হৃদয় ঠান্ডা করতে ঠান্ডাছড়ি

0
265

অনেকেই ঠান্ডাছড়ি চেনে না তাই অনেকেই নতুন স্পটে যেতেও চাচ্ছিল না। এর মধ্যে রাজুর ফ্রেন্ড রুমি লোকেশানটা চিনতে পারল, সে বলল হাবিবের বাসা থেকে ওই স্পটটা হয়ত ৩০মিনিট এর পথ হতে পারে, হয়ত এই কারনে রুমিও নিজেও কখন যায়নি। এর মধ্যে সোনায় সোহাগা রুমির প্রাইভেট কার নিয়ে এসেছে, রুমিসহ আমারা ৬ জন খুব সহজেই যায়গা হয়ে যাবে। সো নো চিন্তা ডু জার্নি।

সিদ্ধান্ত হওয়ার কিছুক্ষনের মধ্যেই আমরা যাত্রা করলাম অজানা অখ্যাত স্পট ঠান্ডাছড়ির উদ্দেশ্যে। আমরা ১৫ মিনিটের মধ্যেই অক্সিজেন থেকে চোধুরি হাট পৌছে গেলাম। চোধুরি হাট থেকে পশ্চিম দিকে একটা রাস্তা গেছে আমাদের ধারনা ওই রাস্তাটিই হবে তবু রাস্তায় মানুষকে জিজ্ঞেস করে নিশ্চিত হলাম ওইটিই ঠান্ডাছড়ির রাস্তা। ওই গ্রাম্য পথে যেতেই রাস্তার দুইপাশে সবুজ আর পাহাড় দেখে মন ভালো হয়ে গেলো। কিছুক্ষন মাটির রাস্তা পেরিয়ে পোছে গেলাম পিকনিক স্পট ঠান্ডাছড়িতে। পৌছেই সবাই হুড়মুড় করে গাড়ি থেকে নেমে পরলাম, পাহাড়, সবুজ আর লেকের পানির স্নিগ্ধতা দেখে মুগ্ধ হয়ে গেলাম।

কাশফুল, পাহাড়, লেক আর প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে পরিবেষ্টিত এক মনোমুগ্ধকর পরিবেশ।। দুপাশে গাছ বেষ্টিত রাস্তা দিয়ে যখন হাটবেন তখন মনে আহ!! এ পথ যদি শেষ না হত।। ব্যস্ততার এ শহরে একটি স্নিগ্ধময় বিকাল কাটানোর জন্য পারফেক্ট জায়গা।। লেকের পাড়ে বসে আড্ডা দিতে দিতে হারিয়ে যাবেন দূর আজানায়। আরো একটা জিনিস খুব ভালো লাগলো পর্যটকের ভীড় একদম নেই। প্রবেশ পথের দুইপাশে সুন্দর গাছের সারি আর সবুজের সমারোহ, আর দুইপাশে লেক। সোজা রাস্তা গিয়ে একটি পাহাড়ে উঠেছে আমরা এক দৌড়ে পাহাড়ে উঠে পরলাম, পাহাড়ের উপর কিছু পর্যটকের দেখে পেলাম। তাদের কথা বার্তা শুনে বুঝতে পারলাম তাদের বেশিরভাগই আশেপাশের এলাকা থেকে এসেছেন। পাহাড়ের উপরের অংশ পুরা সমতল যেটা দেখে বুঝতে পারলাম মালভূমি কেমন হয়। সেখানে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের জন্য একটি মঞ্চ আছে।

কিভাবে যেতে হবেঃ চট্টগ্রাম শহর থেকে ঠান্ডাছড়ির দূরত্ব খুব বেশি নয়,চট্টগ্রাম শহর থেকে মাত্র ১৩ কি.মি. দূরে ঠান্ডাছড়ির অবস্থান।। বড়জোর ঘন্টাখানেকের পথ। নিউমার্কেট বা মুরাদপুর থেকে তরী বা রেঞ্জার সার্ভিস এবং অক্সিজেন বাসস্টেশন থেকে নাজিরহাট বা রাউজান বাসযোগে চৌধুরীহাট নেমে সিটি কর্পোরেশনের ১নং দক্ষিণ পাহাড়তলী ওয়ার্ডের ফতেয়াবাদ কলেজ দিয়ে সোজা পশ্চিমে সিএনজিযোগে ঠান্ডাছড়িতে যাওয়া যায়। ফতেয়াবাদ কলেজ গেট নেমে হাতের বাম পাশ দিয়ে CNG করে ঠান্ডাছড়ি যাওয়া যায়।। CNG জনপ্রতি ১০/- টাকা।।

দুপুর ২ টা থেকে বিকাল ৫ টা পর্যন্ত দর্শনার্থীদের জন্য প্রবেশাধীকার সময়।।

যত্রতত্র ময়লা না ফেলে, পরিবেশ রক্ষায় অবদান রাখি।।