মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ

0
23

শুভ জন্মদিন!
অধ্যাপক মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ।


jonmodin১৯৫৭ সালের ২ জানুয়ারি হাটহাজারীর সম্ভান্ত মির্জা পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন অধ্যাপক মুহম্মদ শহীদুল্লাহ। বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও সমাজসেবক মরহুম আলহাজ্ব এম.এম.এ. লতিফ ও মীর খাতুন লতিফ এর ৫ম সন্তান তিনি।

অধ্যাপক মির্জা শহীদুল্লাহ নামে পরিচিত তিনি। এক ছেলে ও এক মেয়ের জনক তিনি। তাঁর সহধর্মীনি একজন বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র থাকাকালীন লেখালেখি, সাংস্কৃতিক ও রাজনৈতিক আন্দোলনের সাথে জড়িত ছিলেন। বিভিন্ন পত্রিকা ও বাংলাদেশ বেতারে কাজ করেন তিনি। দেশি-বিদেশী বিভিন্ন পত্রিকা, ম্যাগাজিন, জার্নালে তাঁর অসংখ্য লেখা প্রকাশিত হয়েছে।

স্বাধীনতা সংগ্রামের পূর্ববর্তী সময় থেকে তিনি একটি রাজনৈতিক ছাত্র সংগঠনের সাথে যুক্ত ছিলেন। মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় মুক্তিযুদ্ধাদের তিনি খাবার সরবরাহ করতেন।

‘সমকালীন বাংলা ব্যাকরণ ও রচনা’ গ্রন্থসহ বেশ কটি গ্রন্থের রচয়িতা অধ্যাপক মুহম্মদ শহীদুল্লাহ। প্রকাশের অপেক্ষায় আছে আরো সাতটি বই। ভ্রমন করেছেন বাংলাদেশের প্রায় সব কটি জেলায় এছাড়াও বেশ কটি দেশ।

কর্মজীবনে অধ্যাপক মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ বিভিন্ন কলেজে অধ্যাপনা করেছেন। সেসময় শিক্ষার্থীদের কছে তিনি ক্লাসের কারণে বেশ জনপ্রিয়তা লাভ করেন। এছাড়া পালন করেছেন অধ্যক্ষের দায়িত্ব। জাতিসংঘের শিক্ষা বিষয়ক সংস্থা ইউনিসেফের উচ্চ পদে চাকরি ও দেশের বাইরের একটি কলেজে অধ্যাপনার অফার পেয়েছিলেন অধ্যাপক মুহম্মদ শহীদুল্লাহ।

বর্তমানে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের প্রধান শিক্ষা কর্মকর্তার দায়িত্ব পালন করছেন অধ্যাপক মুহম্মদ শহীদুল্লাহ। এর আগে আপসহীনতার কারণে প্রতিহিংসার শিকার হয়ে কিছু বছর তিনি এ দায়িত্বের বাইরে ছিলেন। পরে উচ্চ আদালতের রায়ে ফের স্বপদে বহাল হন।

তিনি স্কাউট আন্দোলনসহ বেশ কটি সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠনের সাথে যুক্ত ছিলেন ও আছেন। তিনি রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি, মা ও শিশু হাসপাতালসহ বেশ কটি প্রতিষ্ঠানের আজীবন সদস্য। নিউজচিটাগাং২৪.কম এর একজন উপদেষ্ঠা।

জন্মদিনে অধ্যাপক মুহম্মদ শহীদুল্লাহকে অনেক অনেক অভিনন্দন ও ভালোবাসা।

ঘোষণা: দেশের বিশিষ্টজন, বুদ্ধিজীবি/বরেণ্য সাংবাদিকদের পাশাপাশি চট্টগ্রামের সাংবাদিক ও সংবাদ মাধ্যমে কর্মরতদের জন্মদিনে শুভেচ্ছা জানিয়ে তাঁদের সংক্ষিপ্ত জীবনী তুলে ধরার সিন্ধান্ত নিয়েছে চট্টগ্রামের জনপ্রিয় অনলাইন নিউজচিটাগাং২৪.কম। এ প্রেক্ষিতে আমরা ‘জন্মদিন’ নামের নতুন একটি বিভাগ চালু করেছি। এই বিভাগে আপনিও লেখা-তথ্য দিয়ে আমাদের সহায়তা করতে পারেন। লেখা ও তথ্য পাঠানোর ঠিকানা: [email protected]