১৪টি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে বিনামূল্যে ডেঙ্গু পরীক্ষা

0
96

১৪টি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে বিনামূল্যে ডেঙ্গু পরীক্ষা করাবে সিভিল সার্জন কার্যালয়। এজন্য ঢাকা থেকে রক্ত পরীক্ষার কিট, রিএজেন্টসহ চিকিৎসা সামগ্রী আনা হচ্ছে।
সিভিল সার্জন ডা. আজিজুর রহমান সিদ্দিকী বলেন, বিনামূল্যে ১৪টি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ডেঙ্গু পরীক্ষা করা হবে।

‘রোববার (২৮ জুলাই) এসব চিকিৎসা সামগ্রী চট্টগ্রামের আসবে। পরেরদিন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সগুলোতে সামগ্রী বিতরণ করা হবে। তারপর থেকে রোগীরা সেবা পাবেন।’

চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, এনএস১, সিবিসি ও প্লাটিলেট পরীক্ষায় ডেঙ্গু শনাক্ত করা যায়। এর মধ্যে এনএস১ নামে পরীক্ষায় সহজে ডেঙ্গু শনাক্ত হয়। এটি মূলত রক্তের পরীক্ষার। রাসায়নিক ব্যবহার করে রক্তে ডেঙ্গুর ভাইরাস শনাক্ত করা হয়। এ পরীক্ষার মাধ্যমে চার ঘণ্টার মধ্যে ডেঙ্গু শনাক্ত করা যায়।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ডেঙ্গু নিশ্চিত হওয়ার ক্ষেত্রে তিনটি পরীক্ষা করাতে হয়। এর মধ্যে দ্রুত ডেঙ্গু শনাক্ত হয় এনএস১ পরীক্ষার মাধ্যমে। কিন্তু কিট এবং রিএজেন্ট সরবরাহ না থাকার কারণে এনএস১ পরীক্ষা করা সম্ভব হচ্ছে না সরকারি হাসপাতালে। তাই রোগীরা বাধ্য হয়েছে বেসরকারি ল্যাব থেকে পরীক্ষা করাচ্ছেন।

পটিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা তনয় তালুকদার বলেন, স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে সিবিসি ও প্লাটিলেট পরীক্ষার ব্যবস্থা থাকলেও এনএস১ পরীক্ষার সামগ্রী নেই।

আরও ৬ জন ডেঙ্গু রোগী শনাক্ত

এদিকে নতুনভাবে আরও ৬ জন ডেঙ্গু রোগী শনাক্ত হয়েছে। শনিবার (২৭ জুলাই) এসব রোগী শনাক্ত হয়।

এর মধ্যে চট্টগ্রাম মেডিকেল হাসপাতালে ৫ জন ও বেসরকারি সিএসসিআরে ১ জন রোগী শনাক্ত হয়।

সিভিল সার্জন ডা. আজিজুর রহমান সিদ্দিকী বলেন, নতুন ৬ জন রোগীর তথ্য পেয়েছি। এ পর্যন্ত চট্টগ্রামে ৫৪ জন ডেঙ্গু রোগী শনাক্ত হয়েছে।

অন্যদিকে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন ৪১টি ওয়ার্ডে চিকুনগুনিয়া ও ডেঙ্গু প্রতিরোধে বিশেষ ক্র্যাশ প্রোগ্রাম শুরু হয়েছে। মশক নিধনে এবার ২ কোটি টাকার ২৫ হাজার লিটার এডাল্টিসাইড, ১০ হাজার লিটার লার্ভিসাইড ছিটানো হবে।

পাশাপাশি সিভিল সার্জন কার্যালয় ডেঙ্গু প্রতিরোধে ১৫টি উপজেলা তদারকির জন্য কন্ট্রোল রুম করেছে। নগরে অবস্থিত ৯টি আরবান ডিসপেনসারিতে ডেঙ্গু নিয়ে বিশেষ সতর্কতার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।