম মিথিলা, বীর মুক্তিযোদ্ধা এম দিদারুল আলম দুলাল, রেজাউল করিম বাবু, কামাল উদ্দিন আকাতার প্রমুখ।

প্রকৌশলী রিয়াজ মোর্শেদ এর স্বাগত বক্তব্যর পর অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন আবীর, রিফাত বিন রহমান, মাহমুদুল হাসান, সাজ্জাত, মামুন, মিজান, মেহেরাজ, ইসতিয়াক। ৩য় বারের মত অনুষ্ঠিত আব্দুস সালাম স্মৃতি বৃত্তি পরীক্ষায় হাটহাজারীর বিভিন্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ১৭৪০ জন শিক্ষার্থী অংশ গ্রহণ করে। তন্মধ্যে মোট ৪১ জনকে কৃতিত্বের স্মারকসহ সনদপত্র প্রদান করা হয় এবং তাদেরকে আইটি জোন কম্পিউটার ট্রেনিং ইনস্টিটিউটের অধীনে বিনামূল্যে তিন মাসের কম্পিউটার কোর্স প্রশিক্ষণ দেয়া হয়। এদের মধ্যে থেকে সেরা ৫ জন শিক্ষার্থীকে কৃতিত্বের স্মারক সহ গ্রাফিক্স ডিজাইন কোস পূণরায় বৃত্তি দেওয়া হয়।