৩৮ বন্দি করোনায় আক্রান্ত, যুক্তরাষ্ট্রের কারাগারে বিশৃঙ্খলা

0
43

ভয়াবহ হয়ে উঠছে যুক্তরাষ্ট্রের করোনা পরিস্থিতি। নিউইয়র্ক সিটির একটি কারাগারে কমপক্ষে ৩৮ জন ব্যক্তির করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এর মধ্যে কুখ্যাত রিকার্স দ্বীপের কারাগার কমপ্লেক্সও রয়েছে। শনিবার (২১ মার্চ) নগরীর জেল ব্যবস্থা পর্যবেক্ষণ বোর্ড এ খবর নিশ্চিত করেছেন। এ খবর ছড়িয়ে পড়ার পর কারাগারে বন্দিদের মাঝে আতঙ্ক সৃষ্টি হয়েছে।

ফৌজদারী মামলার বিচারপতিদের উদ্দেশ্যে একটি চিঠিতে ‘বোর্ড অব কারেকশন’ এর অন্তর্বর্তীকালীন চেয়ারম্যান জ্যাকলিন শেরম্যান লিখেছেন, ৩৮ জন বন্দির শরীরে করোনা সনাক্ত হয়েছে। এছাড়া বর্তমানে আরও কমপক্ষে ৫৮ জন বন্দিকে করোনায় আক্রান্ত সন্দেহে কোয়ারেন্টিন ইউনিটে রাখা হয়েছে।

সম্ভবত এই ব্যক্তিরা সাম্প্রতিক সপ্তাহগুলিতে শতাধিক আবাসন অঞ্চল এবং সাধারণ অঞ্চলে ছিলেন। তাদের হেফাজতে নেওয়ার পর কারাগারের বন্দি ও কর্মীদের অনেক এই লোকগুলির সংস্পর্শে ছিলেন। ফলে ধারণা করা হচ্ছে, কারাগারে করোনা সংক্রমণের সংখ্যা ব্যাপকভাবে বৃদ্ধি পাবে।

শেরম্যান বলেন, কারাগারে আটক থাকা ব্যক্তি এবং কর্মীদের সুরক্ষার জন্য সর্বোত্তম পথ হল এটা দ্রুত আটকানো এবং আক্রান্তদের মাঝে কাজ করা মানুষের সংখ্যা হ্রাস করা।

তিনি লিখেছেন, গত ছয় দিনে বোর্ড দেখতে পেয়েছে যে কারাগারের কমপক্ষে ১২টি বিভাগের কর্মচারী, পাঁচ জন স্বাস্থ্যসেবা কর্মচারী এবং ২১ জন বন্দি ভাইরাসের সংক্রমণের শিকার হয়েছেন।

সিটি জেল কর্তৃপক্ষ এবং কারাগারে স্বাস্থ্যসেবা সরবরাহকারী কর্তৃপক্ষ এই চিঠির বিষয়ে মন্তব্য চেয়ে পাঠানো বার্তাগুলির কোনও প্রতিক্রিয়া জানায়নি। শুক্রবার, সিটি ডিপার্টমেন্ট অব কারেকশনস জানিয়েছে যে, মাত্র একজন বন্দি এবং সাতজন জেল কর্মচারীর শরীরে করোনভাইরাস পাওয়া গেছে। তবে একদিন পরেই শনিবার, বিভাগটি স্বীকার করেছে যে ১৯ জন বন্দি করোনা পজেটিভ হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রে প্রতিদিনই লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছেন অন্তত ৭ হাজার ৩০১ জন। এ নিয়ে সেখানে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৬ হাজার ৮৯২ জন। ফলে বিশ্বের মধ্যে করোনায় সর্বোচ্চ আক্রান্তের তালিকায় এখন তিন নম্বরে ডোনাল্ড ট্রাম্পের দেশ।

গত ২৪ ঘণ্টায় যুক্তরাষ্ট্রে প্রাণ হারিয়েছেন আরও ৮৪ জন কোভিড-১৯ রোগী। এনিয়ে সেখানে মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩৪৮ জন।