‘৭ই মার্চের ভাষণ বাঙ্গালী জাতির অখণ্ড দলিল’

0
38

পতেঙ্গায় বঙ্গবন্ধু মানব কল্যাণ পরিষদের আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

নগরীর পতেঙ্গায় বঙ্গবন্ধু মানব কল্যাণ পরিষদের উদ্যোগে ঐতিহাসিক ৭ই মার্চের ভাষন প্রচার দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা ও বঙ্গবন্ধুর আত্মজীবনী প্রকাশ অনুষ্ঠান নগর সভাপতি আমিনুল ইসলাম আমিনের সভাপতি গোল্ডেন বীচের পতেঙ্গা আইডিয়াল কলেজ মাঠে বৃহস্পতিবার বিকেলে অনুষ্ঠিত হয়।

আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন-কেন্দ্রিয় কমিটি উপদেষ্টা ও ৩১নং আলকরণ ওয়ার্ডের কাউন্সিলর-নগর আঃলীগ নেতা আলহাজ¦ তারেক সোলাইমান সেলিম,প্রধান বক্তা ছিলেন-কেন্দ্রিয় কমিটির সাঃসম্পাদক মোঃ আকরাম হোসেন,উদ্বোধক অথিতি-সাবেক ছাত্রনেতা ও পতেঙ্গা আইডিয়াল কলেজের প্রিন্সিপাল এস.এম দিদারুল আলম,বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন- বঙ্গবন্ধু মানব কল্যাণ পরিষদ নগর সাঃসম্পাদিকা-মিসেস জান্নাতুল ফেরদৌস,পতেঙ্গা থানা অর্থ সম্পাদক-জোবায়ের বাশার,মোঃআলী হায়দার মেম্বার,৪০নং ওয়ার্ড মহিলা আঃলীগ নেত্রী রিফাতী বেগম, নারী শক্তির নেতী মিসেস মাহবুবা তারা ,বঙ্গবন্ধু মানব কল্যাণ পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক ফারহানা আক্তার, নাছিমা বেগম,লিজা এবং নগর কমিটির মাসুদ গাজী শুভেচ্ছা বক্তব্যে রাখেন।

সভায় বক্তারা বলেন ”৭ই মার্চের ভাষন বাঙ্গালী জাতির অখন্ড দলিল”যার জন্য বাঙ্গালীর রাখাল রাজা খ্যাত বঙ্গবন্ধু জাতির জনক শেখ মুজিবুর রহমানই মহান অঘোষিত ভাবে স্বাধীনতার ঘোষনা দিয়ে দেন । ঐতিহাসিক সেই ভাষনটি আজো দক্ষিণ এশিয়ার রাজনৈতিক মহা কবির অমর কাব্য হিসেবে স্বীকৃত। যেই ভাষন জাতিকে পরবর্তীতে মুক্তিযুদ্ধের সৎ সাহস ও প্রেরণা যুগিয়েছেন বলে বক্তরা অভিমত প্রকাশ করেন ।

সেই দিনের ১৭মিনিটের ১০০৮শব্দের ভাষণের শব্দ চয়ন ছিল আগামীর সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠার শ্রেষ্ট একটি ডাক। যাহা দেশ স্বাধীনের ৪৮বছর পরেও জাতিকে ৭১’এর’মুক্তিযোুদ্ধের সংগ্রামী চেতনা জাগরিত করে। আর আজকে সেই সোনার বাংলার রূপক্যান শেখ হাসিনার হাত ধরে ডিজিটাল বাংলাদেশ বির্নিমাণে স্বচ্ছ উন্নয়ন নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে দেশ।

পরিশেষে করি সেই অমর কবিতা-৭ই মার্চের ভাষনের অডিও ভিডিও রেকর্ড প্রচার করে।