১৪৮ কোটিতে হাতঘড়ি বিক্রি!

0
16

আসলেই অনেক টাকা। একটা রোলেক্স ঘড়ির জন্যেও অনেক বেশি অর্থ।

হলিউড তারকা পল নিউম্যানের ব্যবহৃত একটি রোলেক্স ডেইটোনা ঘড়ি নিলামে তোলা হলে এক ক্রেতা ওটা পেতে ১৭.৮ মিলিয়ন ডলার দিতে রাজি আছেন, যা বাংলাদেশি টাকায় ১৪৮ কোটিরও বেশি! কোনো নিলামে বিক্রি হওয়ার হাতঘড়ির দামের ক্ষেত্রে নিঃসন্দেহে এটা বিশ্বরেকর্ড। নিউ ইয়র্কের নিলাম হাউজ ফিলিপস এ তথ্য দিয়েছে।
নিউম্যানকে ঘড়িটি উপহার দিয়েছিলেন তার স্ত্রী জোয়ানে উডওয়ার্ড। ১৯৬০ এর দশকের শেষের দিকে তখন পল গাড়ি রেস বিষয় মুভি ‘উইনিং’ এর শুটিং করছিলেন। সেই সময় তার এই ঘড়ি ব্যবহারের কারণে তরুণ প্রজন্মে এক ধরনের ক্রেজ তৈরি হয়। বিশেষ করে রোলেক্সের এই ধরনের ডায়াল জনপ্রিয় হয়ে ওঠে।

ফিলিপস জানান, ডেইটোনার এই মডেলটির জনপ্রিয়তা আকাশছোঁয়া হয়ে ওঠে। সম্ভবত এই ঘড়িটিই সবচেয়ে বেশি মানুষ কিনেছেন।

এ বছর পল নিউম্যানের মেয়ের জামাই জেমস কক্স ১৯৬৮ সালের পল নিউম্যান ডেইটোনা ঘড়িটি নিলামে তোলেন।

১৯৮৪ সালে পল তার জামাইকে ঘড়িটি দেন।
নিলাম হাউজ ক্রেতার নাম প্রকাশ করেনি। তবে বলেছে, ফোনের মাধ্যমে বিড করে তিনি ঘড়িটি কিনে নিয়েছেন।

অকশন হাউজ আরো জানায়, ১৯৬৯-১৯৮৪ সালের মধ্যে নিউম্যান ঘড়িটি প্রতিদিনই পরেছেন। এই ঘড়িটি নিঃসন্দেহে বিংশ শতকের এক সেআ আইকনিক সংগ্রহ।

এর আগে এক বিরল স্টেইনলেস স্টিলে তৈরি প্যাটেক ফিলিপ হাতঘড়ির দাম উঠেছিল ১১ মিলিয়ন ডলার। সেই রেকর্ডটি ভেঙে দিল রোলেক্সের এই মডেলটি। এর আগে সবচেয়ে বেশি দামে যে রোলেক্সটি বিক্রি হয় তার দাম ওঠে ৫ মিলিয়ন ডলার।

দাম বেশি উঠেছে বলে যে এটাই সবচেয়ে দামি ঘড়ি ছিল তা নয়। অবশ্য ২০১৫ সালে সোথসবাই নিলাম হাউজে প্যাটেক ফিলিপের তৈরি আরেকটি পকেটঘড়ি বিক্রি হয় ২৪.৪ মিলিয়ন ডলারে। ওটা ১৯৩৩ সালে তৈরি করা হয়েছিল খ্যাতিমান ব্যাংকার হেনরি গ্রেভসের জন্যে। সূত্র : সিএনএন